সোমবার ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রাইড শেয়ারিং নিয়ে অভিযোগের পাহাড়

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সিএনজি অটোরিক্সা চালকদের স্বেচ্ছাচারে অতিষ্ঠ ঢাকাবাসীর সামনে স্বস্তির হয়ে দেখা দিলেও কয়েকদিন না যেতেই রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলোর সেবা নিয়েও বিড়ম্বনা ও ভোগান্তিতে পড়ছে সাধারণ মানুষ। কখনও কখনও ঘটছে যৌন হয়রানির মতো গুরুতর অপরাধের ঘটনা।

ব্যস্ত সময়ে বেশি ভাড়া আদায়ে এ্যাপ বাদ দিয়ে চুক্তিতে যাওয়া, গন্তব্যে যেতে চালকদের অনীহা, অনুরোধ গ্রহণ করে যাত্রী না নিয়ে চলে যাওয়া, নিয়ম না মেনে গাড়ি চালানো এবং বেশি ট্রিপের জন্য দ্রুত গাড়ি চালানোর অভিযোগ অনেকটা নিয়মিতই।

রাইড শেয়ারিং সেবা ঢাকায় জনপ্রিয়তা পাওয়ায় এ বিষয়ে একটি নীতিমালা করেছে সরকার। শর্ত ভঙ্গের জন্য প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধসহ দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলা হয়েছে নীতিমালায়। কিন্তু এই সেবায় অহরহ ওই শর্তগুলোর লঙ্ঘন ঘটলেও কোন জবাবদিহির মুখে পড়তে হচ্ছে না কাউকে।

বিষয়টি দেখভালের দায়িত্ব বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ, বিআরটিএর; কিন্তু বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনাকারী কোম্পানিগুলো এখনও তালিকাভুক্ত না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না তারা। বিআরটিএর পরিচালক নুরুল ইসলাম বলেন, রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলো নীতিমালা মানতে বাধ্য। কিন্তু এখনও নিবন্ধন না হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই নেয়া যাচ্ছে না।

রাইড শেয়ারিং নীতিমালার ৩ (খ) ধারা অনুযায়ী যে কোন দূরত্বে যাত্রী বহনে বাধ্যবাধকতা থাকলেও তা মানছেন না অনেক চালক। নিয়মিত উবারের রাইড নেয়া বাড্ডার বাসিন্দা শহীদুল আলম বলেন, মোবাইল এ্যাপে রাইডের অনুরোধ পাঠালে প্রায় অর্ধেক চালকই গন্তব্য জানতে চান। তারা রিকোয়েস্ট এ্যাকসেপ্ট করেই ‘কোথায় যাবেন’ এই প্রশ্ন করেন। আমি রাইড শেয়ারিং নীতিমালা পড়ে দেখেছি, এটা নীতিমালার পরিপন্থী। এছাড়া বেশিরভাগ উবার চালক ম্যাপ ফলো করে ঠিকমতো পিক-আপ পয়েন্টে আসতে জানেন না। আর নির্ধারিত রুট না মেনে অন্য রুটে যান, যে কারণে ভাড়া বেশি আসে- এটাও ঠিক না।

রাইড শেয়ারিং সেবা চালু হয়ে চলাফেরা বেশ সহজ হলেও এর বেশ কিছু সমস্যা আছে বলে মন্তব্য করেন সফটওয়্যার প্রকৌশলী রাশেদুল আলম। রাজধানীর মোহাম্মদপুরের এই বাসিন্দা বলেন, নিয়মিত রাইড নিয়ে প্রায়ই সমস্যায় পড়তে হয় তাকে। তিনি বলেন, রাইড একসেপ্ট করে গন্তব্য জানতে চায়। তার মনমতো না হলে যায় না, ক্যান্সেল করে দেয়। আবার রাইড একসেপ্ট করে না নিয়েই চলে যায়। কোম্পানিগুলোয় অভিযোগ করেও তেমন সাড়া পাওয়া যায় না।

