ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

জবিতে মঞ্চস্থ হল সেলিম আল দীনের ’নিমজ্জন’

জবি সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ১২:২৪, ৩১ জানুয়ারি ২০২৩

জবিতে মঞ্চস্থ হল সেলিম আল দীনের ’নিমজ্জন’

সেলিম আল দীনের ’নিমজ্জন’মঞ্চস্থ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) নাট্যকলা বিভাগের পরীক্ষা প্রযোজনা হিসাবে মঞ্চস্থ হয়েছে নাট্যাচার্য সেলিম আল দীন রচিত নাটক ‘নিমজ্জন’।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কর্য চত্ত্বরে নাটকটি মঞ্চায়িত হয়। প্রযোজনাটির সার্বিক পরিকল্পনা ও নির্দেশনায় ছিলেন নাট্যকলা বিভাগের চেয়ারম্যান শামস্ শাহরিয়ার কবির।

নাটকটিতে ফুটে উঠে গণহত্যার আকীর্ণ এক অদ্ভুত শহরের চিত্র। শহরের রেলপথে এক আগন্তুক আসে মরণাপন্ন তার বন্ধুকে দেখতে। এই শহরের পথ পরিক্রমায় প্লাটফর্মে ঝুলন্ত কুলির লাশ, শহরের সময়কে ঠিক রাখার প্রচেষ্টারত চাবিওয়াল বৃদ্ধ, গেস্টহাউসে রাত্রি খুলবার আশ্চর্য তালা, লেখক সংঘে আগন্তুকের আগমন, অবশেষে মরণাপন্ন বন্ধুর সাথে সাক্ষাৎ ও কথোপকথনে পৃথিবীব্যাপী গণহত্যার ইতিহাস, সভ্যতা ও নতুন রাষ্ট্রক্রম ভাবনার দর্শন ওঠে আসে 'নিমজ্জন' নাট্য প্রযোজনায়।

নাটকটিতে আগন্তুক চরিত্রে অভিনয় করেন মাজেদ আহমেদ ও সাদ্দাম হোসেন, ভিক্ষুক চরিত্রে মাহাবুবুর রহমান, চাবিওয়ালা চরিত্রে মো. এনামুল হাসান কাওছার, গেস্ট হাউজের মালিক ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক (আগন্তুকের বন্ধু) চরিত্রে মো. ইমরান হোসেন, কবি চরিত্রে সাজ্জাত হোসেন, সাহিত্যের অধ্যাপক চরিত্রে ইমরান হাবীব, ইকোলোজিস্ট চরিত্রে হাফসা ফারিহা উর্মী, ইন্টোরেগেশন অফিসার হিসেবে তাকরিম, উর্মী, সাজ্জাত এবং যুবক চরিত্রে ছিলেন শান্ত।

এছাড়াও কোরিওগ্রাফি দলে ছিলেন- নিশা, বাবলু, মিম, অনামিকা, কর্ণা, অনন্যা, সোমালি, মুস্তাকিন, মুগ্ধ। আবহ সঙ্গীতে ছিলেন- শৈলী, খুশি, শোভন, নওমী, হিয়া, পলক, নিশা ও রিয়াজ। দ্রব্যসামগ্রী প্রয়োগে ছিলেন- সাজ্জাত, অনামিকা, সোমালি, কর্ণা, শান্ত, উর্মী, ইমন। পোশাক পরিকল্পনা সহযোগী ছিলেন- উর্মী, মাহবুব ও সাদ্দাম। মুখোশ নির্মাণে ছিলেন- জেরিন চাকমা ও মীম। প্রচার ও প্রকাশনায় ছিলেন- ইমন ও কাওছার। সেট নির্মাণ ও প্রয়োগে ছিলেন- রঞ্জন, মাহবুব, নোভা, তামান্না, শ্রাবন্তী, অভিজিত, ইয়াছিন, ফিজা, কাকন, আনোয়ার, ব্রতী, সৌমিক, রুদ্র, রাজিন। পাণ্ডুলিপি সম্পাদনায় ছিলেন কাওছার। ফ্লোর ম্যানেজারের দায়িত্বে ছিলেন- মাহাবুবুর রহমান ও সাদ্দাম হোসেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক এবং কোষাধ্যক্ষ  অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

টিএস

×