সোমবার ৬ আশ্বিন ১৪২৭, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

করোনায় ২১ দিনে ৮৫ ভাগ আক্রান্ত

করোনায় ২১ দিনে ৮৫ ভাগ আক্রান্ত
  • ১৮ দিনে শতাধিক মৃত্যু

রাজন ভট্টাচার্য ॥ দেশে প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা ১৩ হাজার ১৩৪ জন। গত আট মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর, গত দুই মাসে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে। অথচ ৬০ দিনের মধ্যে ২১ দিনেই আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ২৬৬ রোগী। গত ১৮ এপ্রিল থেকে আট মে পর্যন্ত এই পরিমাণ রোগী শনাক্ত হয়েছে। হিসাবে দেখা গেছে, সর্বশেষ ২১ দিনে আক্রান্তের হার মোট আক্রান্তের ৮৫ ভাগের বেশি। শুরু থেকে ৩৯ দিন পর্যন্ত আক্রান্তের হার ছিল ১৪ ভাগের কিছু বেশি।

এখন পর্যন্ত করোনার থাবা কেড়ে নিয়েছে ২০৬ জনের প্রাণ। স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, দুই মাসের মধ্যে ১৮ দিনে মারা গেছেন এক শ’র বেশি মানুষ। বাদ বাকি মানুষের মৃত্যু হয়েছে ৪২ দিনে। আক্রান্তের দিক থেকে পুরুষের সংখ্যা ৬৮ ভাগ। নারী ৩২ ভাগ। আর মৃত্যুর দিক বিবেচনায় ৭৩ ভাগ পুরুষ, নারী ২৭ ভাগ। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় অর্ধেকের বেশি। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত ডিসেম্বর থেকে চীনে এই ভাইরাসের সূত্রপাত। এরপর আস্তে আস্তে বিভিন্ন দেশ সংক্রমিত হতে থাকে। প্রথমে সংক্রমণ শুরুর পর কিছুদিন সময় লাগে এর বিস্তার ঘটতে। মূলত তিন থেকে চারটি ধাপে এর বিস্তার ঘটে। যখন মাঝামাঝি ধাপে ছাড়ায় তখন বলে পাবলিক ট্রান্সমিশন। মূলত আমাদের দেশে এখন চতুর্থ ধাপ অর্থাৎ সর্বোচ্চ পর্যায়ে সংক্রমণ চলছে। তাই রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল।

তাই বর্তমান সময়ের সঙ্গে শুরুর দিক বিবেচনা করলে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কোনটাই মিলবে না। তবে ইতালি, চীন, ফ্যান্সসহ অন্যান্য দেশে দেখা গেছে সর্বোচ্চ পর্যায়ে সংক্রমণ শুরু হলে তা কিছুদিন থাকে। তারপর আস্তে আস্তে আক্রান্ত ও মৃত্যুহার কমতে থাকে।

১৯ দিনে শতাধিক মৃত্যু ॥ করোনায় আক্রান্তের হার যতই বাড়তে থাকে তেমনই বাড়তে থাকে মৃত্যুর সংখ্যাও। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, রোগী শনাক্ত হওয়ার পর ২০ এপ্রিল পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১০১ জন। অর্থাৎ ২০ এপ্রিল পর্যন্ত ৪২ দিনে মারা যায় ১০১ জন মানুষ। এরপর আট মে শুক্রবার পর্যন্ত মারা গেছে ১০৫ জন। অর্থাৎ গেল ১৮ দিনেই মৃত্যুর সংখ্যা বেশি।

