ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১

পুরুষ অবস্থায় ঘুমিয়ে জেগে উঠলেন নারী হয়ে! 

প্রকাশিত: ১৫:২০, ২১ জুন ২০২৪

পুরুষ অবস্থায় ঘুমিয়ে জেগে উঠলেন নারী হয়ে! 

অস্ত্রপচারে পুরুষাঙ্গ বাদ দেওয়া হয়েছে মুজাহিদ নামে এক ব্যাক্তির

২০ বছরের মুজাহিদ হাসপাতালে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। সকালে উঠে দেখেন, অস্ত্রপচারে তাঁর পুরুষাঙ্গ বাদ দেওয়া হয়েছে। পরিণত করা হয়েছে নারীতে। এই ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উঠেছে ওমপ্রকাশ নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের মুজাফ্ফরপুরের জেলার একটি সরকারি হাসপাতলে। কিন্তু এর পেছনের কারণ কী? 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ৩ জুন উত্তর প্রদেশের সাঞ্জাক নামের গ্রামের বাসিন্দা মুজাহিদের মনসুরপুরের বেগরাজপুর মেডিকেল কলেজে অজান্তে অস্ত্রোপচার হয়। মিথ্যা বলে মুজাহিদকে হাসপাতালে নিয়েছিলেন ওমপ্রকাশ। সেখানে ঘুমিয়ে পড়লে মুজাহিদের পুরুষাঙ্গ বাদ দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এমনকি তাঁকে পুরুষ থেকে নারীতে পরিণত করা হয়।

মুজহিদ জানিয়েছেন, গত দুই বছর ধরে তাঁকে বিরক্ত করছিলেন ওমপ্রকাশ। অস্ত্রপচারের পরে তিনি হুমকি দেন, এবার থেকে তাঁর সঙ্গেই থাকতে হবে। যেহেতু লিঙ্গ পরিবর্তনের পরে মুজাহিদের পরিবার মেনে নেবে না। এমনকি ভুক্তভোগীর যুবকের বাবাকে মেরে সম্পত্তি হাতানোর হুমকিও দেন ওমপ্রকাশ। 

মুজাহিদ বলেন, ‘ওমপ্রকাশ আমাকে এখানে এনেছিল। পরদিন সকালে বুঝতে পারি আমার অস্ত্রোপচার হয়েছে। সম্পূর্ণ জ্ঞান ফেরার পর দেখি ছেলে থেকে মেয়ে করা হয়েছে আমাকে।’

এই ঘটনায় বেগরাজপুর মেডিকেল কালেজের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে ভারতীয় কিষান মোর্চা। দ্রুত ওমপ্রকাশ ও অভিযুক্ত হাসপাতালের চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি কৃষক নেতাদের। হাসপাতালের একশ্রেণির চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অঙ্গপাচারেরও অভিযোগ এনেছেন তাঁরা।  

এই ঘটনায় মুজাহিদের বাবা গত ১৬ জুন পুলিশে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর গ্রেপ্তারও করা হয় ওমপ্রকাশকে। যদিও কিষান মোর্চার নেতাদের অভিযোগ, পুলিশ তদন্তে টালবাহানা করছে। তাঁরা মুজাহিদের জন্য ২ কোটি রুপি ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছেন।

বারাত

×