শুক্রবার ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হিলারি হেরে গেলেন যে কারণে

যুক্তরাষ্ট্রের এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন আগের যে কোন নির্বাচনের তুলনায় ব্যতিক্রমী, সন্দেহ নেই। এটা ছিল রাজনৈতিক আভিজাত্যের বিরুদ্ধে একটি বিপ্লবের মতো। মার্কিন ভোটাররা ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের মধ্যে সেই আভিজাত্যের ছাপই দেখতে পেয়েছেন, যেখানে ভঙ্গুর রাজনীতির ছাপ রয়েছে। রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প সেই ভঙ্গুরতা ঠিক করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েই ভোট পেয়েছেন। অসংখ্য মানুষ তাকে ভোট দিয়েছে, কারণ তিনি প্রচলিত রাজনীতির বাইরে থেকে এসেছেন। খবর বিবিসির।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন এলাকায়, রাস্তায়, দোকানে সাধারণ মানুষজনের সঙ্গে কথা বলেছেন বিবিসির সংবাদদাতা নিক ব্রায়ান্ট। তিনি দেখার চেষ্টা করেছেন, কি কারণে মার্কিন ভোটাররা হিলারিকে বাদ দিয়ে ট্রাম্পকে বেছে নিয়েছেন। মার্কিন জনগণ বলেছে, তারা হোয়াইট হাউসে একজন ব্যবসায়ীকে দেখতে চান, কোন পেশাদার রাজনীতিবিদকে নয়। ওয়াশিংটনের মানুষজনের প্রতি তাদের বিরাগ অকল্পনীয়। ই-মেইল কেলেঙ্কারির কারণে হিলারির উপর মার্কিনীর বিশ্বাসের ঘাটতি আছে। এই ঘটনাটি অনেক ভোটারের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। সাধারণ আমেরিকানরা তাকে নিজেদের নয়, বরং বরাবরই এলিট গোষ্ঠীর একজন সদস্য হিসেবে দেখেছেন। ভাবা হতো যে, মার্কিন নারীরা হিলারিকেই বেছে নেবেন। কিন্তু প্রাইমারিতে বার্নি স্যান্ডারসের সঙ্গে প্রতিযোগিতার সময়ই টের পাওয়া গেছে, দেশের তরুণ নারী ভোটারদের টানতে পারা তার জন্য কতটা কঠিন। বিল ক্লিনটনের নারী কেলেঙ্কারিকে প্রশ্রয় দেয়ার অভিযোগ বা ক্লিনটনের ওই ঘটনাগুলোও হিলারির জন্য ক্ষতিকর হয়েছে। আবার অনেক পুরনো ধ্যানধারণার পুরুষ ভোটার মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে একজন নারীকে দেখতে চাননি। বিদায়ী প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও হিলারি পক্ষের অন্য নেতারা বরাবরই ফাস্ট লেডি হিসেবে তার অভিজ্ঞতা, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর অভিজ্ঞতার কথা বলেছেন। তার যোগ্যতার কথা তুলে ধরেছেন। কিন্তু মার্কিন ভোটাররা চেয়েছিলেন নতুন কাউকে। যখন অনেক তারা পরিবর্তন চাইছে, তখন হিলারি যেন পুরনো জিনিসগুলো ফিরিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। হিলারি সেøাগান ছিল, একত্রে শক্তিশালী হয়ে উঠব। অন্যদিকে ট্রাম্পের সেøাগান, আমেরিকাকে আবার শ্রেষ্ঠ করে তোলো। প্রচারের দিক থেকে ট্রাম্পের সেøাগান অনেক সুবিধা পেয়েছে। হিলারির প্রচারে অনেক কৌশলগত ক্রটি ছিল। তিনি এমন সব অঙ্গরাজ্যের উপর গুরুত্ব দিয়েছেন, যেখানে তার জয়ের দরকার ছিল না, যেমন নর্থ ক্যারোলিনা বা ওহাইও। বরং তার ওই ১৮ রাজ্যে বেশি সময় দেয়া দরকার ছিল, যারা গত ছয়টি নির্বাচন ধরে ডেমোক্র্যাটদের ভোট দিয়ে আসছে।

শীর্ষ সংবাদ:
যে অপরাধ করবে তাকেই শাস্তি পেতে হবে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ একটি মাইলফলক : সেতুমন্ত্রী         ইভিএম পদ্ধতির ভুল প্রমান করতে পারলে পুরস্কৃত করা হবে ॥ ইসি আহসান হাবিব         অভিবাসীদের জীবন বাঁচাতে প্রচেষ্টা বাড়াতে হবে         অস্ত্র মামলায় ছাত্রলীগ নেতা সাঈদী রিমান্ডে ॥ জোবায়েরের জামিন         ইসলাম বিদ্বেষ, নারী বিদ্বেষকে ঘুষি মেরে বক্সিং-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জারিন         স্ত্রীর কবরের পাশে চিরশায়িত হবেন আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী         শিগগিরই সব দলের সঙ্গে সংলাপ : সিইসি         চাঁদপুরে ট্রাক-অটোরিকশা মুখোমুখি সংঘর্ষে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দুই পরীক্ষার্থী নিহত         তীব্র জ্বালানি সংকটে শ্রীলঙ্কায় স্কুল ও অফিস বন্ধ         মঠবাড়িয়ায় যাত্রীবাহী বাস চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত, আহত ২         নগর ভবনে দরপত্র জমা দেওয়ার চেষ্টা         রাজধানীর বাজারে প্রায় সব পণ্যের দাম বৃদ্ধি         শনিবার গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়         আজ ২০ সিনেমা হলে মুক্তি পেয়েছে ‘পাপ-পুণ্য’         সারাদেশে চলছে ভোটার তালিকার হালনাগাদ         দৌলতখানে বাবা-ছেলে চেয়ারম্যান প্রার্থী         হাইকোর্টের নির্দেশে ভারতে অবৈধ ভাবে নেওয়া চাকরি হারালেন মন্ত্রী কন্যা         আফগানিস্তানে নারী উপস্থাপকদের অবশ্যই মুখ ঢাকতে হবে, নির্দেশ তালিবানের         শাহজালালে ৯৩ লাখ টাকার স্বর্ণসহ যাত্রী আটক