বৃহস্পতিবার ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ২৪ জুন ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

৩ লাখ টন ডালের উৎপাদন বাড়াতে ১৬৮ কোটি টাকার প্রকল্প

৩ লাখ টন ডালের উৎপাদন বাড়াতে ১৬৮ কোটি টাকার প্রকল্প

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশে আমিষের চাহিদা পূরণে বড় একটি ভূমিকা রাখে বিভিন্ন ধরনের ডাল। এরই মধ্যে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) সাত ধরনের ডালের ৪২টি উন্নত জাত এবং ৪১টি উন্নত চাষাবাদ প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে। কিন্তু দেশের ডাল আবাদের অন্যতম এলাকা ফরিদপুর থেকে শুরু করে বরিশাল পর্যন্ত এলাকায় এখনো কৃষকরা সনাতন পদ্ধতিতে প্রচলিত জাতের ডাল আবাদ করছেন। ফলে প্রত্যাশিত মাত্রায় আসছে না ফলন, বিপুল পরিমাণ ডাল আমদানি করতে হচ্ছে।

আবার দক্ষিনাঞ্চলের জমিগুলোতে লবণাক্ততা ও জলাবদ্ধতা এখন নিত্য সমস্যা। জমিতে এই দুই সমস্যা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে। ফলে এসব এলাকায় ডালের আবাদ একদিকে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, অন্যদিকে সম্প্রসারিত হতে পারছে না। এ পরিস্থিতিতে গবেষণার মাধ্যমে জলবায়ু সহিষ্ণু ডালের জাত উদ্ভাবনের পাশাপাশি লবণাক্ত ও জলাবদ্ধতায় আক্রান্ত জমিতে ডাল আবাদের জন্য লাগসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনের উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। আর এই উদ্যোগের আওতাতেই মাদারীপুরের আঞ্চলিক ডাল গবেষণাকেন্দ্রের সক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে। এর আওতায় একটি উন্নত মাসের গবেষণাগার স্থাপনের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশন ও কৃষি মন্ত্রণালয় সূত্র বলছে, বৃহত্তর বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলে আবাদের উপযোগী উচ্চ ফলনশীল জাত এবং লাগসই উৎপাদন প্রযুক্তি উদ্ভাবন, প্রকল্প এলাকার অনাবাদি ও একফসলি জমিতে ডাল আবাদের মাধ্যমে ডালের উৎপাদন বাড়ানো এই প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য। এছাড়া বারি উদ্ভাবিত ডালের উন্নত জাত ও প্রযুক্তিগুলো কৃষকদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতেও প্রকল্পটি ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। ‘আঞ্চলিক ডাল গবেষণাকেন্দ্র, মাদারীপুরের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বৃহত্তর বরিশাল, ফরিদপুর অঞ্চলে ডালের উৎপাদন’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬৮ কোটি টাকা।

কৃষি মন্ত্রণালয় বলছে, সুষম খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণে ডাল একটি গুরুত্বপূর্ণ ফসল। বাংলাদেশে বর্তমানে ডালের মোট চাহিদা প্রায় ২৬ দশমিক ৫ লাখ মেট্রিক টন হলেও উৎপাদন হয় প্রায় ৯ দশমিক ৩৮ লাখ মেট্রিক টন। ফলে প্রতিবছর প্রায় ১৭ লাখ মেট্রিক টনেরও বেশি ডাল আমদানি করতে হয়।

এই প্রকল্পের আওতায় দেশে ডালের উৎপাদন সাড়ে ৯ লাখ মেট্রিন টন থেকে সাড়ে ১২ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এই প্রকল্পটির আওতায় বৃহত্তর বরিশাল ও ফরিদপুর অঞ্চলের উপযোগী জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা গেলে ডালের আবাদ বাড়বে। এটি অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেও ভূমিকা রাখবে।

মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, দেশে বৃহত্তর ফরিদপুর ও বরিশাল অঞ্চল ডাল ফসলের অন্যতম উৎপাদন এলাকা। দেশের মোট ডাল উৎপাদনের ৬০ শতাংশ মুগ, ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ খেসারি, ১৫ থেকে ২০ শতাংশ মসুর এবং সার্বিকভাবে প্রায় অর্ধেক ডাল এই অঞ্চলেই উৎপাদিত হয়। কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের কারণে এই অঞ্চলে জলাবদ্ধতা ও লবণাক্ততা বাড়ছে। এর সঙ্গে খাপ খাওয়াতে না পেরে ডালের আবাদ কমছে। এ পরিস্থিতিতে ডালের আবাদ বাড়াতে হলে জলবায়ু সহিষ্ণু জাত উদ্ভাবনের পাশাপাশি প্রয়োজন আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার।

