সোমবার ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রবীন্দ্রনাথ আমাদের মধ্যে প্রবাহিত ॥ তপন মাহমুদ

 রবীন্দ্রনাথ আমাদের মধ্যে প্রবাহিত ॥ তপন মাহমুদ

উদয়দিগন্তে শঙ্খ বাজে, মোর চিত্তমাঝে-চিরনূতনেরে দিল ডাক পঁচিশে বৈশাখ। বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সঙ্গীতের কিংবদন্তি কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৮তম জন্মবার্ষিকী আগামীকাল বুধবার। দিনটিকে যথাযথ মর্যাদায় উদ্যাপন করবে বাঙালী জাতি। দিনটির তাৎপর্য নিয়ে কথা হয় রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী তপন মাহমুদের সঙ্গে। যিনি রবীন্দ্রসঙ্গীতের অমিয় ধারায় নিজেকে সিক্ত করার পাশাপাশি শিক্ষার্থীর মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছেন তার সঙ্গীতলব্ধ জ্ঞান।

রবীন্দ্রনাথের জন্মদিনে আপনার অনুভূতি কী?

তপন মাহমুদ : রবীন্দ্রনাথের জন্ম হয়েছিল যদিও ১৫৮ বছর আগে, তথাপি সারা বিশ্বে রবীন্দ্র দর্শন বা চিন্তা-ভাবনা আজও সমভাবে প্রযোজ্য। সে জন্য আমি রবীন্দ্রনাথকে সব সময়ের কবি বলব। তিনি সর্বকালীন সমসাময়িক।

রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন কিসের বারতা নিয়ে আসে?

তপন মাহমুদ : রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন অহিংসা, শান্তি ও সুন্দরের বার্তা নিয়ে আসে। মানুষ যেন সব ভেদাভেদ ও সাম্প্রদায়িকতা দূর করে, একটা শান্তির পৃথিবী গড়তে পারে, বার বার রবীন্দ্রজয়ন্তী আমাদের সে কথাই স্মরণ করিয়ে দেয়।

আমাদের দেশে রবীন্দ্রচর্চা প্রসঙ্গে বলুন।

তপন মাহমুদ : রবীন্দ্রচর্চা ও রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা দুটোই আলাদা। তার পরেও আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে স্বাধীনতা লাভের পর রবীন্দ্রচর্চা এবং রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা সার্বিকভাবে অনেক বেড়েছে। মানের দিক দিয়েও খুব খারাপ না। তবে রবীন্দ্রসঙ্গীত চর্চা আগের তুলনায় এখন পরিমাণে অনেক কিন্তু এর মান আগের মতো দেখা যায় না। কারণ, বর্তমান যুগ হচ্ছে প্রচার সর্বস্ব। আমরা শুধু নিজেকে জাহির করতে আগ্রহী। আমাকে বাদ দিয়ে বলছি না। আমরা শিখে বা না শিখে প্রচার করতে অনেক বেশি ব্যস্ত। শিখে যদি কেউ নিজেকে প্রচার করে সেটা সহনীয়। আত্ম প্রচার কখনও ভাল না। রবীন্দ্রনাথ আত্মপ্রচারকে ঘৃণা করতেন। এখন মিডিয়া অথবা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রভাব বা ইন্টারনেটের যুগে সবাই চায় প্রচাররূপী তারকা হতে। এ কারণে শুধু রবীন্দ্রসঙ্গীতই নয়, সব সঙ্গীত, আমাদের ললিতকলা, সাহিত্য সর্বক্ষেত্রেই একটা নৈরাজ্য বিরাজ করছে। ফলে মানটা কমে যাচ্ছে।

রবীন্দ্রনাথের গানে আমরা কিভাবে সমৃদ্ধ হচ্ছি?

তপন মাহমুদ : রবীন্দ্রনাথের গান হচ্ছে প্রেমের। সে প্রেমের মধ্যে আছে ঈশ্বর, স্বদেশ, প্রকৃতি, মানব ও দেশপ্রেম। যা ভালবেসেই জয় করা যায়।

নতুনরা রবীন্দ্রনাথের গানকে কিভাবে গ্রহণ করছে?

