সোমবার ২২ আষাঢ় ১৪২৭, ০৬ জুলাই ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সিআইএতে নাৎসি গোয়েন্দা

সোভিয়েতের বিরুদ্ধে চর হিসেবে তাদের কাজে লাগানো হয়েছে

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এবং অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অন্তত এক হাজার নাৎসিকে গুপ্তচরবৃত্তির কাজে লাগিয়েছে। ১৯৯০ এর দশক পর্যন্ত এই ধারা অব্যাহত ছিল। পরিচয় গোপন রেখে এখনও অনেক নাৎসি সেখানে বাস করছেন। খবর ইন্টারন্যাশনাল নিউইয়র্ক টাইমসের।

সম্প্রতি প্রকাশিত মার্কিন গোপন নথি থেকে জানা গেছে, সোভিয়েত ইউনিয়নের বিরুদ্ধে গোয়েন্দাগিরি করতে হিটলারের অনুগামী নাৎসিদের ব্যবহারের বিষয়টি এফবিআই ও সিআইএর সাবেক কর্মকর্তারা অনুমোদন করেছিলেন। এফবিআইয়ের জে এডগার হুভার ও সিআইএর এ্যালেন ডুলেস কর্মকর্তারা ব্যাপকহারে গোয়েন্দা বাহিনীতে নাৎসিদের ঢুকিয়েছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সে সময় গুপ্তচর হিসাবে অন্তত এক হাজার সাবেক নাৎসিকে কাজে লাগিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। প্রতিপক্ষ সোভিয়েত ইউনিয়নকে কোণঠাসা করতে তারা এ কাজ করেন। মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা ধারণা করেছিলেন, হিটলারের শাসনামলে গোয়েন্দা বাহিনীতে কাজ করা নাৎসি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ বা হিটলার পরবর্তী জার্মানিতে মনোবল সঙ্কটে ভুগছিলেন। এদেও কেউ কেউ নাৎসি বাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের নেতা ছিলেন। ইউরোপে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির জন্য সিআইএ এদের যুৎসই মনে করেছিল। হিটলারের আমলে নাৎসি গোপন আধাসামরিক বাহিনী এসএসের কর্মকর্তা অটো ফন বলশভিংয়ের দায়িত্ব ছিল ইহুদিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ানোর কৌশল ঠিক করা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর তাকে সিআইএ তাকে ইউরোপে গুপ্তচর হিসাবে নিয়োগ দেয়। কেবল অটো ভনকে নয় তার ছেলে গুস ভনকেও যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠিত হতে সহায়তা করেছিল। তার কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৫০ সালে বলশভিং ও তার পরিবারকে নিউইয়র্কে পুনর্বাসিত করে সিআইএ। লিথুয়ানিয়ায় হাজার হাজার ইহুদি হত্যার সঙ্গে জড়িত নাৎসি ‘দালাল’ আলেকসান্দ্রাস লিলেইকিসকে পূর্ব জার্মানিতে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে গুপ্তচরবৃত্তির কাজে নিয়োগ দেয়া হয়। পরে তাকে পুনর্বাসিত করা হয় বস্টনে। লিলেইকিসের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের তদন্ত চলার সময় সিআইএ তাতে হস্তক্ষেপ করে। তাকে বিচার থেকে অব্যাহতি দেয়ার জন্য ১৯৯৪ সালে সিআইএর ঘনিষ্ঠ একজন আইনজীবী বিচারকদের ওপর চাপ প্রয়োগ করেছিলেন। ১৯৬০ ইসরাইলী গোয়েন্দা এজেন্টরা আইখম্যানকে যখন আর্জেন্টিনা থেকে আটক করে তখন অটো ভন সিআইএর কাছে সাহায্য চেয়েছিলেন। কারণ অটো ভন এই ভেবে শঙ্কিত ছিলেন যে আইখম্যান যদি তার পরিচয় ফাঁস করে দেন। শীতল যুদ্ধ যুগের অবিশ্বাস ও আতঙ্কের পটভূমিতে নাৎসি প্রতিভাগুলো কাজে লাগানোর চেষ্টা করে যুক্তরাষ্ট্র। গুপ্তচর হিসাবে নিয়োগ দিয়েই ক্ষ্যান্ত হননি সিআইএর সাবেক কর্মকর্তারা সোভিয়েত ইউনিয়ন তাদের বিরুদ্ধে যেসব যুদ্ধকালীন অপরাধের অভিযোগ এনেছিল সেগুলোও তিনি বাতিল করে দিয়েছিলেন।

সিআইএ যে নাৎসিদের আশ্রয়স্থল হয়ে উঠছে ১৯৭০ এর দশকে এসব খবর প্রথম প্রকাশিত হতে থাকে। কিন্তু হালে জানা গেছে, মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগে নাৎসিদের নিয়োগ করা হয়েছিল অত্যন্ত ব্যাপকভাবে। আগে কেবল এ বিষয়ে ভাসাভাসা জানা সম্ভব হয়েছিল। তথ্য অধিকার আইন, বিভিন্ন গবেষকদের তথ্যানুসন্ধান, সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতকার থেকে এসব জানা গেছে। ১৯৮০ সালে একবার সাবেক ১৬ জন নাৎসি বিচারের মুখোমুখি হলে এফবিআইয়ের কর্মকর্তারা হস্তক্ষেপ করে তাদের বিচার ঠেকিয়ে দেন। মার্কিন বিচার বিভাগকে তারা সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, কোন নাৎসি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন কী না সে বিষয়ে তারা কিছু জানেন না।

শীর্ষ সংবাদ:
নাফ নদীর তীরে বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ২ রোহিঙ্গা নিহত         রাজধানীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ ছিনতাইকারী নিহত         সমুদ্রে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত         এবার চীনে প্লেগ ॥ মহামারির শঙ্কায় সতর্কতা জারি         প্রতিরক্ষা সচিব হলেন মোস্তফা কামাল         করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বলিভিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী         হজে এবার কাবা স্পর্শ করা নিষিদ্ধ         জাপানে বন্যা ও ভূমিধস, অন্তত ২০ জনের মৃত্যু         পারমাণবিক কেন্দ্রে দুর্ঘটনায় ক্ষয়ক্ষতির কথা জানাল ইরান         অসম-মেঘালয়ে ভারি বৃষ্টি ও ঢলের তীব্রতা বৃদ্ধি, বন্যার অবনতি হতে পারে         লকডাউনে সাড়া নেই ওয়ারীবাসীর         চ্যালেঞ্জে কর্মসংস্থান ॥ করোনায় ব্যবসা বাণিজ্য স্থবির         খাদ্যের মাধ্যমে করোনা ছড়ায় না         মিটার না দেখে আর বিল করবে না বিদ্যুত বিতরণ কোম্পানি         বিশ্বে পর পর দুদিন দুই লাখ করে করোনা রোগী শনাক্ত         বিদেশী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম করের আওতায় আনা হবে         জঙ্গী নির্মূলে বিশ্বে রোল মডেল বাংলাদেশ         ফের আলোচনায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিট         বেনাপোল-পেট্রাপোল সচল ॥ অবশেষে ভারতে পণ্য রফতানি শুরু         কম শিল্পী, স্পর্শহীন অভিনয়- তবুও চ্যালেঞ্জ গ্রহণ        
//--BID Records