ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

অক্টোবর থেকে ভ্যাট নিবন্ধনের কাজ শুরু

প্রকাশিত: ০৩:৪৪, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬

অক্টোবর থেকে ভ্যাট  নিবন্ধনের কাজ শুরু

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বার বার সময় দিয়েও অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধনের কাজ শুরু করতে পারেনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। এ জন্য সব প্রস্তুতি রয়েছে দাবি করে, প্রকল্প কর্মকর্তা জানান, অক্টোবরেই নিবন্ধনের কাজ শুরু হবে। প্রথম পর্যায়ে নিবন্ধন হবে বৃহৎ করদাতা ইউনিটে অন্তর্ভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর। তবে রাজধানী ঢাকার বাইরে সব ভ্যাট অফিসে আনুষঙ্গিক সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা না হলে ২০১৭ সালের জুলাইয়ে নতুন মূসক ও সম্পূরক শুল্ক আইন বাস্তবায়ন চ্যালেঞ্জ হবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। কথা ছিল চলতি বছরের জুলাই থেকে কার্যকর হবে মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন-২০১২। তবে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি না থাকায় ব্যবসায়ীদের অনুরোধে তা এক বছর পিছিয়ে বাজেট বক্তব্যে ২০১৭ সালের জুলাইয়ে বাস্তবায়নের ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী। এদিকে নির্ধারিত সময়ে এ আইন বাস্তবায়নে প্রথম ধাপে অনলাইনে মূসক নিবন্ধন শুরু করতে যাচ্ছে এনবিআর। এর আগে এ বছরের জানুয়ারি ও আগস্টে নিবন্ধন শুরুর কথা থাকলেও তা দুই দফায় পেছানো হয়। প্রকল্প কর্মকর্তা জানান, বর্তমানে নিবন্ধিত মূসক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৮ লাখ ৪০ হাজার। এর মধ্যে রিটার্ন দাখিল করে মাত্র ৩২ হাজার। নতুন আইন বাস্তবায়ন হলে নিবন্ধিত সব প্রতিষ্ঠানকে রিটার্ন দাখিল করতে হবে। এতে কমবে মূসক ফাঁকি ও হয়রানি। ভ্যাট অনলাইনের প্রকল্প পরিচালক রেজাউল হাসান জানান, ভ্যাট খাতে মোট যে রাজস্ব আয় হয় তার ৬০ শতাংশ আসে বৃহৎ করদাতা ইউনিট থেকে। এমন ১৬০টি প্রতিষ্ঠানকে প্রথম নিবন্ধিত করার এক সপ্তাহের মধ্যে ঢাকার বাকি প্রতিষ্ঠানগুলোকেও নিবন্ধিত করা হবে বলে জানান তিনি। তবে অনলাইন নিবন্ধন ও নতুন মূসক আইন বাস্তবায়নে মাঠ পর্যায়ে বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। এক্ষেত্রে নতুন পদ্ধতি বাস্তবায়ন করতে গেলে তিনটি বিষয়ের সঠিক সমন্বয় দরকার বলে মনে করেন বৃহত করদাতা ইউনিটের কমিশনার মতিয়ার রহমান। সেগুলো হলো- পরিকাঠামো, সার্বক্ষণিক যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং পদ্ধতিটি সম্পর্কে গ্রাহকদের ভালভাবে জানা। এদিকে এ আইন বাস্তবায়নে এনবিআরের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করার কথা জানায় এফবিসিসিআই। তবে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের স্বার্থে আরও ২-৩ বছর প্যাকেজ ভ্যাট বহাল রাখার অনুরোধ করেন সংস্থাটির সভাপতি মাতলুব আহমাদ। নতুন আইনে কেন্দ্রীয়ভাবে নিবন্ধন করতে হবে সব প্রতিষ্ঠানকে। এর পর ৯ ডিজিটের নতুন নম্বর পাবে করদাতারা।
monarchmart
monarchmart