গন্তব্য জানতে চাওয়া এবং অনুরোধ প্রহণের পর তা বাতিল করলে চালকদের শাস্তির আওতায় আনা উচিত বলে মনে করেন গুলশানের একটি পোশাক রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আশা পাল। তিনি বলেন, প্রায়ই এ ধরনের অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয় তাকে। তিনি বলেন, আমি গত তিন মাসে ৬০টির মতো রাইড নিয়েছি। কিন্তু বেশিরভাগ চালকই গন্তব্য জিজ্ঞেস করে। তাদের পছন্দমতো হলে যায়, নইলে ক্যান্সেল করে দেয়। আবার অনেকে আসার কথা বলে আর আসে না। কোন চালক পরপর তিনবার রাইড ক্যান্সেল করলে তার আইডি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বাতিল করে দেয়া উচিত।

নীতিমালার ৩ (ক) ধারায় ট্রাফিক আইন মেনে চলার কথা বলা হলেও অনেক ক্ষেত্রেই তা মানেন না চালকরা। ট্রাফিক আইন না মেনে দ্রুতগতিতে বেপরোয়া চালানোর অভিযোগ করেছেন অনেকেই। পাঠাওয়ের রাইড শেয়ারিংয়ে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর কারণে সম্প্রতি দুর্ঘটনায় পড়েন মিরপুরের শেওড়াপাড়ার বাসিন্দা এক তরুণী, যিনি গায়ে হলুদের ব্যস্ততায় রাস্তার সময় কমাতে এই সেবা নিতে চেয়েছিলেন।

হতাশার সুরে ওই অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তিনি বলেন, অনেক চালক খুব বাজেভাবে বাইক চালায়। গত মাসে আমার গায়ে হলুদের দিন পাঠাওয়ের বাইকে চড়ে বাসায় যাচ্ছিলাম। ড্রাইভার এত জোরে বাইক চালাচ্ছিল যে, রাস্তার অনেকটা অংশ ভাঙ্গা থাকলেও সেটা সে দেখেনি। শেষ মুহূর্তে দেখে ব্রেক কষলে বাইক উল্টে যায়। পিঠে প্রচ- ব্যথা পাই আমি। ড্রাইভার আরও বেশি আঘাত পাওয়ায় গাড়ি নিয়ে আর যেতে পারেনি। সম্প্রতি মহাখালী থেকে বারিধারা যাওয়ার পথে প্রায়ই ফুটপাথে মোটরসাইকেল উঠিয়ে দিচ্ছিলেন চালক জসিম উদ্দিন। এভাবে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, সব সময় এভাবে যান না। রাস্তায় জ্যাম থাকলে ফুটপাথ দিয়ে যাই। নইলে রাস্তায়ই থাকি।

নীতিমালার ৩ (গ) ধারায় যাত্রীদের সঙ্গে সৌজন্যমূলক আচরণের বাধ্যবাধতা আরোপ করা হয়েছে। কিন্তু অর্থ দিয়ে এই সেবা নিতে গিয়ে অসৌজন্যমূলক আচরণ, যৌন হয়রানির অভিযোগও পাওয়া গেছে। সম্প্রতি পাঠাওয়ের একটি মোটরসাইকেলে চড়ার পর এ ধরনের পরিস্থিতিতে পড়তে হয় বলে অভিযোগ করেন মহাখালীর একটি প্রতিষ্ঠানের এক নারী কর্মী। নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, আগারগাঁও থেকে মহাখালীর কর্মস্থলে আসছিলেন তিনি। ওই বাইকের চালক খুবই গা ঘেঁষে বসছিল। সামনে বসার জায়গা থাকলেও সে এটা করছিল, যা খুব বেশি অস্বস্তিকর।

নীতিমালার ক অনুচ্ছেদের ৮ ধারায় বলা হয়েছে, নির্ধারিত স্ট্যান্ড, অনুমোদিত পার্কিংয়ের জায়গা ছাড়া যাত্রী তোলার জন্য সড়কের যেখানে সেখানে গাড়ি রাখা যাবে না। কিন্তু রাজধানীর গুলশান, বনানীবাজার, মহাখালী, কাওরানবাজার, পান্থপথসহ বিভিন্ন সড়কে মোটরসাইকেল দাঁড় করিয়ে রাখতে দেখা যায়। অনেকে যাত্রীদের ডাকাডাকিও করেন। এর মধ্যে একদিন কুড়িল বিশ্বরোডে গিয়ে দেখা যায়, মোটরসাইকেল চালক লোকজনের কাছে গন্তব্য জানতে চাইছেন। লোকজনকে ডাকাডাকির কারণ জানতে চাইলে তুহিন নামে ওই চালক বলেন, দুপুরে এ্যাপে কল কম থাকলে ডেকে যাত্রী নেন। তিনি বলেন, এ্যাপ আর চুক্তিতে দুভাবেই যাই। এখন কল নেই। বসে আছি অনেকক্ষণ ধরে। যদি কাউকে পাই এজন্য ডাকছি।

হামিম নামে আরেক চালক বলেন, বাইকার বেশি এবং ট্রিপ কম হওয়ায় অনেকেই এটা করেন। যারা শুধু মোটরসাইকেল চালিয়ে রোজগার করতে আসছে তারা এটা করে। অফিস টাইম ছাড়া এ্যাপে রিকোয়েস্ট কম আসে। তখনই ডেকে ডেকে যাত্রী নেয়ার চেষ্টা করে।

এসব অভিযোগের বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে রাইড শেয়ারিং কোম্পানি ওভাই-এর সহকারী ব্যবস্থাপক (ব্র্যান্ডিং এ্যান্ড কমিউনিকেশন) শাফায়েত রেজা বলেন, চালকদের নিয়মনীতি মেনে চলার ক্ষেত্রে তারা বেশ কঠোর। যদি রাইডের সময় এ ধরনের আচরণ কেউ করে তাহলে এ্যাপের এসওএস বাটনে নোটিফিকেশন দেবে। আমরা সঙ্গে সঙ্গেই ব্যবস্থা নিতে পারব। প্রথমে যেটা করি একটা ফোন কল করে জিনিসটা ভেরিফাই করতে পারি।

তিনি বলেন, আমরা অনেক যাচাই-বাছাই করে রাইডার নেই। এ কারণে আইন অমান্য করার ঘটনা খুব একটা ঘটে না। তবে প্রোমোকোড নিয়ে মাঝখানে ঝামেলা হয়েছিল। কিন্তু সেটা এখন আর তেমন হয় না। আমরা অভিযোগ পাই না।

যাত্রীদের অভিযোগ গুরুত্বের সঙ্গে নেয়া হয় বলে দাবি করেছে আরেক কোম্পানি পাঠাও। অভিযোগ নিয়ে বক্তব্য জানতে চাইলে ই-মেইলে কোম্পানিটি বলে, যাত্রীদের এসব অভিযোগ আমরা অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে দেখি। প্রমাণ পেলে অভিযুক্ত রাইডারদের সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। পুনরায় একই অভিযোগ পাওয়া গেলে স্থায়ীভাবে রেজিস্ট্রেশন বাতিল করা হয়। খারাপ রেটিংপ্রাপ্ত চালকদের কীভাবে আরও নিবিড় পর্যবেক্ষণের অধীনে আনা যায় এবং যাত্রীদের আরও উন্নত সেবা প্রদান করা যায়, সে বিষয়ে আমরা নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছি।

অপরদিকে রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার বলছে, যাত্রী ও চালকদের নিরাপত্তা আমাদের কাছে প্রথম। এজন্য আমরা উবার পার্টনারদের দেশের প্রচলিত আইন, সড়ক নিরাপত্তার বিষয়গুলো মেনে চলার অনুরোধ করি।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে সহজ ডটকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মালিহা এম কাদিরের মোবাইলে বেশ কয়েকবার ফোন করলেও তিনি ধরেননি। মোবাইলে বার্তা পাঠালেও কোন জবাব দেননি তিনি। রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে অভিযোগের বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে বিআরটিএর পরিচালক নুরুল ইসলাম বলেন, তারা নীতিমালা মানতে বাধ্য। আইন মানবে বলেই এই নীতিমালার আওতায় ফি দিয়ে সে তালিকাভুক্তির আবেদন করেছে। কিন্তু তাদেরকে এখনও আমরা রেজিস্ট্রেশন দেইনি। ফলে তাদের বিরুদ্ধে যে এনফোর্স করব, তাকে জেল-জরিমানার আওতায় আনব, সেটা করা যাচ্ছে না।

বিআরটিএ রাইড শেয়ারিং নীতিমালার ছ (১) ধারায় বলা হয়েছে, শর্ত ভঙ্গ করে কোন রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান কোন কার্যক্রম পরিচালনা করলে সংশ্লিষ্ট রাইড শেয়ারিং সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম বন্ধসহ দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া যাবে।

ছ (২) ধারা অনুযায়ী, এ নীতিমালা কোন শর্তের ব্যত্যয় ঘটিয়ে বা এ নীতিমালা বাস্তবায়ন সংক্রান্ত নির্দেশনার কোন ব্যত্যয় ঘটিয়ে কোন রাইড শেয়ারিং মোটরযান মালিক বা চালক কোন কার্যক্রম পরিচালনা করলে সংশ্লিষ্ট রাইড শেয়ারিং এনলিস্টমেন্ট সার্টিফিকেট বাতিল ও মোটরযানের রাইড শেয়ারিং কার্যক্রম বন্ধ করাসহ দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Rasel
করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
২৪১২৫৩৭৪৬
আক্রান্ত
১৫৬৫৪৮৮
সুস্থ
২১৮৪৮৭৭৮৯
সুস্থ
১৫২৭৮৬২
শীর্ষ সংবাদ:
কুমিল্লা ও রংপুরের ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা         সাম্প্রদায়িক হামলা ॥ উস্কানিদাতাদের খুঁজছে পুলিশ         সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার দাবিতে আল্টিমেটাম         পিছিয়ে পড়া চুয়াডাঙ্গা এখন উন্নয়নের মহাসড়কে         ইভ্যালি পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণে পাঁচ সদস্যের বোর্ড গঠন         শেখ রাসেল একটি আদর্শ ও ভালবাসার নাম         রেমিটেন্স হঠাৎ কমছে         ই-কমার্সে শৃঙ্খলা ফেরাতে এক মাসের মধ্যে সুপারিশ         রাসেলের হত্যাকারীরা পশুতুল্য ঘৃণ্য ও নর্দমার কীট         দেশে করোনায় ১০ জনের মৃত্যু         সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহ্বান জাতিসংঘের         শেখ রাসেলের মতো আর কোন মৃত্যু দেখতে চাই না : আইনমন্ত্রী         ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে প্রশ্নবিদ্ধ করবেন না : গাসিক মেয়র         রংপুর-ফেনীসহ ৭ এসপিকে বদলি         ডেঙ্গু : গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৭২ রোগী হাসপাতালে         প্রকাশ হলো ৪৩তম বিসিএস প্রিলির আসন বিন্যাস         সম্প্রতির মধ্যে ভাঙন সৃষ্টি করতে কুমিল্লার ঘটনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         এফআর টাওয়ারের নকশা জালিয়াতি: চারজনের বিচার শুরু         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১০         পদোন্নতি পেলেন ডিএমপি কমিশনার ও র‌্যাব মহাপরিচালক