ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

ভেন্যু সঙ্কটে ব্রিজ ফেডারেশন

প্রকাশিত: ০৫:৩৭, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭

ভেন্যু সঙ্কটে ব্রিজ ফেডারেশন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ ব্রিজ দলকে মরুভূমির বুকে বিনা যত্নে জন্ম নেয়া একটি রাজশাহীর ফজলি আম গাছের সঙ্গে তুলনা করেছেন মুশফিকুর রহমান মোহন। ফ্রান্সের লিওতে শেষ হয়েছে ব্রিজ বিশ্বকাপের ৪৩তম আসর। এই আসরে প্রথমবারের মতো খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ ব্রিজ দল। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে যাওয়ার আগে বাংলাদেশ দল তাদের লক্ষ্যের কথা জানিয়েছিলÑ শেষ আটে যাওয়ার। বিশ্বের আট জোন থেকে মোট ২২ দল এই বিশ্বকাপে অংশ নেয়। রাউন্ড রবীন লীগ পদ্ধতির এই খেলায় বাংলাদেশ মোট ২১ ম্যাচ খেলে। এই পর্বের সেরা আট দল খেলবে পরবর্তী পর্বে। তবে সেই পর্বে খেলার স্বপ্ন ভেঙ্গে গেছে ব্রিজ টাইগারদের। কিন্তু তারপরও এই আসরে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বাংলাদেশ। কেননা এই আসরে তারা হারিয়েছে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন যুক্তরাষ্ট্রকে। এছাড়া হারিয়েছে মিসর, মেক্সিকো ও ইতালিকে-ও। তাদের চারটি জয় আলোড়ন সৃষ্টি করেছে তাস খেলার সর্বোচ্চ এই পর্যায়ে। বাংলাদেশ ব্রিজ ফেডারেশনের সভাপতি মোহন জনকণ্ঠকে জানান, ‘ব্রিজ বিশ্বকাপে শুরু হয়েছে সুপার আট পর্বের খেলা। খালি চোখে দেখা যায় বাংলাদেশ সর্বনিম্ন স্থানেই অবস্থান করছে। কিন্তু আমার কাছে মনে হয়েছে প্রথমবারের অংশগ্রহণে যুগ যুগ ধরে বংশপরম্পরা গল্প বলতে পারার মতো রূপকথার জন্ম দিতে পেরেছি আমরা।’ সেটা কিভাবে? মোহন জানান, বাংলাদেশ ব্রিজ ফেডারেশন তার জন্মলগ্ন থেকেই নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে চলছে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ থেকে একটি অফিস পেয়েছি বটে, তবে এর আয়তন এত ছোট যে একটা মিটিং টেবিল বসানোও সম্ভব নয়। ফলে ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী সদস্যদের সভাগুলো বাধ্য হয়ে একেকদিন একেক জায়গায় করতে হয়। ব্রিজ ফেডারেশন বাৎসরিক একটা অনুদানও পায় বটে। তবে সেটা দিয়ে অফিসের পিয়নের বেতন ও যাতায়াত ভাতা দেয়ার পর আর কিছু অবশিষ্ট থাকে না। মোহন বলেন, ‘ইতালি, আমেরিকার মতো দলকে হারানোর পরে ব্রিজ অনুশীলনের জন্য এনএসসি টাওয়ারের ১০ বা ১৬ তলায় ছয় হাজার বর্গফুট জায়গা পাওয়াটা ব্রিজ ফেডারেশনের জন্য এখন জরুরী, স্বাভাবিক এবং যৌক্তিক হয়ে পড়েছে। আমরা অনেক আগেই এর জন্য আবেদন করেছি। কিন্তু এখনও কোন ফল পাইনি।’ মোহন আশ^াস দিয়ে বলেন, ‘এখন শুধু প্রয়োজন আমাদের ন্যূনতম চাহিদা পূরণ করার নিশ্চয়তা। বিনিময়ে আমরা এনে দেব জাতির গর্ব করার মতো সফলতা। এই বিশ্বকাপ ব্রিজে বাংলাদেশের চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন এবং বিশ্বকাপে টুকরো টুকরো সফলতাকে তুলনা করার কোন উপমা আমার জানা নেই। তবুও নির্দ্বিধায় বলতে পারি এ যেন মরুর বুকে বিনা যতেœ জন্ম নেয়া একটি রাজশাহীর ফজলি আম গাছ।’ আর্থিক সঙ্কট নিয়ে ব্রিজ বিশ্বকাপে অংশ নেয়ার আক্ষেপের কথাও জানিয়েছেন মোহন, ‘ব্রিজ বিশ্বকাপে সরকারী আনুকূল্যে ও পৃষ্ঠপোষকের আনুকূল্যে ভারত যেখানে পূর্ণ ছয় ক্যাটাগরির দল পাঠিয়েছে, সেখানে বিমান ভাড়ার অভাবে পাঠাতে আমরা আরেকটি দল পাঠাতে পারিনি। এটি অত্যন্ত সম্ভাবনাময় জাতীয় যুব ব্রিজ দল ছিল, যারা গতবার বিশ্ব দরবারে মাঝামাঝি অবস্থানে ছিল। ওই আসরে দলটির ফলে মুগ্ধ হয়ে রেজিস্ট্রেশন ফি মওকুফ এবং থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করেছিল আয়োজকরা। তবুও তাদের পাঠাতে পারিনি শুধুই বিমান ভাড়ার জন্য। প্রথম অংশগ্রহণে ভারত এত সফলতা কখনই পায়নি, যেটা এবার পেয়েছে বাংলাদেশ।’ উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩১ মার্চ থেকে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হবে ‘এশিয়া কাপ ব্রিজ’। এতে এশিয়ার দেশেগুলোর সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড-ও অংশ নেবে। মোহন মনে করেন এই আসরের মাধ্যমে কক্সবাজার এবং বাংলাদেশের পর্যটন শিল্পের বিকাশে বিশেষ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২