২১ দিনে আক্রান্ত ১১ হাজারের বেশি ॥ আট মার্চ থেকে করোনা রোগী ধরা পরলেও ১৮ এপ্রিল থেকে প্রতিদিন তিন শতাধিক রোগী শনাক্ত হচ্ছে। আস্তে আস্তে রোগী সংখ্যা বেড়ে এখন প্রতিদিন সাত শতাধিক শনাক্ত হওয়ার খবর আসছে। গত ১৮ এপ্রিল রোগীর সংখ্যা ছিল ৩০৬ জন। ১৯ এপ্রিল ৩১২, ২০ এপ্রিল ৪৯২, ২১ এপ্রিল ৪৩৪, ২২ এপ্রিল ৩৯০, ২৩ এপ্রিল ৪১৪, ২৪ এপ্রিল ৫০৩, ২৫ এপ্রিল ৩০৯, ২৬ এপ্রিল ৪১৮, ২৭ এপ্রিল ৪৯৭, ২৮ এপ্রিল ৫৪৯ জন।

২৯ এপ্রিল থেকে রোগীর সংখ্যা ছয় শতাধিক ছাড়িয়ে যায়। এ দিন প্রথম ছয় শতাধিক ছাড়িয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৬৪১ জনে। ৩০ এপ্রিল কিছুটা কমে ৫৬৪ হলেও এক মে ৫৭১ জন আক্রান্ত হয়।

দুই মে ৫৫২, তিন মে ৬৬৫, চার মে ৬৮৮, পাঁচ মে ৭৮৬, ছয় মে ৭৯০, সাত মে ৭০৬ ও আট মে ৭০৯ জন আক্রান্ত হয়। অর্থাৎ গেল চারদিনে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন সাত শ’ অতিক্রম করছে।

মৃত্যু ও আক্রান্তে পুরুষরাই এগিয়ে ॥ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশেও মৃত্যু ও আক্রান্তের দিক বিবেচনায় পুরুষরাই বেশি। প্রশ্ন হলো কেন পুরুষরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে, নারীরা নয়?

বিশেষজ্ঞদের কারও কারও মতে, পুরুষদের মধ্যে ধূমপান ও এ্যালকোহলের গ্রহণের হার বেশি বলে এমনটি হতে পারে। আবার কারও কারও মতে, পুরুষদের মধ্যে হৃদরোগ ও ডায়াবেটিসের হার বেশি হওয়ায় তারা নারীদের তুলনায় বেশি করোনা ঝুঁকিতে আছেন।

কেন করোনাভাইরাস নারীদের তুলনায় পুরুষদের জন্য বেশি ভয়ঙ্কর শিরোনামে যুক্তরাষ্ট্রের লস এ্যাঞ্জেলেস টাইমসের এক প্রতিবেদনে গত ২১ মার্চ বলা হয়েছে, ‘ইতালির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে ১২ মার্চ পর্যন্ত পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি নারীদের তুলনায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে যে সংখ্যক পুরুষ রয়েছেন তাদের মধ্যে ৭৫ শতাংশর মারা যাওয়ার ঝুঁকি বেশি। একই ধরনের পরিসংখ্যান চীন, দক্ষিণ কোরিয়াসহ বিভিন্ন দেশে দেখা যাচ্ছে বলেও প্রতিবেদনটিতে উল্লেখ করা হয়েছে

লস এ্যাঞ্জেলেস টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ওকলাহোমা মেডিক্যাল রিসার্চের ইমিউনোলজিস্ট সুসান কোভাতস বলেছেন, গবেষকরা প্রমাণের জন্য কোভিড-১৯’র রেকর্ড দেখছেন। পুরুষের তুলনায় নারীর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এ ক্ষেত্রে বেশি কার্যকর হতে পারে। যদি এই ‘সহজাত’ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা পুরুষের তুলনায় নারীদের মধ্যে বেশি শক্তিশালী হয়ে থাকে তাহলে সংক্রমিত নারীরা ভাইরাসের ক্ষতিকর প্রভাব কমিয়ে ফেলতে পারেন।

