ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

সাংবাদিকদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

চিকিৎসায় কোনো অবহেলা মেনে নেব না

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০০:১৬, ২১ জুন ২০২৪

চিকিৎসায় কোনো অবহেলা মেনে নেব না

ডা. সামন্ত লাল সেন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন বলেছেন, আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ঠিক করেছি সারাদেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা আমি নিজে  সরেজমিনে দেখব। সেটার অংশ হিসেবে ধানমন্ডি ল্যাবএইড হাসপাতালে এসেছি। বৃহস্পতিবার সকালেও আমি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগ পরিদর্শন করেছি। গত বৃহস্পতিবারও আমি তিনটা হাসপাতাল পরিদর্শন করেছি। ল্যাবএইডে যারা চিকিৎসা দিচ্ছেন তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। যারা চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের সঙ্গেও কথা বলেছি। 
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এক্ষেত্রে আমার যেটা পর্যবেক্ষণ সেটা হচ্ছে ওনাদের আরও যতœশীল হতে হবে। ওনাদের যেটা করতে হবে সেটা হচ্ছে কোয়ান্টিটি না বাড়িয়ে কোয়ালিটির দিকে নজর দিতে হবে। অ্যান্ডোসকপি, আলট্রাসনোগ্রাফি এসব একসঙ্গে ৭০টা না করে, সংখ্যায় কম হলেও যাতে মানসম্মতভাবে করে। গুণগত মান বজায় রাখা যাতে সম্ভবপর হয়। 
বৃহস্পতিবার দুপুরে ধানমন্ডি ল্যাবএইড স্পেশালাইজড হাসপাতালে আকস্মিক পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সাংবাদিকদের প্রশ্নে এ কথা বলেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী ল্যাবএইড হাসপাতালের জরুরি বিভাগ, মেডিক্যাল চেকআপ রুম, অ্যান্ডোসকপি ও কলোনস্কপি বিভাগ, সিসিইউ বিভাগসহ বিভিন্ন বিভাগ সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। তা ছাড়া রেডিওলজিস্টসহ মেডিক্যাল কনসালট্যান্টদের সঙ্গে চিকিৎসা সেবা পদ্ধতি নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেন। হাসপাতালে আগত রোগীদের সঙ্গেও মন্ত্রী কথা বলেন। 
পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আমি আরেকটি কথা বলতে চাই যেটা গতকাল আমি এভারকেয়ার হাসপাতালেও বলেছি, প্রতিটি বড় হাসপাতালে যেন গরিব রোগীদের একটা পার্সেন্টেজ থাকে। যাতে গরিব রোগীদের জন্য চিকিৎসা সেবা নেওয়া সম্ভব হয়। সাংবাদিকদের প্রশ্নে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, চিকিৎসায় কোনো নেগ্লেজেন্সি বা অবহেলা আমি মেনে নেব না। মানুষের জীবন কিন্তু একটাই। চলে গেলে আর আসে না।

এরপর স্বাস্থ্যমন্ত্রী সেন বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি গ্যাস্ট্রোএন্টারোলজিসহ বিভিন্ন বিভাগ পরিদর্শন করে রোগী এবং ডাক্তারদের সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলেন এবং ডকুমেন্টশন পদ্ধতি ঠিকমতো মানা হচ্ছে কি না দেখতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যাচাই করেন।
বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতাল পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডকুমেন্টশন ব্যবস্থা ভালো হতে হবে। ঠিকমতো রোগীর ডকুমেন্টশন নিশ্চিত করা গেলে ভবিষ্যতে কোনো সমস্যা দেখা দিলে সেটার সমাধান করা সহজ হয়। এখানকার ডকুমেন্টশন ব্যবস্থা আমার কাছে ভালো মনে হয়নি। ওনাদের প্রতি আমার মেসেজ রোগীর প্রতি আরও যতœশীল হতে হবে, বিলটাও যাতে সহনীয় পর্যায়ে থাকে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, আমার একটাই কথা কোয়ালিটি চিকিৎসা চাই। কোয়ান্টিটি নয়। 
এর আগে সকালে ডা. সামন্ত লাল সেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগ পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি ডাক্তার ও রোগীদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের ক্লাসরুম পরিদর্শন এবং চিকিৎসা সেবার বিভিন্ন দিক নিয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। 
পরিদর্শনকালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (হাসপাতাল অনু বিভাগ) মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান এনডিসি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল) ডা. আবু হোসেন মো. মঈনুল আহসান উপস্থিত ছিলেন।

×