ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

তামাক ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড

 নিজস্ব সংবাদদাতা, মেহেরপুর 

প্রকাশিত: ১৯:৪৪, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

তামাক ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদন্ড

দন্ডপ্রাপ্ত আসামি

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার লক্ষিনারায়ণপুর ধলা গ্রামের তামাক ব্যবসায়ী এনামুল হক ওরফে নইলো (৪০) হত্যাকান্ডের ঘটনায় গাংনী উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আতিয়ার রহমানসহ আট জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে মেহেরপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ এ দন্ডাদেশ ঘোষণা করেন।

দন্ডিতরা হচ্ছে- গাংনী উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি ও লক্ষিনারায়ণপুর ধলা গ্রামের আতিয়ার রহমান, একই গ্রামের ছামিদুল ইসলাম, সাহার আলী, টিপু সুলতান, আব্দুল খালেক, আক্তারুজ্জামান, আব্দুল মান্নান ও জিল্লুর রহমান।
 
আদালত সুত্রে জানা গেছে, বিজ্ঞ আদালত এ মামলায় ১৫ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন। বিজ্ঞ আদালত আসামিদেরকে দন্ডবিধির ৩০৭ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দেন। একই সাথে প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড এবং অনাদায়ে আরও ছয় মাস করে কারাদন্ডের আদেশ দেন। রায় ঘোষণাকালে আট জন আসামিই আদালতে উপস্থিত ছিল। তাদেরকে মেহেরপুর জেলা কারাগারে প্ররন করা হয়েছে ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গাংনী উপজেলার লক্ষিনারায়ণপুর ধলা গ্রামের সাবেক মেম্বর ও কৃষক লীগ নেতা আতিয়ার রহমান এবং বর্তমান মেম্বর আজমাইন হোসেন টুটুল পক্ষের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পূর্ব বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে ২০১৭ সালের ২৯ জুলাই সন্ধ্যায় বাড়ির পার্শ্ববর্তী নওপাড়া গ্রামের ঈদগাহের পাশে আজমাইন হোসেন টুটুলের ভাই এনামুল হক নইলোকে (৪০) কুপিয়ে নৃংশসভাবে হত্যা করা হয়। 

এ ঘটনায় আতিয়ার রহমানকে প্রধান আসামি করে গাংনী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের ভাই আজমাইন হোসেন টুটুল। গাংনী থানা পুলিশ তদন্ত শেষে এজাহারভুক্ত আসামিদের নামে চুড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেন। মামলায় পরিচালনায় রাষ্ট্রপক্ষে পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) পল্লব ভট্টাচার্য এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাড. একেএম শফিকুল আলম।

 

এমএস

সম্পর্কিত বিষয়:

×