ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

দর্শনার্থীদের সমাগমে মুখর ইছামতি মেলা

​​​​​​​নিজস্ব সংবাদদাতা, মীরসরাই, চট্টগ্রাম

প্রকাশিত: ২১:৫২, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

দর্শনার্থীদের সমাগমে মুখর ইছামতি মেলা

মেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়

মীরসরাইয়ের জোরারগঞ্জে ২শবছরের পুরনো ঐতিহ্যবাহী ইছামতি মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার এই গ্রামীণ বৈশাখী মেলা উপলক্ষে হাজার হাজার দর্শনার্থীর সমাগমে মুখরিত হয় মেলা প্রাঙ্গণ। বাংলা মাসের বৈশাখ প্রতি বছর মেলাকে ঘিরে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শতাধিক দোকানি বিভিন্ন পণ্যের পসরা নিয়ে আসেন। গ্রামীণ ঐতিহ্য ধরে রাখতে ক্রেতাদের মন আকৃষ্ট করতে মৃৎ শিল্পীরা মাটির বিভিন্ন খেলনা, হস্তশিল্পীরা বাঁশ, বেত, কাঠ, লোহা, শঙ্খের তৈরি বিভিন্ন পণ্যের পসরা নিয়ে এসেছেন মেলায়। মেলায় উঠেছে বিভিন্ন খেলনা, খাবার নিত্যপ্রয়োজনীয় আসবাবপত্রের দোকানও।

জানা গেছে, দুইশবছরের পুরনো সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ইছামতি দেবীর মন্দিরে প্রতিবছর পূজা উৎসব হয়। এই উৎসবকে ঘিরে মন্দির সংলগ্ন জমিতে মেলা বসে। পর্যায়ক্রমে এই মেলায় সব ধর্মাবলম্বীদের উপস্থিতিতে সর্বজনীনতা লাভ করেছে। বিভিন্ন বাদ্যযন্ত্রের শব্দে পুরো মেলা প্রাঙ্গণে এক উৎসবের পরিবেশ সৃষ্টি হয়। প্রায় সব ধর্মের লোকের সমাগম ঘটে মেলায়। সারাদিন চলে পূজা অর্চনা। মেলায় দেশ- বিদেশের হাজার হাজার দর্শনার্থী ছুটে আসে। অনেকে মানত করে মন্দিরের পাশে অবস্থিত বটগাছের গায়ে সুতা জড়িয়ে দেয়। মেলা উপলক্ষে মন্দির মেলা কমিটি সাজসজ্জা থেকে শুরু করে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে। মেলার পরদিন চতুষ্প্রহরব্যাপী নামসংকীর্তন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান মেলা কমিটির তত্ত্বাবধায়ক কালু কুমার দে।

মেলায় কুমিল্লার পদুয়া থেকে আসা দোকানি মৃৎশিল্পী পরিমল চন্দ্র পাল বলেন, ঐতিহ্যবাহী ইছামতির মেলায় আমি প্রতিবছর বিভিন্ন মাটির তৈরি জিনিস নিয়ে আসি। বিকিকিনি শেষে ভালোই লাভ হয়।

মেলায় ঘুরতে আসা গৃহবধূ নীলাম্বরী মজুমদার গৃহবধূ রুমা দে জানান, বৈশাখ মানেই বাঙালির প্রাণের উৎসব। বর্ষবরণের পাশাপাশি উৎসবকে পরিপূর্ণতা দেয় বৈশাখী মেলা। প্রতিবছর বৈশাখে ইছামতির মেলা বাঙালির ঐতিহ্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়।

মেলা কমিটির তত্ত্বাবধায়ক কালু কুমার দে বলেন, ‘আমাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতি সভ্যতার একটি অংশ বৈশাখ। বৈশাখে অনুষ্ঠিত ইছামতির মেলাও সেই ঐতিহ্যের অংশ। যেখানে ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে সকলের উপস্থিতি জানান দেয় আমরা বাঙালি।

ইছামতি মেলা পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক সুমন দত্ত সদস্য মিন্টু কুমার পাল বলেন, দুইশ বছরের পুরনো ঐতিহ্যবাহী ইছামতির মেলায় বলী খেলা, পালাগান আসরগান হলেও বর্তমানে হয় না। তবে বাঙালির ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে আগামীতে আরও সুপরিসরে মেলা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান তারা।

ঘিওরে বৈশাখী মেলা শুরু

নিজস্ব সংবাদদাতা, ঘিওর, মানিকগঞ্জ থেকে জানান, ঘিওর উপজেলার বাষ্টিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে নবজীবন ক্লাবের উদ্যোগে  দিনব্যাপী ১৯তম বৈশাখী মেলা শুক্রবার বিকেলে উদ্বোধন করা হয়েছে।

সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ন্ডলীর সদস্য সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ (এস এম জাহিদ) অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

মেলা কমিটির আহ্বায়ক আমজাদ দেওয়ানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ঘিওর উপজেলা চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আতাউর রহমান জানু দরজী, বালিয়াখোড়া ইউপি চেয়ারম্যান আওয়াল খান, ঘিওর  ইউপি চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম টুটুল, বালিয়াখোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাপ খান, আব্দুল মোন্নাফ খান, রাসেল মাহমুদ মেলা কমিটির সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান প্রমুখ।

×