ইউসি ডেভিসের ফুসফুসবিষয়ক গবেষক কেন্ট ই পিঙ্কারটন বলেন, নারীদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা পুরুষদের তুলনায় ভাল কাজ করছে জেনে আমি মোটেই অবাক হইনি। বিবিসিকে এক সাক্ষাতকারে যুক্তরাজ্যের ইস্ট এ্যাঙ্গলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক পল হান্টার বলেন, প্রকৃতিগতভাবেই পুরুষের তুলনায় নারীর রয়েছে ভিন্নমাত্রার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। পুরুষদের তুলনায় নারীদের দেহে ফ্লুর প্রতিরোধক এ্যান্টিবডি বেশি তৈরি হয়। এর অনেক প্রমাণ আমাদের কাছে আছে।

৩২ ভাগ নারী আক্রান্ত ও মৃত্যু ২৭ ভাগ ॥ স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে ৩২ ভাগ নারী, পুরুষ ৬৮ ভাগ। তাদের মধ্যে এক থেকে ১০ বছর বসয়ী তিন ভাগ মানুষ, ১১-২০ বছর আট ভাগ, ২১-৩০ বছর ২৬ ভাগ, ৩১-৪০ বছর ২৪ ভাগ, ৪১ থেকে ৫০ বছর ১৮ ভাগ, ৫১ থেকে ৬০ বছর ১৩ ভাগ। ৬০ বছরের বেশি আট ভাগ।

মৃত্যুর দিক বিবেচনায় নারীর সংখ্যা ২৭ ভাগ, পুরুষ ৭৩ ভাগ। স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, মোট মৃত্যুর মধ্যে ১ থেকে ১০ বছর বয়স দুই ভাগ মানুষের। ১১-২০ বছর বয়সের মৃত্যু না থাকলেও ২১-৩০ বছরের মধ্যে মৃত্যুর সংখ্যা তিনভাগ। ৩১-৪০ বয়সের সাত ভাগ, ৪১-৫০ বয়সের ১৯ ভাগ, ৫১-৬০ বয়সের ২৭ ভাগ ও ৬০ বছরের বেশি ৪২ ভাগ। অর্থাৎ মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে বেশিরভাগ ৬০ বছরের।

শীর্ষ সংবাদ:
প্রণোদনায় গতি ॥ করোনার ধকল কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে অর্থনীতি         শীতে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে, এখন থেকে প্রস্তুতি চাই         অনলাইনে ৩৬ টাকা দরে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি শুরু         তিতাসের বকেয়া সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা উদ্ধারের সুপারিশ         গ্রীষ্মকালে পেঁয়াজ আবাদ করা গেলে ঘাটতি থাকবে না         আবার সংসদের বিশেষ অধিবেশন বসছে         আইনমন্ত্রীর সহায়তায় নবজাতককে ফিরে পেলেন আঞ্জুলা         পাঁচ কোম্পানির পাস্তুরিত দুধ উৎপাদনে বাধা নেই         স্বাস্থ্যের ড্রাইভারের ঢাকায় একাধিক বাড়ি, গাড়ি, শত কোটির মালিক         ইলিশ উৎপাদন আরও বাড়ানোর উদ্যোগ         ইস্পাত কারখানায় গলিত লোহা ছিটকে দগ্ধ পাঁচ শ্রমিক         যোগান বাড়াতে পেঁয়াজের শুল্ক প্রত্যাহার         ব্যাংক যেন ভালোভাবে চলে সেদিকে বিশেষ দৃষ্টি দেওয়ার আহবান প্রধানমন্ত্রীর         ‘বিএনপি নেতাদের কারণেই খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠানোর দাবি ওঠতে পারে’         করোনা ভাইরাসে আরও ২৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪৪         ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণ ॥ আসামি মজনুর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিলেন বাবা         করোনা ভাইরাসমুক্ত হলেন অ্যাটর্নি জেনারেল         দুদকের মামলায় বরখাস্ত ওসি প্রদীপের জামিন নামঞ্জুর         ‘বিএনপির আন্দোলনের তর্জন গর্জনই শোনা যায়, কিন্তু বর্ষণ দেখা যায় না’         সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বাতিল করল বেবিচক