বৃহস্পতিবার ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

শেয়ারবাজারে আতঙ্ক ধরানো পতন ॥ ঠিক যেন ফিরছে ২০১০

শেয়ারবাজারে আতঙ্ক ধরানো পতন ॥ ঠিক যেন ফিরছে ২০১০

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারীদের মনে আতঙ্ক ধরানোর মতো পতনের মধ্য দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। শেয়ার বিক্রির চাপে এক পর্যায়ে বেশিরভাগ কোম্পানির ক্রেতা পাওয়া যাচ্ছিল না। দিনশেষে প্রধান শেয়ারবাজারে মাত্র ৩৩টি কোম্পানির দর বেড়েছে। উল্টো কমেছে ৩২৪টি কোম্পানির দর।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা গেছে, গত কয়েকদিনের মতো সোমবারও সূচকের ইতিবাচক প্রবণতা দিয়ে লেনদেন শুরু হয়েছিল। কিন্ত বিনিয়োগকারীদের আশঙ্কা সত্যি করে কিছুক্ষণ পরেই শেয়ারবাজারে ফিরে আসে সেই ভয়ঙ্কর বাস্তবতা। সোমবারের পতন দেখে মনে হচ্ছিল ঠিক এক দশক আগে ২০১০ সালের শেয়ারবাজারের পরিস্থিতি। বিনিয়োগকারীদের পোর্টফলিওতে যেন হঠাৎ করেই টাকা হাওয়া হয়ে যাচ্ছিল।

শেয়ার বিক্রির চাপে সোমবারও বড়পতন হয়েছে। এই নিয়ে টানা ছয় কার্যদিবস পতন হয়েছে শেয়ারবাজারে। এই ছয় কার্যদিবসে ২৭০ পয়েন্ট সূচক কমেছে। এতে করে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে একপ্রকার অস্থিরতা বিরাজ করছে।

আহমদ রফিক নামের এক বিনিয়োগকারী বলেন, শেয়ারবাজার ভালোর দিকেই যাচ্ছিল। তবে হঠাৎ করে আবার পতন ধারায় চলে যাচ্ছে। এতে করে আমার মতো স্বল্প পুঁজির বিনিয়োগকারীদের মাঝে এখন আবার অস্থিরতা বিরাজ করছে। বিভিন্ন সময় আমাদের এই বাজারে নিরাপদ বিনিয়োগের আশ্বাস দেয়া হলেও তা মূলত লোক দেখানো মনে হচ্ছে। এছাড়া নানা দেশে বিএসইসির রোড শো কোন কাজে আসছে না।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮৯.১৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে সাত হাজার ৯৭.২৭ পয়েন্টে। ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২১.১৪ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২৬.৫৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে এক হাজার ৫২৫.১৭ পয়েন্টে এবং দুই হাজার ৬৭৮.৫৫ পয়েন্টে।

ডিএসইতে এক হাজার ৩৯৩ কোটি ৮৩ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ২৬১ কোটি ৫৪ লাখ টাকা কম। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৬৫৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকার।

ডিএসইতে ৩৭৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৩৩টির বা ৮.৮২ শতাংশের, শেয়ার দর কমেছে ৩২৪টির বা ৮৬.৬৩ শতাংশের এবং ১৭টির বা ৪.৬৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ:
গণমুখী প্রশাসন ॥ স্বাধীনতার ৫০ বছরে বড় অর্জন         ছাত্রদের কাজ লেখাপড়া, রাস্তায় নেমে যান ভাংচুর নয়         উন্নয়নে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ         ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্বের ভূমিকায় থাকবে         ১১ খাতে বিপুল বিনিয়োগ আসার সম্ভাবনা         ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তিতে বদলে গেছে পাহাড়         রামপুরায় ছাত্র বিক্ষোভ, মতিঝিলে গাড়ি ভাংচুর         দেশের প্রথম বর্জ্য বিদ্যুত কেন্দ্র অবশেষে বাস্তবায়ন হচ্ছে         বাল্যবিয়ে রোধে কাজীদের সচেতন করতে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে         হত্যা মিশনে ব্যবহৃত গুলি-অস্ত্র উদ্ধার         শ্রদ্ধা ভালবাসায় জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের চিরবিদায়         সুপ্রীমকোর্টে শারীরিক উপস্থিতিতে বিচার কাজ শুরু         খালেদা জিয়াকে স্তব্ধ করে দিতে চায় সরকার ॥ ফখরুল         মুক্তিপণের টাকা আদায় হচ্ছিল মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে         সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে লাল সবুজের মহোৎসবে মুখরিত হাতিরঝিল         ৯০ কার্যদিবসে সম্প্রীতি বিনষ্টের মামলা নিষ্পত্তি করতে হবে         এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষা উপলক্ষে যে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ডিএমপি         আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে ব্যবস্থা নেবো : অর্থমন্ত্রী         হৃদরোগ ঝুঁকি হ্রাসে সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় আরও ২ জনের মৃত্যু