মঙ্গলবার ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

বদর প্রধান নিজামীর আপীলের রায় বুধবার

বদর প্রধান নিজামীর আপীলের রায়  বুধবার

বিকাশ দত্ত ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ট্রাইব্যুনালে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত বদর বাহিনীর তৃতীয় শীর্ষ নেতা তৎকালীন ইসলামী ছাত্রসংঘের সাধারণ সম্পাদক, চট্টগ্রামের বাঙালী খান, জামায়াতে ইসলামী নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাশেম আলীর পালা। অন্যদিকে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর আপীল মামলার রায় ঘোষণা করা হবে বুধবার। জামায়াতের নায়েবে আমির সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদ-ের রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে যাওয়ার পর তা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মীর কাশেমের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনালের দেয়া মৃত্যুদ-ের খালাস চেয়ে আনা আপীলের চূড়ান্ত নিষ্পত্তির জন্য শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে। সুপ্রীমকোর্টের কার্যতালিকায় উঠলেই মামলাটির শুনানি শুরু হবে। কাদের মোল্লা, কামারুজ্জামান, সাঈদী, মুজাহিদ ও সাকা চৌধুরীর আপীল নিষ্পত্তি হয়েছে। আদালত সূত্র জানায়, মৃত্যুদ- রায়ের বিরুদ্ধে জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর আপীল মামলায় সারসংক্ষেপ জমা দিতে রাষ্ট্রপক্ষকে দুই সপ্তাহ সময় দিয়েছে সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপীল বিভাগের বেঞ্চ গত ১৮ আগস্ট এ আদেশ দেন। এর আগে আদালতের আদেশ অনুযায়ী আসামিপক্ষ আপীলের সারসংক্ষেপ জমা দেয়। সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় মীর কাশেম আলীর পক্ষে এ্যাডভোকেট অন রেকর্ড জয়নুল আবেদীন তুহিন ২০১৪ সালের ৩০ নবেম্বর এ আপীল দায়ের করেন। আইনজীবী শিশির মোহাম্মদ মনির জানান, মীর কাশেম আলীর পক্ষে ১৮১ গ্রাউন্ডে মৃত্যুদ- থেকে খালাস চেয়ে এ আপীল করা হয়। দেড় শ’ পৃষ্ঠার মূল আপীলসহ ৫ ভলিয়মে ১ হাজার ৭৫০ পৃষ্ঠায় বিভিন্ন ডকুমেন্ট পেশ করা হয়েছে।

২০১৪ সালের ২ নবেম্বর মীর কাশেম আলীকে মৃত্যুদ- দিয়ে রায় ঘোষণা করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। মীর কাশেম আলীর বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ১৪ অভিযোগের মধ্যে হত্যা, অপহরণ নির্যাতনের ১০ অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। দুই অভিযোগের মধ্যে একটিতে সর্বসম্মতিতে আরেকটিতে সংখ্যাগরিষ্ঠের মতামতের ভিত্তিতে তাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদ- কার্যকরের আদেশ দেয়া হয়। অপর ৮ অভিযোগে সর্বমোট ৭২ বছর করাদ- দেয়া হয়েছে। বাকি চার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে খালাস দেয়া হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের এ মামলায় ট্রাইব্যুনালের আদেশে ২০১২ সালের ১৭ জুন মীর কাসেম আলীকে গ্রেফতার করা হয়। সেই থেকে তিনি কারাগারে রয়েছেন। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ট্রাইব্যুনালে দেয়া রায়ের বিরুদ্ধে আনা আরও ৮ মামলা আপীল বিভাগে শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে। শুনানির অপেক্ষায় থাকা মামলার আসামিরা হলেনÑ জামায়াত নেতা এটিএম আজহারুল ইসলাম ও আব্দুস সুবহান, আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা মোবারক হোসেন, জাতীয় পার্টির সাবেক নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার, পিরোজপুরের সাবেক এমপি (পলাতক) ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বার, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মাহিদুর রহমান এবং বাগেরহাটের খান আকরাম হোসেন।

এছাড়াও ট্রাইব্যুনালে দেয়া মৃত্যুদ-প্রাপ্ত জামায়াতের আমির ও সাবেক মন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামীর আনা আপীলের শুনানি শেষ হয়েছে। আগামী ৬ জানুয়ারি (বুধবার) রায় ঘোষণার দিন ধার্য রয়েছে। আপীলের আরেক রায়ে জামায়াতের নায়েবে আমির সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদ- দেয়া হয়েছে। যে রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি প্রকাশ পেয়েছে ৩১ ডিসেম্বর। এদিকে সাঈদীর আপীলের পূর্ণাঙ্গ রায়ের সার্টিফায়েড কপি হাতে পাওয়ার পর নিয়ম অনুযায়ী (১৫ দিনের মধ্যে) মৃত্যুদ- চেয়ে রিভিউ আবেদন করা হবে বলে জানিয়েছেন এ্যাটর্নি জেনারেল।

সাঈদী ॥ যুদ্ধাপরাধ মামলায় জামায়াত নেতা সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদ-ের রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল থেকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার শহীদুল আলম ঝিনুক জনকণ্ঠকে জানান, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করতে ট্রাইব্যুনাল থেকে তা কারা কর্তৃপক্ষ ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছেও পাঠানো হয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০১৩ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সাঈদীকে মৃত্যুদ- দিয়েছিল। ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপীলের শুনানি শেষে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর আপীল বিভাগ সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করে। সংখ্যাগরিষ্ঠ মতের এ রায়ে সাঈদীর আমৃত্যু কারাদ- হয়। এরপর গত ৩১ ডিসেম্বর আপীল বিভাগ ৬১৪ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করে।

পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর এখন আইনী লড়াইয়ের শেষধাপে রিভিউর সুযোগ রয়েছে। এজন্য উভয়পক্ষ ১৫ দিন সময় পাবে। এ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয় থেকে জানা গেছে, অনুলিপির সত্যায়িত কপি পেলেই রাষ্ট্রপক্ষ সর্বোচ্চ আদালতের ওই রায় পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করবে। আসামিপক্ষও বলেছে, রায়ের অনুলিপি পেলে পর্যালোচনা করে তারা পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে।

নিজামী ॥ একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধে ট্রাইব্যুনাল মৃত্যুদ-প্রাপ্ত জামায়াত নেতা আলবদর প্রধান মতিউর রহমান নিজামীর আপীলের যুক্তিতর্ক শেষ হয়েছে। ৮ ডিসেম্বর শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য ৬ জানুয়ারি দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে চার সদস্যবিশিষ্ট আপীল বেঞ্চ এ আদেশ প্রদান করেছেন। বুদ্ধিজীবী গণহত্যা, হত্যা, ধর্ষণ, লুণ্ঠন, সম্পত্তি ধ্বংস, দেশত্যাগে বাধ্য করা, আটক, নির্যাতনসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ষড়যন্ত্র ও অপরাধ সংঘটনে সহযোগিতার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর নিজামীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদ-ের রায় দেয় ট্রাইব্যুনাল-১। পরে রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালের ২৩ নবেম্বর আপীল করা হয়।

শীর্ষ সংবাদ: