ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

পর্যায় সারণিতে নতুন চার মৌল

প্রকাশিত: ০৪:২৩, ২২ জানুয়ারি ২০১৬

পর্যায় সারণিতে নতুন চার মৌল

পর্যায় সারণি বিজ্ঞানের অন্যতম মৌলিক জ্ঞানের বিষয়বস্তুতে পরিবর্তন হিসেবে পর্যায় সারণিতে যুক্ত হচ্ছে নতুন চারটি মৌল। মৌল ১১৩, ১১৫, ১১৭ ও ১১৮ যুক্ত হবে পর্যায় সারণির ৭ নম্বর সারিতে। এতে ওই সারি পূর্ণ হবে। আবিষ্কৃত মৌলগুলোকে তাদের ধর্মের ওপর ভিত্তি করে এবং সাদৃশ্যপূর্ণ ধর্মবিশিষ্ট মৌলসমূহকে একই পর্যায়ের অন্তর্ভুক্ত করে যে একটি সারণি তৈরি করা হয়েছে, তাকে পর্যায় সারণি নামে অভিহিত করা হয়। ২০১১ সালে ১১৪ ও ১১৬ মৌল দুটি যোগ হওয়ার পর এবারে চারটি উপাদান পর্যায় সারণিতে স্থান পাচ্ছে। এই মৌলগুলোর স্থায়ী নাম দিতে পৌরাণিক নাম, ধাতব নাম, স্থান বা দেশের নাম বা কোন বিজ্ঞানীর নাম ব্যবহার করা হতে পারে। সেই নামের সংক্ষিপ্ত রূপ পর্যায় সারণিতে স্থান পাবে। বর্তমানে এই মৌলগুলো তার সংখ্যা অনুযায়ী পরিচিত। ১১৩তম মৌলকে বলা হচ্ছে আনআনট্রিয়াম, যার প্রতীক হচ্ছে ইউইউটি। ১১৫ মৌলটিকে বলা হচ্ছে আনআনপেনটিয়াম বা ইউইউপি, ১১৭ মৌলটিকে বলা হচ্ছে আনআনসেপটিয়াম বা ইউইউএস ও ১১৮তম মৌলটিকে বলা হচ্ছে আনআনঅকটিয়াম বা ইউইউও। গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন অব পিউর এ্যান্ড এ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রির গবেষকরা এই মৌলগুলোকে সারণিতে রাখার পক্ষে মত দেন। তবে ওই মৌলগুলোর এখনও কোন স্বীকৃত নাম বা প্রতীক গৃহীত হয়নি। নতুন এই মৌলগুলো জাপান, রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকরা তৈরি করেছেন। তারাই এগুলোর নামকরণ করবেন। নতুন এই মৌলগুলো মানুষের তৈরি। এই ভারি ধাতব মৌলগুলো তৈরিতে ২০০৪ সাল থেকে কাজ করছেন গবেষকরা। জাপানের গবেষণা প্রতিষ্ঠান রিকেনের গবেষক রয়োজি নয়োরি বলেন, বিজ্ঞানীদের জন্য এই মৌল আবিষ্কার ও পর্যায় সারণিতে স্থান পাওয়ার ঘটনা অলিম্পিকে স্বর্ণপদক জেতার চেয়েও মূল্যবান। সূত্র : সায়েন্স ডেইলি
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২