শনিবার ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বলিউড ফিচার ॥ এখনও মাধুরী ম্যাজিক

  • অনন্য রেজা করিম

গত ১৫ মে ছিল মাধুরী দীক্ষিতের জন্মদিন। ৫০ পেরিয়ে ৫১তে পা রাখলেন একদা বলিউডের শীর্ষ জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে একটানা দীর্ঘ সময় ধরে শক্ত অবস্থানে থাকা এই নায়িকা। দেখতে দেখতে জীবনের অনেক বছর পার করে দিলেন একদার সবচাইতে কাক্সিক্ষত এই বলিউড তারকা অভিনেত্রী। অথচ মনে হয়, এই তো সেদিন মাধুরী হিন্দি সিনেমায় পথ চলা শুরু করেছিলেন। সেটাও ১৯৮৪ সালের কথা। ইতোমধ্যে ৩৪ বছর পেরিয়ে গেছে। ‘অবোধ’ ছবিতে কলকাতার বাঙালী অভিনেতা তাপস পালের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন মাধুরী দীক্ষিত। রূপালি পর্দায় তার অভিষেক সফলতার দৃষ্টান্ত ছিল না। বক্স অফিসে ডাহা ফ্লপ করেছিল ‘অবোধ’ ছবিটি।

মুম্বাই শহরের শিক্ষিত সংস্কৃতিমনা একটি ভদ্র পরিবারের মেয়ে মাধুরী পড়াশোনা করছিলেন মুম্বাই ইউনিভার্সিটিতে। মাইক্রোবায়োলজিস্ট হওয়ার স্বপ্ন ছিল তার। খুব ছোটবেলা থেকেই নাচের প্রতি তার বিশেষ দুর্বলতা ছিল। পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকে নাচের চর্চাটা ঠিকই চালিয়ে নিচ্ছিলেন। শৈশব কৈশোর পেরিয়ে যৌবনে পা রাখার পর একজন পরিপূর্ণ নৃত্যশিল্পী হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছিলেন মাধুরী। তার এই অভিজ্ঞতা, দক্ষতা, নাচের বিশেষ অনুরাগ পরবর্তীতে বলিউডে নায়িকা হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ে তোলার ক্ষেত্রে অনেক বড় সহায়ক উপাদান হিসেবে বেশ কাজ দিয়েছে। বলিউডের ইতিহাসে ভালো নাচ জানা জনপ্রিয় নায়িকাদের একজন হিসেবে মাধুরীর নামটি বেশ উজ্জ্বলভাবে লেখা থাকবে। পড়াশোনা মাঝপথে থামিয়ে হিন্দী সিনেমায় বেশ ভালভাবেই জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি ততদিনে। মাইক্রোবায়োলজিস্ট হওয়ার স্বপ্ন তখন মাথা থেকে উবে গেছে। কিন্তু হিন্দী সিনেমায় পা রাখার পর ক্রমেই মাধুরীর উপলব্ধি হতে লাগলো, এ পথটা মোটেও ফুল বিছানো নয়, অনেক কঠিন। চড়াই-উৎরাই পথ পাড়ি দিতে হবে তাকে। একের পর এক নিজের অভিনীত সিনেমা ‘আওয়ারা বাপ’, ‘মানব হত্যা’, ‘স্বাতি’, ‘মোহরে’, ‘হিফাত’, ‘উত্তর দক্ষিণ’ এর বক্স অফিস ব্যর্থতা মাধুরীর মধ্যে এক ধরনের দ্বিধা, অনিশ্চয়তা, নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি করেছিল। কিন্তু অন্ধকারের পর অনেক আলোর ঝলকানি যেমন সবার চোখ ধাঁধিয়ে দেয় তেমনিভাবে ১৯৮৮ সালে তার অভিনীত ‘তেজাব’ ছবির বিরাট সাফল্য সবাইকে চমকে দিয়েছিল। সামাজিক এ্যাকশনধর্মী এ ছবিতে দুর্দান্ত হিট গান ‘এক দো তিন’ এর সঙ্গে মাধুরীর উদ্দাম পারফরমেন্স হিন্দী সিনেমার দর্শকদের মাতিয়ে তুলেছিল। তার এই একটি নাচ গান