মঙ্গলবার ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’

শাহীন রহমান ॥ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি অবশেষে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণিতে’ রূপ নিয়েছে। শনিবার বেলা তিনটায় এটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে উত্তরে বাংলাদেশ ও ভারতের উপকূল বরাবর অগ্রসর হচ্ছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। তারা জানায়, এটি বিভিন্ন উপকূল হয়ে আগামী মাসের ৫ কিংবা ৬ তারিখ ভোরে বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। শক্তি বিচারে এটি একটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। এ কারণে দেশের সমুদ্রবন্দরসমূহকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। এদিকে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণি’ আসছে বাংলাদেশের দেয়া নাম নিয়ে। এশিয়া প্রশান্তমহাসাগরের উপকূলীয় ৮টি দ্বীপরাষ্ট্র নিয়ে গঠিত প্যানেল এই ঘূর্ণিঝড়ের নাম ঠিক করে। সাপের ফণার নাম অনুকরণে এই ঘূর্ণিঝড়ের নাম ‘ফণি’ দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে যে ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হবে সেটার নাম ‘ভাউ’। যা ভারতের দেয়া নাম।

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক জনকণ্ঠকে বলেন, বহু উপকূল ঘুরে এই ঘূর্ণিঝড় দেশের উপকূলে আসবে। আসার পথে মাঝখানে সময় সময় অবস্থান পরিবর্তন করতে পারে। সে সময় এটি আরও শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। তবে তিনি জানান, সম্ভাব্য তিনটি উপকূলে এটি আঘাত হানতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ, তামিলনাড়ু ও উড়িষ্যা উপকূল। দ্বিতীয় সম্ভাব্য আঘাত হানতে পারে বাংলাদেশের উপকূলে। এছাড়া তৃতীয় সম্ভাব্য গতিপথ আরও উত্তর-পূর্ব দিকে সরে গিয়ে মিয়ানমার উপকূলে এটি আঘাত হানতে পারে। অবশ্য এর মেজর গতিপথ বাংলাদেশের উপকূলের দিকে। তবে শ্রীলঙ্কার উপকূলে এর প্রভাবে ঝড়োহাওয়া সৃষ্টি হলেও শ্রীলঙ্কায় আঘাত হানছে না।

তিনি বলেন, শনিবার বেলা তিনটায় ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে গভীর নিম্নচাপটি। এটি এখন উত্তরে অগ্রসর হচ্ছে। এটি আরও সামনে অগ্রসর হয়ে শ্রীলঙ্কার উত্তর- পূর্বাঞ্চল হয়ে তামিলনাড়ু ও অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলে অবস্থান করবে। এরপর সেখান থেকে তার গতিপথ হবে ভারতের উড়িষ্যা উপকূল হয়ে বাংলাদেশের উপকূলের দিকে। তিনি জানান, শ্রীলঙ্কার উত্তর-পূর্ব উপকূল দিয়ে আসার সময় দেশটিতে ঝড়োহাওয়া বয়ে যেতে পারে। তবে ওই উপকূলে এটি আঘাত হানবে না। শক্তি বিচারে এটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় মনে হচ্ছে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, ঘূর্ণিঝড়টি দীর্ঘসময় ধরে সমুদ্রে অবস্থান করবে। এই অবস্থানকালে আরও শক্তি সঞ্চয় করতে পারে। এ কারণে দেশের উপকূলে আগামী ৫ অথবা ৬ তারিখ ভোরে আঘাত হানতে পারে। আবার দেশের উপকূল অতিক্রম করে মিয়ানমারে চলে যেতে পারে। তবে গতিপথ যেদিকই হোক না কেন বাংলাদেশের উপকূলে এর প্রভাব পড়ছে, এটা নিশ্চিত।

শীর্ষ সংবাদ:
শীর্ষে যাবে রফতানিতে ॥ গার্মেন্টস শিল্পে ঈর্ষণীয় সাফল্য         ঢাকা-দিল্লী সম্পর্ক আস্থা ও শ্রদ্ধায় বিস্তৃত         ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার ১১ মাসের মাথায় সুচির কারাদণ্ড         বিশ্বজুড়ে শান্তির বার্তা ছড়িয়ে দিচ্ছেন শেখ হাসিনা         অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের সচিব পদোন্নতি দেয়ার প্রক্রিয়া!         বিজয়ের মাস         জাওয়াদ দুর্বল হয়ে লঘুচাপে রূপ নিয়েছে         ৪৩ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে রিপোর্ট দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ         অরাজকতা সৃষ্টির নীলনক্সা জামায়াতের         আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনের সূচনা ৬ ডিসেম্বর         বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী ছিন্ন করা যাবে না         বন্ড সুবিধার অপব্যবহার, ২৭৫ কোটি ৩২ লাখ টাকার ভ্যাট ফাঁকি         বিএনপি রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে         সমিতি সংগঠন খুলে ফায়দা লুটে নিচ্ছে বিশেষ শ্রেণী         তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে পদত্যাগের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর         দেশে টিকা উৎপাদনে দুই-চার দিনের মধ্যেই চুক্তি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী         সমাপনী পরীক্ষা না থাকলেও বৃত্তি ও সনদের ব্যবস্থা থাকবে : শিক্ষামন্ত্রী         চরফ্যাশনে ট্রলার ডুবি ॥ ২১ মাঝি-মাল্লা নিখোঁজ         পেট্রোবাংলার নতুন চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান         আড়াইহাজারে আগুনে দুই শিশুসহ একই পরিবারের চারজন দগ্ধ