ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২, ২০ আশ্বিন ১৪২৯

অচিরেই প্লাবিত হয়ে যাবে গোটা পৃথিবী

প্রকাশিত: ১৫:৪৮, ৩১ আগস্ট ২০২২; আপডেট: ১৫:৫৭, ৩১ আগস্ট ২০২২

অচিরেই প্লাবিত হয়ে যাবে গোটা পৃথিবী

ধীরে ধীরে গলছে বরফ খন্ড

পৃথিবী প্লাবিত হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা বহুদিন ধরেই। পরিবেশ বিজ্ঞানী ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞেরা এটা বারবার মনে করিয়ে দিলেও কেউই এই কথা কানে তোলেনি। তাই পরিস্থিতি যে অন্ধকারে। 

গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের জেরে পৃথিবী একটু একটু করে উষ্ণ হয়ে উঠছে। গলছে পৃথিবীর সঞ্চিত বরফমুকুট। মেরুবরফগলা সেই বাড়তি পানি অবলীলায় বাড়িয়ে দিচ্ছে সমুদ্রের স্তর। সম্প্রতি তেমনই এক আশঙ্কার কথা ফের জানা গিয়েছে। 

গ্রিনল্যান্ডের বরফের একটি বড় চাদর গলে অচিরেই পৃথিবীর সমুদ্রস্তর গড়ে ১০ ইঞ্চি বা ২৭ সেন্টিমিটার বাড়িয়ে দেবে! যা বিশ্বের জলভাগে গড়ে প্রায় একফুট স্তরবৃদ্ধি রাতের ঘুম কেড়ে নেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। ফলে সহজেই নীচু এলাকাগুলো প্লাবিত হয়ে যেতে পারে। যা খুবই উদ্বেগজনক।

বিজ্ঞানের পরিভাষায় এটাকে বলা হয়, 'জোম্বি আইস' বা 'ডুমড আইস'। এই বরফস্তর খুবই মোটা। এটি এখনও পর্যন্ত মূল বরফের চাঁইয়ের সঙ্গেই সংযুক্ত হয়ে আছে। এখনও আলাদা হয়ে যায়নি। কিন্তু অচিরেই তা যেতে পারে বলে আশঙ্কা বিজ্ঞানীদের। আর তখনই সমুদ্রে জলস্তর বৃদ্ধির এই ভয়ানক ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। 

মূল বরফের চাঁইকে 'পেরেন্ট গ্লেসিয়ার' বলে। কিন্তু সমস্যা হলো পরিবেশ টানা উষ্ণ থেকে যাওয়ার জেরে এই পেরেন্ট গ্লেসিয়ারে আর নতুন করে বরফস্তর জমছে না। ফলে সে পাতলা হয়ে যাচ্ছে, দুর্বলও হয়ে যাচ্ছে। আর তার থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার উপক্রম করছে এর ছোট ছোট অংশ। 'ছোট' বললেও তা পৃথিবীর সামুদ্রিক জলস্তর বাড়িয়ে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। 

জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ডেনমার্ক অ্যান্ড গ্রিনল্যান্ড-এর গ্লেসিওলজিস্ট বা হিমবাহবিদ জেসন বক্স ও উইলিয়াম কোলগান এই বিষয়ক একটি গবেষণাপত্রে এই আশঙ্কার কথা বলেছেন। গবেষণাপত্রটি 'নেচার ক্লাইমেট চেঞ্জ' নামক জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। 

হিমবাহবিদ উইলিয়াম কোলগান বলেছেন, এখনই বেশ কিছু বরফের টুকরো ভেঙে গিয়ে ভেসে ভেসে বেড়াচ্ছে। তবে এবার সমুদ্রস্তর যে পরিমাণ বাড়তে চলেছে, গত কয়েকবছর ধরে বিজ্ঞানীরা গ্রিনল্যান্ডের বরফ গলে গিয়ে যে পরিমাণ পানি বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে আসছিলেন তার প্রায় দ্বিগুণ। 

'ইন্টারগভর্মেন্টাল প্যানেল অন ক্লাইমেট চেঞ্জ'- এর ভবিষ্যদ্বাণীর মতে, আগামী ২১০০ সাল নাগাদ পানির স্তর বাড়তে পারে ২-৫ ইঞ্চি। যদিও সর্বশেষ এই পর্যবেক্ষণ বলছে পানি বৃদ্ধি এর চেয়ে অনেক বেশিই হতে চলেছে। ফলে আশঙ্কাও বাড়ছে।

এমএইচ