ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

বিজ্ঞান, অধ্যায় : প্রথম (আমাদের পরিবেশ)

পঞ্চম শ্রেণির পড়াশোনা

শ্যামল কুমার দত্ত

প্রকাশিত: ০০:৫৪, ২৭ মে ২০২৩

পঞ্চম শ্রেণির পড়াশোনা

-

সিনিয়র শিক্ষক (অব.)
গভ. ল্যাবরেটরি হাই স্কুল, ঢাকা

১। নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর জেনে নেই:
(ক) পরাগায়ন কী?
উত্তর: ফুলের পরাগধানী থেকে পরাগরেণু একই ফুলের বা ভিন্ন ফুলের গর্ভকু-ে স্থানান্তরের প্রক্রিয়াকে পরাগায়ন বলে।
(খ) ক্লোরোফিল কী?
উত্তর: উদ্ভিদের পাতার সবুজ কণিকা হচ্ছে ক্লোরোফিল, যা উদ্ভিদের খাদ্য তৈরিতে সহায়তা করে।
(গ) পরিবেশের ওপর জীবের নির্ভরশীলতার দুটি উদাহরণ দাও।
উত্তর: পরিবেশের ওপর জীবের নির্ভরশীলতার দুটি উদাহরণ নিচে দেয়া হলো-
(র) জীব তার খাদ্যের জন্য পরিবেশের ওপর নির্ভরশীল।
(রর) জীব তার বেঁচে থাকার জন্য পরিবেশের ওপর নির্ভরশীল।
(ঘ) খাদ্যজাল কী?
উত্তর: কোনো বাস্তুতন্ত্রে শক্তি বা পুষ্টি প্রবাহ একটিমাত্র খাদ্য শৃঙ্খলের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত না হয়ে আন্তঃসম্পর্কযুক্ত একাধিক খাদ্য শৃঙ্খলের মাধ্যমে প্রবাহিত হয়ে যে জালিকা তৈরি করে তাকে খাদ্য জাল বলে।
(ঙ) উদ্ভিদ খাদ্য তৈরিতে কোন্ গ্যাস ব্যবহার করে?
উত্তর: উদ্ভিদ খাদ্য তৈরিতে কার্বন-ডাই-অক্সাইড ব্যবহার করে এবং অক্সিজেন ত্যাগ করে।
(চ) প্রাণী কিভাবে উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল?
উত্তর: প্রাণী শ্বাস-প্রশ্বাসের জন্য, খাদ্যের  জন্য, আশ্রয়ের জন্য উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল।
(ছ) সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়া কী?
উত্তর: সালোক সংশ্লেষণ প্রক্রিয়া হলো এমন একটি জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে সবুজ উদ্ভিদ খাদ্য তৈরি করে।
(জ) উদ্ভিদের বেঁচে থাকার জন্য একান্ত প্রয়োজন কোন্টি?
উত্তর: উদ্ভিদের বেঁচে থাকার জন্য একান্ত প্রয়োজন সূর্যের আলো, বায়ুর কার্বন-ডাই-অক্সাইড ও পানি।
(ঝ) পরাগায়নের ফলে উদ্ভিদের কী সৃষ্টি হয়?
উত্তর: পরাগায়নের ফলে উদ্ভিদের বীজ সৃষ্টি হয়।
(ঞ) বাস্তুসংস্থান কী?
উত্তর: কোনো স্থানের সকল জীব ও জড় এবং তাদের মধ্যকার ক্রিয়াই হলো ওই স্থানের বাস্তুসংস্থান।
(ট) উদ্ভিদ কিভাবে প্রাণীর ওপর নির্ভরশীল এ সম্পর্কে ৪টি বাক্য লিখ।
উত্তর: উদ্ভিদ যেভাবে প্রাণীর ওপর নির্ভরশীল এ সম্পর্কে ৪টি বাক্য নিচে দেয়া হলো-
(র) খাদ্য তৈরি : উদ্ভিদ খাদ্য তৈরির জন্য প্রাণীর ত্যাগ করা কার্বন-ডাই-অক্সাইড ব্যবহার করে।
(রর) পুষ্টি ও বৃদ্ধি : প্রাণীর মৃতদেহ পচে প্রাকৃতিক সারে পরিণত হয়। এ সার পুষ্টি হিসেবে ব্যবহার করে উদ্ভিদ বেড়ে ওঠে।
(ররর) পরাগায়ন : পাখি, মৌমাছি ইত্যাদি প্রাণী উদ্ভিদের পরাগায়নে সাহায্য করে।
(রা) বীজের বিস্তরণ : বিভিন্ন প্রাণীর মাধ্যমে মাতৃউদ্ভিদ থেকে  বিভিন্ন স্থানে বীজ ছড়িয়ে পড়ে।
(ঠ) জীব বেঁচে থাকার জন্য জড়বস্তুর ওপর নির্ভরশীল-এ সম্পর্কে ৬টি বাক্য  লিখ।
উত্তর: জীব বেঁচে থাকার জন্য জড়বস্তুর ওপর নির্ভরশীলÑএ সম্পর্কে ৬টি বাক্য নিচে দেয়া হলো-
(র) সকল জীবের বেঁচে থাকার জন্য বায়ু, পানি ও খাদ্য প্রয়োজন।
(রর) জীবের শ্বাসকার্য সম্পাদনের প্রক্রিয়াটি বায়ুর ওপর নির্ভরশীল।
(ররর) মাটি এবং পানি বিভিন্ন জীবের বাসস্থান।
(রা) সূর্যের আলো ব্যবহার করে অনেক জীব নিজের খাদ্য নিজেই তৈরি করে।
(া) ফসল ফলানো ও বাসস্থান তৈরির জন্য জীবের মাটি প্রয়োজন।
(ার) জীবনযাপনের জন্য বাসস্থান, আসবাবপত্র, পোশাক ও যন্ত্রপাতি  তৈরিতে জীব জড়বস্তুর ওপর নির্ভরশীল।
ড) খাদ্য শৃঙ্খল ও খাদ্যজাল কি? ব্যাঙ, সাপ, ঘাসফড়িং ও ঘাস দিয়ে সঠিক খাদ্যশৃঙ্খল তৈরি কর। খাদ্য শৃঙ্খলটির সর্বোচ্চ খাদক কোন্টি?
উত্তর: বাস্তুসংস্থানে উদ্ভিদ থেকে প্রাণীতে শক্তি প্রবাহের ধারাবাহিক প্রক্রিয়াকে খাদ্য শৃঙ্খল বলে।
যে কোনো বাস্তুসংস্থানে অনেকগুলো খাদ্য শৃঙ্খলের একত্রিত জালকে খাদ্যজাল বলে।
ব্যাঙ, সাপ, ঘাসফড়িং ও ঘাসের সঠিক খাদ্যশৃঙ্খল নি¤œরূপ-
ঘাস   ঘাসফড়িং    ব্যাঙ    সাপ
উপরিউক্ত খাদ্য শৃঙ্খলটির সর্বোচ্চ খাদক হলো সাপ।
(ঢ) বাঘ, ঘাস, সূর্য, হরিণকে নিয়ে গঠিত খাদ্য শৃঙ্খলটি ব্যাখ্যা কর।
উত্তর: বাঘ, ঘাস, সূর্য ও হরিণকে নিয়ে গঠিত খাদ্য শৃঙ্খলটি নি¤œরূপ-
সূর্য   ঘাস   হরিণ   বাঘ
এক্ষেত্রে, ঘাস সূর্যের আলোর উপস্থিতিতে নিজের খাদ্য নিজেই তৈরি করে। হরিণ সেই ঘাস খেয়ে বেঁচে থাকে এবং বাঘ হরিণকে খেয়ে বেঁচে থাকে। এভাবেই শক্তি সূর্য থেকে ঘাসে, ঘাস থেকে হরিণে এবং হরিণ থেকে বাঘে প্রবাহিত হয়।

×