সোমবার ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

উবাচ

বিপদে ফেলেছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একটি মহল দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। অতিসম্প্রতি দলীয় এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের যে উস্কানি দেয়া হচ্ছে তাতে ভারতের মুসলমানদের বিপদে ফেলেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কুমিল্লা থেকে দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে তা-বের সূচনা করে ষড়যন্ত্রকারীরা। এই তান্ডব নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, হাতিয়ার বুড়িরচর, চট্টগ্রাম ও রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ের ওপর চালানো হয়েছে। কয়েকটি জেলে পরিবারের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মন্দিরে হামলা, প্রতিমা ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা- ঠিক ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতা গ্রহণের পর হিন্দুদের ওপর যে নির্যাতন চালিয়েছিল তারই পুনরাবৃত্তি ঘটছে। তাই এই ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিহত করতে হবে।

ঘাড়ে চেপেছে!

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সরকারের সমালোচনা ছাড়া যেন কোন কথাই বলতে পারছেন না বিএনপির নেতারা। বিশেষ করে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রতিদিনই সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করেন। সম্প্রতি দলীয় এক অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, সরকার আমাদের ঘাড়ে চেপেছে। তবে কিভাবে সরকার তাদের ঘাড়ে চেপে বসেছে তা তিনি বলেননি।

দেশে এখন শ্বাসরুদ্ধকর পরিবেশ বিরাজ করছে অভিযোগ করে ফখরুল বলেন, এমন বাংলাদেশ আমরা চাইনি। আমরা স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধ করেছিলাম। কিন্তু দেশ এখন কিভাবে চলছে! দুর্ভাগ্য আমাদের, সরকার আমাদের ঘাড়ে চেপে বসে আছে। দেশে গণতন্ত্র নেই। নেই আইনের শাসন ও ভোটের অধিকার।

ষড়যন্ত্র চলছে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী ঐক্যজোটের (একাংশ) মহাসচিব মিছবাহুর রহমান চৌধুরী। সম্প্রতি জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি বলেন, একদল কুলাঙ্গার দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার জন্য পূজামন্ডপে ‘কোরান অবমাননা’ করেছে। যারা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়, তারাই এই ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছে।

মিছবাহুর রহমান চৌধুরী বলেন, ষড়যন্ত্রকারীদের কারণে দেশের তরুণ সমাজের একটি অংশ বিভ্রান্ত ও বিপথগামী। ধর্মের স্লোগান দিয়ে অধর্মের পথ অবলম্বন করছে। এর জন্য দায়ী ধর্মের অপব্যাখ্যাকারীরা। উগ্রবাদ, অমানবিকতা, সাম্প্রদায়িকতা এদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করেছে। কান্ডজ্ঞানহীন কর্মকান্ডে লিপ্ত থেকে এরা ধ্বংসের পথে পা বাড়িয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ: