শনিবার ৯ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কুড়িগ্রামে তিস্তার ভাঙ্গনে ৬৫ পরিবার গৃহহারা

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ কুড়িগ্রামের উলিপুরে তিস্তা নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনে মাত্র দুই সপ্তাহে ২টি গ্রাম নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। ২টি স্কুল ও ৬৫টি পরিবারের বসতভিটাসহ ১শ’ হেক্টর আবাদি জমির আধাপাকা ফসল নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। নদী ভাঙ্গনে বসতভিটা হারিয়ে দিশেহারা এসব পরিবার খোলা আকাশের নিচে অর্ধাহারে-অনাহারে দিনাতিপাত করছেন। বাস্তভিটা হারা মানুষজনের অভিযোগ এখন পর্যন্ত কেউ তাদের খোঁজখবর নেয়নি।

উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নে তিস্তা নদী ভাঙ্গন কবলিত হোকডাঙ্গা মাঝিপাড়া গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নদীর ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে মানুষজন তাদের ঘরবাড়ি সরিয়ে ব্যস্ত। দিশেহারা মানুষজন জানায় প্রতিদিন ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ৮-৯ টি করে বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে ভাঙ্গনে জোয়ান সতরা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দক্ষিণ চর হোকডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ হোকডাঙ্গা মাঝিপাড়া ও ডাক্তারপাড়া গ্রাম নিশ্চিন্ন হয়ে গেছে। ভাঙ্গনে ৬৫টি পরিবারের ঘরবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে সর্বস্বান্ত হয়েছে। ভাঙ্গনের মুখে পড়েছে ওই এলাকার সংরক্ষিত ইউপি সদস্য তারামনির বাড়িসহ ভারতপাড়া, দালালপাড়া ও হোকডাঙ্গা, পাঠোয়ারীপাড়া গ্রামের ৮০টি পরিবারের ঘরবাড়ি, ক্ষেতখামার ও ধানি জমি। ভাঙ্গন কবলিত এলাকার মানুষ জানান, দু’সপ্তাহ ধরে এ গ্রামে নদীর ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে। আমরা সব কিছু হারিয়ে দিশেহারা। কিন্ত ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের কেউ তাদের পাশে দাঁড়ায়নি। ফলে তারা খোলা আকাশের নিচে অর্ধাহারে-অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন। নদী ভাঙ্গনে সর্বস্বন্ত হয়েছেন ওই গ্রামের ভক্ত চন্দ্র বর্ম্মন, মহুবুবার রহমান ও সচিন্দ্র চন্দ্র বর্ম্মন জানানÑগত ২৫ অক্টোবর রাতে ভাঙ্গনের মুখে তাদের একটি করে ঘর সরাতে পেরেছেন বাকি ঘর ভেসে গেছে। এখন সড়কের ওপর ঝুপরি করে পরিবার নিয়ে মানবেতন জীবন যাপন করছেন। বিধবা সুচিত্রা রানীর একটি ঘর। সে ঘরের শুধু বেড়া রক্ষা করতে পেরেছেন। কিন্ত ভেসে গেছে ঘরের চাল। এখন অন্যের বাড়িতে আশ্রিত। এদিকে উপজেলার তিস্তা নদীর কবলে বজরা, দলদলিয়া, গুনাইগাছ ও ব্রহ্মপুত্র নদের হাতিয়া, সাহেবের আলগা, বেগমগঞ্জ, বুড়াবুড়ি ইউনিয়নে ভাঙ্গনের খবর পাওয়া গেছে। থেতরাই ইউনিয়নের সংরক্ষিত ইউপি সদস্য তারামনি জানায়, তার বাড়ি ভাঙ্গনের হুমকিতে পড়েছে। বিষয়টি চেয়ারম্যান ও ইউএনওকে জানিয়েছি। থেতরাই ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী জানান ওই এলাকায় ভাঙ্গন চলছে। তিনি তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম সোমবার নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা ভাইরাসে আরও ১৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৯৬১৪         রবিবার থেকে ভার্চুয়ালিও চলবে সব অধস্তন আদালত         করোনা টেস্ট ॥ চাপ বাড়ছে হাসপাতালে         বর্তমানে মজুদ রয়েছে ৯ কোটি টিকা ॥ তথ্যমন্ত্রী         প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ১০         দেখানোর জন্য নয়, নিজের স্বার্থেই পরতে হবে মাস্ক         বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীরে চলবে পরীক্ষা, খোলা থাকবে হল         ভ্যাট ও টাক্স আদায়ে হয়রানি বন্ধের দাবি তৃণমূল ব্যবসায়ীদের         মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেন ৯০ হাজার কোটি টাকা         অতিরিক্ত আইজিপি হলেন ৭ কর্মকর্তা         রাজধানীতে ৯ কেজি গাঁজাসহ আটক ১         ইয়েমেনের কারাগারে সৌদি হামলায় নিহত ৭০         ৩ বিভাগে বৃষ্টির পূ্র্বাভাস         একসঙ্গে করোনার দুই ডোজ টিকা, যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী         ফরিদগঞ্জে একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে ৩শ শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা নিতে অর্থ আদায়         মাগুরায় চিনি মিশ্রিত খেজুর গুড় পাটালী বিক্রি হচ্ছে, প্রতারিত হচ্ছে ক্রেতা         মুম্বাইয়ে বহুতল ভবনে আগুন, নিহত ৭         নীলক্ষেত থেকে সরে গেলেন শিক্ষার্থীরা         মা হলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া         প্রতারকের খপ্পরে পড়ে ১৮ দিনের সন্তান বিক্রি