রবিবার ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বিদেশে ১৩৭৭ বাংলাদেশীর করোনায় মৃত্যু হয়েছে

  • মধ্যপ্রাচ্যে বেশি

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ প্রবাসী বাংলাদেশী বিশ্বের প্রায় ১৬৮ দেশে অবস্থান করছেন। এসব দেশের প্রায় সবই এখন কম-বেশি করোনা আক্রান্ত। এরইমধ্যে অনেকেই আক্রান্ত হয়েছেন। সবচেয়ে বেশি সিঙ্গাপুরে। মৃত্যুও হয়েছে প্রায় এক হাজার ৩৭৭ জনের। এরমধ্যে আবার সবচেয়ে বেশি মধ্যপ্রাচ্যে। খবর বাংলানিউজের।

ব্র্যাকের তথ্য অনুযায়ী, করোনার কারণে বিদেশের মাটিতে মোট ১৯ দেশে অন্তত এক হাজার ৩৭৭ জন বাংলাদেশী প্রাণ হারিয়েছেন। এছাড়া বিভিন্ন দেশে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৭০ হাজার। জার্মান ডয়েচে ভেলে জানিয়েছে, বাংলাদেশের অধিকাংশ প্রবাসী রয়েছেন মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে। সেখানকার ছয় দেশেই অন্তত ৭৫৩ বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে আবার সৌদি আরবে মোট মৃত্যুর ২৫ ভাগই বাংলাদেশীদের। মধ্যপ্রাচ্যের এই দেশটিতে মোট সোয়া দুই লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত। গত রবিবার পর্যন্ত মারা গেছেন দুই হাজার এক শ’ জন। এরমধ্যে ৫২১ জনই বাংলাদেশী। অর্থাৎ সৌদি আরবে করোনায় মৃতদের এক চতুর্থাংশই প্রবাসী বাংলাদেশী।

ব্র্যাকের তথ্য অনুযায়ী, সৌদি আরবের পর করোনায় সবচেয়ে বেশি প্রবাসী বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। উপসাগরীয় দেশটিতে করোনায় মৃত্যুবরণকারী ৩২৮ জনের ১২২ জনই বাংলাদেশী নাগরিক। কুয়েতে চার হাজার বাংলাদেশী আক্রান্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত ৬০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। দেশটিতে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মোট ৫২ হাজার ৮০০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন ৩৮২ জন। ওমানে করোনায় এ পর্যন্ত ২০ বাংলাদেশী মারা গেছেন। কাতারে মারা গেছেন ১৮ জন। বাহরাইনে আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার বাংলাদেশী। এরমধ্যে মারা গেছেন নয়জন। ব্রিটেনে এ পর্যন্ত ৩০৫ জন বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে। এখন পর্যন্ত প্রবাসে সবচেয়ে বেশি ২৩ হাজার বাংলাদেশী আক্রান্ত হয়েছেন সিঙ্গাপুরে। তবে সেখানে তারা সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা পেয়েছেন। দেশটিতে বাংলাদেশের দুইজনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। তবে প্রায় এক হাজার আক্রান্ত হলেও মালদ্বীপে কোন বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়নি। এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে বাংলাদেশীরাও ব্যাপকভাবে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ২৭২ জন। যুক্তরাষ্ট্রে ১৫ হাজারের বেশি বাংলাদেশী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

করোনাভাইরাসে ইউরোপের মধ্যে প্রথম দিকে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ইতালি। এরমধ্যে দেশটিতে প্রায় ৩০০ বাংলাদেশী আক্রান্ত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে ১৪ জনের। এছাড়া গত বুধবার পর্যন্ত কানাডায় নয়জন, সুইডেনে আটজন, ফ্রান্সে সাতজন, স্পেনে পাঁচজন বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়েছে করোনায়। পাশাপাশি ভারত, মালদ্বীপ, পর্তুগাল, কেনিয়া, লিবিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা ও গাম্বিয়ায় একজন করে বাংলাদেশী মারা গেছেন বলে খবর রয়েছে। তবে করোনার আঁতুড়ঘর চীনে প্রবাসী বাংলাদেশীরা রক্ষা পেয়েছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে কল কারখানা নয়         তিন বন্দর দিয়ে ভারতে আটকে থাকা পেঁয়াজ আসা শুরু         দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে ॥ কাদের         কওমি বড় হুজুর আল্লামা শফীকে চিরবিদায়         ওষুধ খাতের ব্যবসা রমরমা         করোনার নমুনা পরীক্ষা ১৮ লাখ ছাড়িয়েছে         করোনা সংক্রমণ বাড়ছে ॥ ফের লকডাউনে যাচ্ছে ইউরোপ         বিশেষ মহলের ইন্ধন-ভাসানচরে যাবে না রোহিঙ্গারা         তুলা উৎপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার         দগ্ধ আরও দুজনের মৃত্যু, তিতাসের গ্রেফতার ৮ জন দুদিনের রিমান্ডে         শিক্ষার ক্ষতি পোষাতে বিশেষ প্রকল্প আগামী মাস থেকেই ॥ করোনায় সব লণ্ডভণ্ড         আর কোন জিকে শামীম নয় ॥ গণপূর্তের দৃশ্যপট পাল্টেছে         ব্যক্তিগত ও পারিবারিক দ্বন্দ্বই অধিকাংশ খুনের কারণ         এ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার উন্নতি         বর্তমান সরকারের আমলে রেলপথে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : রেলপথমন্ত্রী         ইউএনও ওয়াহিদা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বদলী, স্বামী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে         সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল পরিচালকের রুম ঘেরাও         চিরনিদ্রায় শায়িত হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী         সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছি ॥ মির্জা ফখরুল         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে একদিনে ১২৪৭ জনের মৃত্যু