ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

দৌলতদিয়া ঘাট

যাত্রী ও যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাজবাড়ী

প্রকাশিত: ২২:৪২, ২০ জুন ২০২৪

যাত্রী ও যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ

দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের অতিরিক্ত চাপে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা

ঈদের ছুটি শেষে কর্মমুখী হতে শুরু করেছে দক্ষিণ-পশ্চিঞ্চলের সাধারণ মানুষ। এতে দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ রয়েছে। তবে দুর্ভোগ নেই যানবাহন চালক ও যাত্রীদের। অতিরিক্ত সময় ব্যয় হলেও দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাটে যাত্রী ও যানবাহন চালকরা সহজে নদী পার হয়ে গৌন্তব্য স্থানে চলে যাচ্ছে। বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দৌলতদিয়া লঞ্চ ও ফেরি ঘাট এলাকা সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় এবং ঘাট সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে মহাসড়কের প্রায় দেড় কিলোমিটার যাত্রীবাহী পরিবহন ফেরি পারের অপেক্ষায় রয়েছে। এ সময় লঞ্চ ও ফেরিতে অতিরিক্ত যাত্রী দেখা যায় কর্মমুখী হচ্ছে।

যানবাহনের এক-দুই কিলোমিটার লম্বা সারি থাকলেও চালক ও যাত্রীদের মধ্যে অস্বস্তি দেখা যায়নি। লঞ্চেও অতিরিক্ত যাত্রী দেখা যায়নি। নিয়মিত যাত্রীর তুলনায় লঞ্চ ঘাটে অতিরিক্ত কর্মমুখী যাত্রী দেখা যায়। লঞ্চ ফেরি ঘাটে নিরাপদের চাদরে রয়েছে। 
একাধিক যাত্রীবাহী যানবাহনের চালক বলেন, পদ্মা সেতু দিয়ে যানবাহন নদী পার হওয়ার পূর্বে দৌলতদিয়া ঘাটে দেখেছি দুর্ভোগ। সেই তুলনায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে এখন কোনো দুর্ভোগ নেই।

অতিরিক্ত কিছু সময় ব্যয় হলেও দুর্ভোগ মুক্ত হয়ে গৌন্তব্য স্থানে সহজে যাওয়া যায়। একাধিক যাত্রী বলেন, লঞ্চ ও ফেরি ঘাটের পূর্বের মত দুর্ভোগ চোখে পরে না। এখন দৌলতদিয়া ঘাটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ফেরি পারের জন্য অপেক্ষা করতে হয় না। তবে ঈদ শেষে অনেকে কর্মমুখী হওয়ার কারণে দৌলতদিয়া ঘাটে যাত্রীদের কিছুটা চাপ রয়েছে।

দৌলতদিয়া লঞ্চ ঘাটের ম্যানেজার নুরুল আনোয়ার মিলন বলেন, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া এবং আরিচা-কাজিরহাট নৌরুটে মোট ৩৩টি ছোট-বড় লঞ্চ চলাচল করে। তিনি বলেন, লঞ্চ ঘাটে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এর নিজস্ব লোক পল্টুনেও সার্বক্ষণিক অবস্থান করে। সুতরাং অতিরিক্ত ভাড়া ও যাত্রী নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।  

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ম্যানেজার (বাণিজ্যে) সালাউদ্দিন জানান, ঈদের ছুটি শেষে কর্মমুখী হচ্ছে অনেক যাত্রী। যে কারণে যানবাহন ও যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপ হওয়ায় দৌলতদিয়া ঘাটে প্রায় শতাধিক যাত্রীবাহী পরিবহন নদী পারের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে যানবাহন নদী পারাপারে কোনো সমস্যা হচ্ছে না। তিনি জানান এই নৌরুটে বর্তমান ছোট বড় ১৮টি ফেরি চলাচল করছে।

×