ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

শিক্ষার্থীদের সঙ্গীত প্রশিক্ষণ দেবে যুক্তরাজ্যের রয়্যাল স্কুলস অব মিউজিক

প্রকাশিত: ২০:২৯, ৪ জুন ২০২৩; আপডেট: ২০:২৯, ৪ জুন ২০২৩

শিক্ষার্থীদের সঙ্গীত প্রশিক্ষণ দেবে যুক্তরাজ্যের রয়্যাল স্কুলস অব মিউজিক

যুক্তরাজ্যের রয়্যাল স্কুলস অব মিউজিক

গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (জিআইএস)-এর শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিকমানের সঙ্গীত প্রশিক্ষণ দেবে যুক্তরাজ্যের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান অ্যাসোসিয়েটেড বোর্ড অব দ্য রয়্যাল স্কুলস অব মিউজিক (এবিআরএসএম)। 

সম্প্রতি রাজধানীর সাতাকুলে অবস্থিত জিআইএস ক্যাম্পাসে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠান দুটির মধ্যে এ সম্পর্কিত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির ফলে পারফর্মিং আর্টস ও সংগীতের ক্ষেত্রে জিআইএস শিক্ষার্থীদের সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশে এবিআরএসএম’র প্রতিনিধি মো. শাফায়েতুল ইসলাম, গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রিন্সিপাল রমেশ মুডগাল, হেড অব জুনিয়র স্কুল কুমকুম হাবিবা জাহান এবং এসটিএস ক্যাপিটালের হেড অব অপারেশনস জাহাঙ্গীর কবির।

শিশুর শিক্ষাগ্রহণের ক্ষেত্রে পারফর্মিং আর্টসের গুরুত্ব অনুধাবন করে শিক্ষার্থীদের জন্য সমৃদ্ধ ও বিস্তৃত পরিসরের শৈল্পিক অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে চায় জিআইএস। এই চুক্তির মধ্য দিয়ে অভিজ্ঞ এবিআরএসএম কোচদের কাছ থেকে পিয়ানো, গিটার ও বেহালা (ভায়োলিন) শেখার সুযোগ পাবে জিআইএস শিক্ষার্থীরা। 

এই প্রশিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের বাদ্যযন্ত্রের দক্ষতা বিকশিত করতে সহায়তা করবে ও তাদের অনুপ্রাণিত করবে; যা বাংলাদেশে কো-কারিকুলার শিক্ষাকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাবে।

এই অংশীদারত্বের কেন্দ্রে রয়েছে এবিআরএসএম সুপারিশকৃত সঙ্গীতের পাঠক্রম। এ পাঠক্রম অনুসরণ করে গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অত্যাধুনিক মিউজিক স্টুডিওতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গীতের পাঠদান করা হবে। বিশেষ এই কারিকুলামের সাথে এবিআরএসএমের দক্ষ প্রশিক্ষকদের নির্দেশনা, সঙ্গীতের পাঠ গ্রহণে শিক্ষার্থীদের মেধা ও দক্ষতার পরিপূর্ণ বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। কোর্স সফলভাবে শেষ করার পর এবিআরএসএমের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত মূল্যায়ন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে নিজেদের দক্ষতা প্রমাণের সুযোগ পাবে জিআইএস শিক্ষার্থীরা; অর্জন করতে পারবে বোর্ডের সম্মানজনক সনদ।

গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ রমেশ মুডগাল বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীদের জন্য সার্বিক শিক্ষা নিশ্চিত করা এবং গৎবাঁধা শিক্ষাগ্রহণ থেকে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে এই অংশীদারত্ব জিআইএসের জন্য মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হবে। সঙ্গীতের প্রতি গভীর উপলব্ধি গড়ে তোলার ক্ষেত্রে একই ধরনের ভাবনা পোষণ করে গ্লেনরিচ ও এবিআরএসএম। এমন একটি স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানের সাথে অংশীদারিত্ব করতে পেরে আমরা সম্মানিত বোধ করছি। আমাদের প্রতিষ্ঠানে একটি প্রাণবন্ত ও মননশীল মিউজিক্যাল কমিউনিটি গড়ে তুলতে আমরা একযোগে কাজ করবো।’

এবিআরএসএম’র বাংলাদেশ প্রতিনিধি সাফায়েতুল ইসলাম বলেন, ‘গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের সাথে অংশীদারত্ব নিয়ে আমরা আশাবাদী। স্থানীয় শিক্ষাক্ষেত্রে গঠনমূলক পরিবর্তন নিয়ে আসতে স্কুলটির আগ্রহ আর আমাদের দক্ষতা ও রিসোর্সের সমন্বয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি সমৃদ্ধ ‘মিউজিক্যল’ পরিবেশ গড়ে তুলতে সক্ষম হবো আমরা, যেখানে তারা নিজেদের অমিত সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে পারবে ও বিকশিত হওয়ার সুযোগ পাবে। আমরা বিশ্বাস করি, সঙ্গীত শেখার ক্ষেত্রে প্রেক্ষাপট নির্বিশেষে প্রত্যেক ব্যক্তিরই সুযোগ থাকা উচিত।’

বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে ওঠার লক্ষ্যে, গ্লেনরিচ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল শিক্ষার্থীদের জন্য সার্বিক শিক্ষার উপযোগী পরিবেশ নিশ্চিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। সার্বিক শিক্ষা ও চারিত্রিক উন্নয়নের ওপর গুরুত্বারোপ করার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের অ্যাকাডেমিকভাবে সমৃদ্ধ ও দ্রুত পরিবর্তনশীল এই বিশ্বের উপযোগী করে প্রস্তুত করবে জিআইএস। 

অন্যদিকে, যুক্তরাজ্যের সবচেয়ে বড় সংগীত শিক্ষাঙ্গন - এবিআরএসএম একইসাথে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ মিউজিক এক্সাম প্রোভাইডার, যারা ৯০টিরও বেশি দেশে বছরে ৬ লাখ ৫০ হাজারেরও বেশি মূল্যায়ন সম্পন্ন করে। ১৮৮৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এবিআরএসএমের অত্যন্ত সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে। সংগীতের প্রতি গভীর ভালোবাসা লালন করা ও এর গুরুত্বপূর্ণ অর্জনগুলোকে অনুপ্রাণিত করা, বহু বছর ধরে তারা তাদের এই লক্ষ্যে অবিচল রয়েছে। অনুদানের মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে সঙ্গীত শিক্ষার উদ্যোগে সহায়তা করতে নিবন্ধিত এই দাতব্য সংস্থাটি নিবেদিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

 

এমএস

×