বলিউডে দুর্দান্ত সেনসেশন সৃষ্টি করেছিল। বলা যায়, ‘তেজাব’ ছবিটিই মাধুরী দীক্ষিতের ক্যারিয়ারের মোড় ঘুড়িয়ে দিয়েছিল। রাতারাতি সুপারস্টার বনে গিয়েছিলেন তিনি ‘এক দো তিন গার্ল’ হিসেবে। প্রযোজক পরিচালকদের লাইন লেগে গিয়েছিল মাধুরীর বাড়ির সামনে। ‘তেজাব’ ছবিতে মাধুরীর নায়ক ছিলেন অনিল কাপুর, যদিও এর আগে ‘হিফাজত’ ছবিতে এক সঙ্গে তারা দু’জন অভিনয় করেছিলেন। তবে ‘তেজাব’ ছবিতে রোমান্টিক জুটি হিসেবে অনিল-মাধুরীর চমৎকার সহজ সাবলীল অভিনয় এবং কেমিস্ট্রি দর্শকদের মনে ভিন্নরকম আবেশ ছড়িয়ে ছিল। সেই থেকে বলিউডে তারা কাক্সিক্ষত জনপ্রিয় পর্দা জুটি হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন একটানা দীর্ঘদিন। ‘বেটা’, ‘পুকার’, ‘জামাই রাজা’ ‘রাজকুমার’, ‘রাম লক্ষণ’, ‘পারিন্দা’, ‘কিষাণ কানাইয়া’, ‘জিন্দেগি এক জুয়া’, ‘খেলা’, ‘লজ্জা’, প্রভৃতি ছবিতে তাদের মনমাতানো অভিনয় দর্শক সমালোচকদের অকুণ্ঠ প্রশংসা অর্জন করেছে বারবার। অনিল কাপুরের সঙ্গে মাধুরীর অভিনয়ের বোঝাপড়াটা ছিল বেশ ভাল, এটা মাধুরী অনেকবার বিভিন্ন জায়গায় স্বীকার করেছেন, এক সঙ্গে অভিনয়ে তেমন কোন সমস্যা বা ঝামেলা সৃষ্টি হয়নি কখনও, ভুল বোঝাবুঝির মতো পরিস্থিতি হয়নি। ফলে দর্শক চাহিদার কারণে অনিল কাপুরের সঙ্গে মাধুরীর পর্দা জুটি অনেক দিন ধরে স্থায়ী হয়েছিল। বলিউডের সেই সময়ের জনপ্রিয় প্রায় সব নায়কের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন মাধুরী। আমির খান, সালমান খান, শাহরুখ খান, সঞ্জয় দত্ত, জ্যাকি স্রফ, মিঠুন চক্রবর্তী, বিনোদ খান্না, গোবিন্দ. আদিত্য পাঞ্চোলি, সঞ্জয় কাপুর, সানি দেওল. ঋষি কাপুর, মুকুল দেব, আইয়ুব খান প্রমুখের বিপরীতে বিভিন্ন সিনেমায় তাকে নায়িকা রূপে দেখা গেছে। মজার ব্যাপার হলো, সমসাময়িক জনপ্রিয় সুপারস্টার নায়ক হোক কিংবা অপেক্ষাকৃত কম জনপ্রিয় জুনিয়র নায়িকাদের সঙ্গে অবলীলায় স্বাচ্ছন্দ্যে অভিনয় করেছেন মাধুরী।

ক্যারিয়ারের প্রথম দিকেই চমৎকার অভিনয়ের মাধ্যমে দর্শক ও নির্মাতাদের আস্থা অর্জন করে নিতে পেরেছিলেন মাধুরী। দিনে দিনে ক্রমেই তা উন্নত হয়েছে। সব ধরনের রোলে খুব সহজেই নিজেকে মানিয়ে নিয়ে অভিনীত চরিত্রটিকে বিশ^াসযোগ্য করে তোলার অপূর্ব ক্ষমতা বলিউডে খুব দ্রুতই প্রতিষ্ঠিত করেছিল তাকে। তখন অভিনীত প্রায় প্রতিটি ছবিতে মাধুরীর চমৎকার প্রাণবন্ত অভিনয় এবং তার আকর্ষণীয় নাচ গানের দৃশ্য দর্শকদের জন্য বড় আকর্ষণ হিসেবে বিবেচিত হয়েছে। নানা দুর্বলতায় এবং অন্যান্য কারণে নি¤œমানের অনেক সিনেমা একমাত্র মাধুরীর উপস্থিতির কারণে উতরে গেছে এবং বক্স অফিসে ভাল সাফল্য পেয়েছে। তেমন অনেক উদাহরণ রয়েছে। সব সময় সমালোচকদের পজেটিভ মন্তব্য এবং প্রশংসা পেয়ে এসেছেন তিনি তার অভিনীত বিভিন্ন ছবির জন্য।

