ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

এসএ গেমস হকি, অনুশীলন চলছে জাতীয় দলের

বাংলাদেশের লক্ষ্য ফাইনালে খেলা

প্রকাশিত: ০৪:৪২, ২৪ জানুয়ারি ২০১৬

বাংলাদেশের লক্ষ্য ফাইনালে খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ এসএ গেমসকে সামনে রেখে চূড়ান্ত দল ঘোষণার পরই অনুশীলন শুরু করেছে জাতীয় হকি দল। মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে কোচ মাহবুব হারুনের অধীনে অনুশীলন করে জাহিদ-সারোয়াররা। সকাল-বিকেল দুই বেলা ঘাম ঝরায় হকি দল। সম্প্রতি হকি খেলোয়াড়দের পারফর্মেন্সের ভিত্তিতেই দলগঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোচ। আর এসএ গেমসে ফাইনাল খেলার লক্ষ্যের কথা জানিয়েছেন দলের অধিনায়ক। ‘দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক’ খ্যাত এসএ গেমস হকিতে বাংলাদেশের সাফল্য তাম্রপদকের মাঝেই সীমাবদ্ধ। তবে এবারের আসরে সাফল্যের পাল্লা ভারি করার লক্ষ্যে দীর্ঘ আড়াই মাসের ক্যাম্পের পর ঘোষণা করা হয় ১৮ সদস্যের দল। যাতে নেই অভিজ্ঞ চয়ন ও রানা। ২০০৬ সালে জাতীয় দলে ডাক পাওয়ার পর এই প্রথম দল থেকে বাদ পড়েছেন চয়ন। খেলার চেয়ে মাঠের বাইরের ঘটনা দিয়ে ২০১৫ সালে আলোচিত ছিল দেশের হকি। তাইতে, নতুন বছরের শুরুতেই জাতীয় দলের এই অনুশীলনের মধ্য দিয়ে হকি মাঠে যেন আবারও এসেছে প্রাণের সঞ্চার। আসন্ন এসএ গেমসে দল ভাল করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন দলের নতুন অধিনায়ক সারোয়ার হোসেন। জানালেন ফাইনালের লক্ষ্য নিয়েই এসএ গেমসে যাত্রা করবে তার দল। সম্প্রতি খেলোয়াড়দের পারফর্মেন্সের ওপর ভিত্তি করেই দলগঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোচ মাহবুব হারুন, ‘পরিকল্পনা মতো খেলতে পারলে এসএ গেমসে ভাল ফল সম্ভব।’ উল্লেখ্য, আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি ভারতে বসবে এসএ গেমসের দ্বাদশ আসর। এবারের জাতীয় দলে আছেন ১৮ খেলোয়াড় এবং ৪ স্ট্যান্ডবাই খেলোয়াড়। বাংলাদেশ হকি দলের দীর্ঘদিনের নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার, সাবেক অধিনায়ক ও ‘পেনাল্টি কর্নার’ স্পেশালিস্ট মামুনুর রহমান চয়নের ঠাঁই হয়নি জাতীয় দলে। এছাড়া নতুন অধিনায়ক হিসেবে নির্বাচন করা হয় মিডফিল্ডার সারোয়ার হোসেনকে। প্রায় দুই মাস ধরে অনুশীলন করছে ৩০ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াড। চয়ন নিয়মতিই দলের সঙ্গে ছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত থাকতে পারেননি চূড়ান্ত দলে। কারণ ফিটনেসের অভাব এবং পেনাল্টি কর্নারে দক্ষতার হারিয়ে ফেলা। ২০১০ সালে নিজ দেশে অনুষ্ঠিত এসএ গেমসে স্বাগতিক বাংলাদেশ তাম্রপদক অর্জন করেছিল। সোনা এবং রূপা জিতেছিল যথাক্রমে পাকিস্তান ও ভারত।