এ প্রেক্ষাপটেই ডালের তিনটি উচ্চ ফলনশীল জাত ও ১৫টি লাগসই উৎপাদন প্রযুক্তি উদ্ভাবন, দেশ-বিদেশ থেকে ডালের ৭৫০টি জার্মপ্লাজম সংগ্রহ এবং ডালের প্রায় ১৫০ মেট্রিক টন বীজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কৃষি মন্ত্রণালয় প্রকল্পটি প্রস্তাব করেছে। এর আওতায় নতুন জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা গেলে ফরিদপুর-বরিশাল অঞ্চলে ১১টি জেলার ৫০টি উপজেলায় ১৫০০টি মাঠ পর্যায়ে সেগুলোর উপযোগিতা যাচাই করা হবে।

জানা যায়, কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পর গত বছরের ৮ জানুয়ারি প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় কিছু সুপারিশ দেওয়া হয়েছিল। সেগুলো প্রতিপালন করায় প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়েছে। অনুমোদন পেলে চলতি বছর শুরু হয়ে ২০২৫ সালের ডিসেম্বরে মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএআরআই)।

পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য রমেন্দ্রনাথ বিশ্বাস প্রকল্পটি নিয়ে পরিকল্পনা কমিশনে ইতিবাচক মতামত দিয়েছেন। তিনি বলেন, এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা গেলে প্রতিকূল পরিবেশ সহিষ্ণু, স্বল্প মেয়াদি, উচ্চ ফলনশীল ও জলবায়ু অভিযোজনশীল ডাল বীজ এবং ডাল আবাদের আধুনিক কিছু প্রযুক্তি উদ্ভাবন করা সম্ভব হতে পারে। এতে করে ডালের আবাদ সম্প্রসারণ করা যাবে। ফলে ডালের উৎপাদন ও ফলনের হার বাড়বে।

###

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা : গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৮১         যেন সার্কাসের ক্লাউনরা বক্তব্য রাখছেন, বিএনপিকে কাদের         দেশে চীনের নতুন এক টিকার মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অনুমতি         জেনারেল র‌্যাংক ব্যাজ পরানো হলো নতুন সেনাপ্রধানকে         নারী ও শিশু পাচারে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না ॥ বিজিবি মহাপরিচালক         বাংলাদেশে করোনা টিকা উৎপাদনে আন্তর্জাতিক সহায়তা চাইলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী         কৃষি মন্ত্রণালয়ের এডিপি বাস্তবায়ন ৭৬ শতাংশ         ‘ওভারনাইট বান্দরবান পাঠিয়ে দেব’ বিজ্ঞাপন বন্ধের নির্দেশ         খুলনা বিভাগে ২৪ ঘন্টায় আরও ২০ জনের প্রাণ ঝড়লো         চুয়াডাঙ্গায় শতভাগ করোনা শনাক্ত, মৃত্যু দুই জনের         রমনা বটমূলে বোমা হামলা ॥ ডেথ রেফারেন্স ও আপিল শুনানি ২৪ অক্টোবর         রাজশাহীতে করোনায় একদিনে সর্বোচ্চ আরও ১৮ জনের মৃত্যুর রেকর্ড         ভারতে ফের করোনাভাইরাসে দৈনিক শনাক্ত ও মৃত্যু বাড়ল         কঠোর লকডাউনেও দিনাজপুরে করোনায় মৃত্যু বাড়ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৪৮.৭৮         আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে তিন ম্যাচের সিরিজ চায় কোহলি         সব বিভাগে বৃষ্টিপাত হবার সম্ভাবনা         ‘স্ট্রবেরি মুন’ দেখা যাবে আজ         ঝিনাইদহে করোনায় ৩ জনের মৃত্যু, নতুন করে আক্রান্ত ৭৩         তিন পার্বত্য জেলায় ১৪২ প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণের সুপরিশ         ঢাকার সব বার ও ক্লাবে নিষিদ্ধ হচ্ছেন পরীমনি