প্রথম অভিনীত সুপারহিট সিনেমা ‘তেজাব’ এর জন্য মাধুরী ফিল্মফেয়ার সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন লাভ করেছিলেন। মাধুরী ১৬ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন লাভ করেছেন তার অভিনয় জীবনে। ৬ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছেন। ভারতের রাষ্ট্রীয় খেতাব পদ্মশ্রী লাভকারী এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী তার অভিনয় জীবনের বেশ অনেকটা সময় ধরে একটানা বলিউডের এক নম্বর নায়িকারূপে বিবেচিত হয়েছেন। শ্রীদেবীর পর পরই হিন্দী সিনেমায় মাধুরীর রাজত্বকাল শুরু হয়েছিল। শ্রীদেবী তার শীর্ষ অবস্থানটি ধরে রাখতে শেষের দিকে মাধুরীর সঙ্গে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় লিপ্ত হয়েছিলেন। তাদের দু’জনকে এক সঙ্গে কাস্ট করে সিনেমা তৈরির জন্য অনেক বাঘা বাঘা চিত্রনির্মাতা চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু বাস্তবে কেউই সফল হতে পারেননি। শোনা যায়, শ্রীদেবী ও মাধুরীকে এক সঙ্গে কাস্ট করা হয়েছিল একটি সিনেমায়। তারা দু’জন চুক্তিবদ্ধও হয়েছিলেন অভিনয়ের জন্য, যে ছবিতে তাদের বিপরীতে বিনোদ খান্না ও সঞ্জয় দত্তের অভিনয়ের কথা ছিল। আর ছবিটির পরিচালক ছিলেন ‘শোলে’, ‘সাগর’ খ্যাত প্রখ্যাত চিত্রনির্মাতা রমেশ সিপ্পি। কিন্তু সেই ছবির কাজ আর শুরু হয়নি শেষ পর্যন্ত। অভিনয় জীবনে বলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেত্রী হিসেবে বিবেচিত মাধুরীকে কাস্ট করতে পারলে নির্মাতারা অনেকটা নিশ্চিত বোধ করতেন সেই ছবির সাফল্যের ব্যাপারে। কারণ মাধুরী থাকলে দর্শক সেই ছবিটি দেখতে আসবে, তেমন একটি নির্ভরযোগ্যতা সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছিলেন তিনি। এটা বলিউডের ইতিহাসে খুব কম জনপ্রিয় নায়িকাদের বেলায় দেখা গেছে। এক সময় মাধুরীকে অতীত দিনের জনপ্রিয় কিংবদন্তি তারকা অভিনেত্রী মধুবালার সঙ্গে তুলনা করতে শুরু করেছিলেন চিত্র সমালোচক, সাংবাদিক, দর্শক মহল। এটা তার জন্য এক ধরনের ‘কমপ্লিমেন্টস’ হিসেবে বিবেচিত হলেও মাধুরী খুব অস্বস্তিবোধ করতেন। তিনি চাইতেন না ‘এ যুগের মধুবালা’ হিসেবে তাকে অভিহিত করা হোক। মাধুরী সব সময় চেয়েছেন নিজের যোগ্যতায় নিজের মতো করে পরিচিত হতে। তার ভুবনজয়ী মিষ্টি হাসি আর দুর্দান্ত নাচের অপূর্ব ছন্দায়িত দেহভঙ্গিমায় দর্শক কুপোকাত হয়েছেন বারবার। মাধুরী ম্যাজিকে বুঁদ হয়েছেন কোটি কোটি সিনেমা দর্শক।

১৯৯৯ সালের ১৭ অক্টোবর আমেরিকা প্রবাসী ভারতীয় কার্ডিওভাসক্যুলার সার্জন শ্রীরাম নেনেকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের পর মাধুরী স্বামীর সঙ্গে আমেরিকা পাড়ি জমান। কলরাডোর ডেনভারে দীর্ঘদিন থেকেছেন স্বামীর সঙ্গে। দুই পুত্র আরিন এবং রায়ানের মা মাধুরী দীক্ষিত চিকিৎসক স্বামীর সঙ্গে গত ১৯ বছর ধরে চমৎকার সুখী দাম্পত্য জীবন পার করেছেন। শোবিজ থেকে সংসার জীবনে পা রেখে প্রথম দিকে খারাপ লাগলেও এখন ঠিক মানিয়ে নিয়েছেন। একজন ভাল মা এবং গৃহবধূ হিসেবে তাকে সফল বলা যায়। পাশাপাশি বিভিন্ন টিভি শোতে নাচের প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায় তাকে।

এখন আর অভিনয়ে ব্যস্ত নন তিনি। ঘর সংসার স্বামী সন্তান নিয়ে বেশ আছেন। দীর্ঘদিন আমেরিকায় চিকিৎসক স্বামীর সঙ্গে কাটিয়েছেন, সেখানেই দুই পুত্র সন্তানের মা হয়েছেন বিয়ের পর অভিনয় জগত থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিলেও বলিউডের মায়া পুরোপুরি কাটাতে পারেননি। আমেরিকা থেকে এসে মাঝখানে বেশ কিছু হিন্দী সিনেমায় অভিনয় করেছেন এ প্রসঙ্গে ‘লজ্জা’, ‘দেবদাস,’ ‘আজা নাচালে’, ‘দেড় ইশকিয়া’, ‘গুলাব গ্যাং’ প্রভৃতি সিনেমার কথা বলা যায়। সর্বশেষ ২০১৪ সালে তাকে রূপালি পর্দায় দেখা গেছে। রূপালি পর্দায় তাকে দেখা না গেলেও বলিউডের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে টিভি পর্দায় রিয়েলিটি শোতে মাঝে মধ্যে দেখা গেছে।

বয়স হাফ সেঞ্চুরি পার করলেও এখনও বেশ চনমনে, সতেজ এবং উদ্যমী রয়ে গেছেন মাধুরী। ঘর সংসার নিয়ে ব্যস্ততার ফাঁকে নাচের তালিম দেওয়ার কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। বলিউডের তুখোড় নৃত্যপটিয়সী নায়িকা হিসেবে তার কথা দর্শক সহজে ভুলবেন না। মারাঠি সিনেমা ‘বাকেট লিস্ট’ নিয়ে দর্শকদের সামনে হাজির হয়ে আলোচনায় ফিরেছেন তিনি। তবে এর চেয়ে বেশি আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন এক সঙ্গে দু’দুটি নতুন বলিউডি সিনেমায় শূটিং শুরুর মাধ্যমে। চমকে দেওয়ার মতো খবর হলো, মাধুরী দীক্ষিতকে আবার হিন্দী সিনেমায় দেখা যাবে। দুটি নতুন সিনেমায় এখন তিনি অভিনয় করছেন। এর মধ্যে একটি টোটাল ধামাল’, অপরটি, কলঙ্ক’। কমেডি সিনেমা, ধামাল’ সিরিজের তৃতীয় ছবিটিতে মাধুরী থাকছেন সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হিসেবে। এ ছবিতে দীর্ঘ ১৭ বছর পর আবার জনপ্রিয় পর্দা জুটি মাধুরী দীক্ষিত-অনিল কাপুরকে দেখা যাবে একসঙ্গে। সর্বশেষ তারা দু’জন একসঙ্গে ‘পুকার’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। দীর্ঘদিন পর আবার দু’জন একসঙ্গে রূপালি পর্দায় ফিরছেন। যে কারণে বলিউডে দারুণ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ‘তেজাব’, ‘রাম লক্ষণ’, ‘হিফাজত’, বেটা’ ‘জামাই রাজা’, ‘খেলা’, ‘পারিন্দা’ প্রভৃতি ছবিতে রোমান্টিক পর্দা জুটি হিসেবে ক্রেজ সৃষ্টিকারী অনিল কাপুর-মাধুরী দীক্ষিতকে ‘টোটাল ধামাল’ ছবিতে নতুনভাবে দেখা যাবে। তারা দু’জন বর্তমানে এ ছবির শূটিং করছেন। এ বছরের শেষ দিকে ছবিটি মুক্তি পাবে। হালে মাধুরী শূটিং শুরু করেছেন ‘কলঙ্ক’ ছবির। এখানে এ মাধুরী দীক্ষিত অভিনয় করবেন বহুল আলোচিত তারকা অভিনেতা সঞ্জয় দত্তের বিপরীতে। এক সময় তারা দু’জন জুটি বেঁধে বেশ কিছু সিনেমায় অভিনয় করে ঝড় তুলেছিলেন দর্শক হৃদয়ে। ‘সাজন’, ‘খলনায়ক’, ‘থানেদার’ প্রভৃতি ছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করতে গিয়ে মাধুরী সঞ্জয় দত্তের খুব কাছাকাছি চলে এসেছিলেন তাদের রোমান্স নিয়ে অনেক গুজব গুঞ্জন শোনা গেছে। এক সময়ে তাদের মধ্যে ব্রেকআপ হয়ে যায়। সেই থেকে তারা কেউ পরস্পরের কাছাকাছি আসেননি। একজন আরেকজনের কাছ থেকে যোজন যোজন দূরে সরে গিয়েছিলেন। এতদিন পর সঞ্জয়-মাধুরী জুটির পুনরায় পর্দায় ফিরে আসার কথা কেউ ভাবতেও পারেননি। সেরকম মনোভাবও ছিল না তাদের দু’জনের কারো মধ্যেই। প্রযোজক করন জোহরের দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে লালিত স্বপ্নের প্রজেক্ট ‘কলঙ্ক’ ছবিতে এই সময়ের বেশ কয়েকজন জনপ্রিয় তারকা অভিনেতা অভিনেত্রী অভিনয় করছেন। তাদের মধ্যে সঞ্জয় দত্ত-মাধুরী দীক্ষিত জুটির অন্তর্ভুক্তি সবচেয়ে বড় চমক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। যদিও শুরুতে এ ছবিতে সঞ্জয় দত্তের বিপরীতে প্রয়াত অভিনেত্রী শ্রীদেবীর অভিনয়ের কথা চূড়ান্ত হয়েছিল। তখন কথা প্রসঙ্গে সঞ্জয় দত্ত আর কোনদিন মাধুরীর সঙ্গে কোন সিনেমায় অভিনয় সম্ভব নয় বললেও শেষ পর্যন্ত মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতেই অভিনয় করতে রাজি হয়েছেন। আর পেশাগত দীর্ঘ জীবনে চিরশত্রু হিসেবে আলোচিত শ্রীদেবীর জন্য নির্ধারিত চরিত্রে ‘কলঙ্ক’ ছবিতে অভিনয়ে রাজি হয়ে রীতিমতো বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছেন মাধুরী দীক্ষিত। ‘টোটাল ধামাল’ এবং ‘কলঙ্ক’ ছবিতে মাধুরী ম্যাজিক দেখার অপেক্ষায় প্রহর গুনতে শুরু করেছেন কোটি কোটি সিনেমা দর্শক।

