মঙ্গলবার ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

ফিলিস্তিনিদের বাড়ি গুঁড়িয়ে রাস্তা!

ফিলিস্তিনিদের বাড়ি গুঁড়িয়ে রাস্তা!

অনলাইন ডেস্ক॥ অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমের জাবাল আল-মুকাবের এলাকার কয়েকশ’ ফিলিস্তিনি শঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ আগেই ঘোষণা দিয়েছে, তারা ‘আমেরিকান রোড’ নামক রাস্তা নির্মাণের জন্য ফিলিস্তিনিদের বাড়ি-ঘর গুড়িয়ে দেবে।

বিশাল হাইওয়ে রাস্তার একাংশ আল-তৌক। ৭০ মিটার চওড়া ও ১১ কিলোমিটার দীর্ঘ এই রাস্তা পূর্ব ও পশ্চিম জেরুজালেমকে যুক্ত করেছে।

ইসরায়েল কর্তৃপক্ষ জাবাল আল-মুকাবের থেকে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনিকে উচ্ছেদের ঘোষণা দিয়েছে। উচ্ছেদের মুখোমুখি সালা এলাকার অধিবাসী মোহাম্মদ আল-সাওয়াহরা বলেন, ‘আমরা এক ভয়ের মাঝেই দিন-যাপন করছি। যেন আমরা দুই ভিন্ন জগতে বাস করছি। ফিলিস্তিনিদের বসতি যেন তৃতীয় বিশ্ব, আর জাবাল আল-মুকাবেরের ইসরায়েলি বসতি যেন প্রথম বিশ্ব। ’

ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ এক মাস আগে আল-সাওয়াহরাকে তার বাড়ি গুড়িয়ে দেওয়ার কথা জানিয়েছিল।

জাবাল আল-মুকাবের প্রতিরক্ষা কমিটির আইনজীবী রায়েদ বশির জানিয়েছেন, ওই রাস্তা নির্মাণের জন্য ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষ প্রায় ৫৭টি ফিলিস্তিনি বাড়ি গুড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে। এসব বাড়িতে প্রায় ৫০০ ফিলিস্তিনি বসবাস করেন।

তিনি কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে বলেন, ‘৩২ মিটার চওড়া রাস্তার সঙ্গে আরও ৩২ মিটার চওড়া রেলের রাস্তার কথা শুনে আমরা পুরোপুরি হতবাক হয়েছি। ওই রাস্তার ধারের সব বাড়ি-ঘর গুড়িয়ে দেওয়া হবে। ’

ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীর ও জেরুজালেমে ইসরায়েলি বসতি স্থাপন নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অবস্থান তার পূর্বসূরি বারাক ওবামার তুলনায় অনেকটাই সহনশীল। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ফিলিস্তিনি বাড়ি-ঘর গুড়িয়ে নিজেদের বসতি স্থাপনের বিষয়ে আন্তর্জাতিক নিন্দা ও চাপকেও উপেক্ষা করছে ইসরায়েল। ট্রাম্প প্রশাসনের হাতে ক্ষমতা যাওয়ার পর গত এক মাসে বেশ কয়েকটি বসতিতে কয়েক দফা নতুন করে ঘর-বাড়ি নির্মাণের প্রস্তাব অনুমোদন করেছে ইসরায়েলি সরকার। রাস্তা নির্মাণের বিষয়েও শুরু হয়েছে তৎপরতা।

উল্লেখ্য, ১৯৯০ এর দশকের শুরু থেকে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে বেশ কয়েক দফায় শান্তি আলোচনা হয়েছে। ফিলিস্তিনিরা চায় পশ্চিম তীরে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে এবং পূর্ব জেরুজালেমকে এর রাজধানী বানাতে। ১৯৬৭ সালের আরব যুদ্ধের পর থেকে ইসরায়েল পূর্ব জেরুজালেম দখল করে রেখেছে। পূর্ব জেরুজালেমকে নিজেদের অবিভাজ্য রাজধানী বলে দাবি করে থাকে ইসরায়েল। অবশ্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় পূর্ব জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি। ১৯৬৭ সালের পর পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেমে শতাধিক বসতি স্থাপন করেছে ইসরায়েল। পশ্চিম তীর এবং পূর্ব জেরুজালেমে স্থাপিত প্রায় ১৪০টি বসতিতে ৬ লাখেরও বেশি ইসরায়েলি বসবাস করে। আন্তর্জাতিক আইনের আওতায় এ বসতি স্থাপনকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হলেও ইসরায়েল তা মানতে চায় না।

সূত্র: আল-জাজিরা

শীর্ষ সংবাদ:
এমসি কলেজের ওই ছাত্রাবাসে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি         কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ আর নেই         সারাদেশে কলেজগুলোতে বহিরাগত প্রবেশ নিষেধ         করোনা ভ্যাকসিন কিনতে বাংলাদেশকে ৩ মিলিয়ন ডলার অনুদান এডিবির         বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করছেন শেখ হাসিনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         শিল্প এলাকায় শিল্পকারখানা স্থাপনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর         চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে বিকল্প দেশের পেঁয়াজ আমদানি শুরু         সমন্বিত উন্নয়নের জন্য জনবান্ধব পুলিশিংয়ের কোনো বিকল্প নেই : পুলিশ মহাপরিদর্শক         করোনা ভাইরাসে আরও ২৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৪৮৮         দেশ দুঃসময় পার করছে না, বিএনপির চরম দুঃসময় চলছে ॥ কাদের         ভারতে দৈনিক করোনাভাইরাস সংক্রমণে বড়সড় পতন ঘটেছে         এমসি’তে গণধর্ষণ ॥ কলেজ কর্তৃপক্ষের ব্যর্থতা চ্যালেঞ্জ করে রিট         নুর-মামুনদের গ্রেফতারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে স্মারকলিপি         নকল মাস্ক সরবরাহ ॥ জেএমআই চেয়ারম্যান গ্রেফতার         এমসি কলেজে গণধর্ষণ ॥ আরও ৩ জন রিমান্ডে         সুনির্দিষ্ট আশ্বাস না পেলে রাজপথ ছাড়বেন না সৌদি প্রবাসীরা         এইচএসসি পরীক্ষা গ্রহণে বোর্ডের তিন প্রস্তাব         দুই আসামির জামিন বাতিলে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট         জাহালমের ক্ষতিপূরণের রায় পিছিয়ে বুধবার         এমসি কলেজে ধর্ষণ ॥ মামলার এজাহারভুক্ত শেষ আসামি গ্রেফতার