তপন মাহমুদ : যুগের সঙ্গে সঙ্গে পরিবেশনার ঢংও পাল্টায়। এটা আমাদের মেনে নিতে হয়। আমরা আজ থেকে পঁচিশ বছর আগে যেভাবে কথা বলতাম, আজ কিন্তু কথার ধরন পরিবর্তন হয়েছে। এভাবে রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশনার ঢংটাও চেঞ্জ হয়েছে কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে রবীন্দ্রসঙ্গীতকে বিকৃত করে নয়। আমাদের নতুন প্রজন্মের কিছু ছেলে-মেয়ে হয়ত না জেনে অজ্ঞানতাবসত রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে ভুল এক্সপেরিমেন্ট করছে। গানের ক্ষেত্রে ভিডিও সংস্কৃতি চালু হয়েছে। তাতেও গানটা না বুঝে, গানের মর্মার্থ না বুঝে তারা একটা ভিডিও তৈরি করে প্রকাশ করছে। যার সঙ্গে রবীন্দ্রসঙ্গীত যায় না। এটার জন্য দায়ী আমরাও কম নয়। কর্পোরেট পুঁজির প্রয়োজনেই এইভাবে বিকৃত হচ্ছে। তবে একটা আশার কথা আমি এখনও বলব, রবীন্দ্রনাথের জীবদ্দশাতেও রবীন্দ্রসঙ্গীত বিকৃতি হয়েছে এবং রেকর্ডও হয়েছে কিন্তু কোন লাভ হয় নাই। বেঁচে ছিল আদি রবীন্দ্রসঙ্গীত এবং এখনও আছে। এক এক জনের গায়কী হয় এক এক রকম হবে, এতে অন্য রকম শোনায় কিন্তু রবীন্দ্রসঙ্গীতকে বিকৃত করে নয়। আমাদের প্রাতিষ্ঠানিক সুবিধা আছে। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান রবীন্দ্রসঙ্গীতচর্চা শুদ্ধভাবে করে যাচ্ছে। কিছু প্রচার পাব আবার পয়সাও পাব এই আশাও কেউ কেই করছেন, সেটাকে রবীন্দ্রচর্চা বলা চলে না।

রবীন্দ্রনাথের গানকে এগিয়ে নিতে করণীয় কী?

তপন মাহমুদ : রবীন্দ্রনাথের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে যারা কাজ করছেন, তাদের প্রতি অনুরোধ আপনারা আরও এগিয়ে আসেন। আমাদের যুগ শেষ, আমরা এখন পড়ন্ত বেলায় রয়েছি। যারা এখন নবীন বা মধ্য গগনে তাদের উচিত রবীন্দ্রনাথকে অবিকৃত রাখা, আমাদেরই স্বার্থে। রবীন্দ্রনাথ নি:শ্বাসের মতো আমাদের মধ্যে প্রবাহিত। নিশ্বাস বন্ধ হলে যেমন মানুষ বাঁচতে পারে না, রবীন্দ্রনাথকে বাদ দিয়ে আমরা বাঙালী বরে দাবি করতে পারব না। তার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে তার সৃষ্টিকে বাঁচিয়ে রাখা আমাদের সবার উচিত।

-গৌতম পান্ডে

শীর্ষ সংবাদ:
দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে         ব্যাটিং ব্যর্থতায় ম্লান বোলিং সাফল্য         মিল্কি ওয়ের প্রথম ‘পালক’         সরকারী কাস্টডিতে নেই খালেদা, তিনি মুক্ত         ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন ৪ ডিসেম্বর শুরু         ওমিক্রন প্রতিরোধে সতর্ক অবস্থায় সারাদেশ         সাদা পোশাকে দেশে সবার ওপরে মুশফিক         সাগরে জলদস্যুতায় যাবজ্জীবন দন্ড         গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, ৪১ বছর পূর্তির আয়োজন         কুয়েতে পাপুলের সাত বছরের কারাদন্ড         পাকি প্রেম দূরে রাখুন         বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ         ‘মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে ’         তৃতীয় ধাপের সহিংসতাহীন নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে দাবি ইসির         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩         করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের সতর্কবার্তা         পরিবহন সেক্টর কার নিয়ন্ত্রণে : জি এম কাদের         সংসদে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন আনা হচ্ছে শিগগিরই ॥ আইনমন্ত্রী         বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদির ৩০ কোম্পানি         আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে নগর পরিবহন চালু সম্ভব নয় : মেয়র তাপস