শীর্ষ সংবাদ:
বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় ঐক্যের বিকল্প নেই ॥ রাষ্ট্রপতি         কুয়েটের শিক্ষকের মৃত্যু ॥ ৯ শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার         শেখ ফজলুল হক মণির জন্মদিন ॥ যুবলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন         চলতি বছরের নবেম্বর মাসে দেশে ৪১৩ জনের প্রাণহানি         এলডিসি উত্তরণে এফবিসিসিআইয়ের ১০ বছর মেয়াদী মাস্টার প্ল্যান         ৪ ডিসেম্বর ঝিনাইগাতী মুক্ত দিবস         কাটাখালিতে মেয়র আব্বাসের অবৈধ দুই ভবন গুড়িয়ে দিল প্রশাসন         শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি রুটে পরীক্ষামূলক ফেরি চালু         শরীয়তপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা         মালিতে জঙ্গি হামলা ॥ অন্তত ৩১ জন নিহত         টঙ্গীতে হাফ ভাড়া ও নানা দাবিতে ছাত্রদের মহাসড়ক অবরোধ         একুশে পদকপ্রাপ্ত বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ গোলাম হাসন আর নেই         সুন্দরবনের কোনঠাসা জলদস্যুরা এখন সাগরে         রাজনৈতিক উস্কানি আছে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ॥ কাদের         নীলফামারীতে জঙ্গী আস্তানায় র্যাবের অভিযান ॥ আটক ৫         নিরাপদ সড়ক ॥ আগামীকাল প্রতীকী লাশের মিছিল করবে শিক্ষার্থীরা         কুয়েট শিক্ষকের মৃত্যু ॥ ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন         সড়কের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘লাল কার্ড’ দেখাল শিক্ষার্থীরা         মুন্সীগঞ্জের ভবনে বিস্ফোরণে দগ্ধ ভাইবোনের মৃত্যু পর এবার বাবার মৃত্যু         রায়পুরায় শিশু অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার ৪