১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৫ ফাল্গুন ১৪২৬, সোমবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

সমন্বয়হীন খোঁড়াখুঁড়ি

প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারী ২০২০
  • সাধন সরকার

ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িতে নগরবাসীর জীবন বিষিয়ে উঠেছে। শহরের বিভিন্ন অলি-গলি ও গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কগুলোতে বর্ষা মৌসুম থেকে খোঁড়াখুঁড়ি শুরু হয়েছে, যা এখনও চলছে এবং এটা প্রায় বছরব্যাপী চলমান থাকে। প্রত্যেক অর্থবছর তথা পুরো বছরই এমন খোঁড়াখুঁড়ি দেখা যায়। বিশেষ করে ভরা বর্ষার সময়েও এমনটা পুরোদমে চলে। ফলে গাড়ি তো চলা দূরের কথা, কোন কোন সড়কে হেঁটে চলতেও সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে অলি-গলি বা সড়কে ফুটপাথ সংস্কার, নালা সংস্কার, রাস্তা সংস্কার, গ্যাসের লাইন বসানো, পানির পাইপলাইন বসানোর কাজসহ নানা ধরনের কাজ করা হয়। রাজধানীর দুই সিটি কর্পোরেশনের কোন কোন এলাকায় প্রায় আট-নয় মাস ধরে রাস্তা সংস্কার ও পানির পাইপ বসানোর কাজ চললেও এখনও তা কাজ শেষ করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। আবার কোন কোন এলাকায় পানির লাইনে পাইপ বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। বেশকিছু এলাকায় মাসের পর মাস শুধু রাস্তা খুঁড়ে রাখা হয়েছে। এসব এলাকায় খুবই ধীর গতিতে কাজ করা হচ্ছে। অনেক এলাকায় নালা সংস্কার করতে গিয়ে পানির পাইপলাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় নগরবাসীকে পানি সমস্যায় ভুগতে হচ্ছে। এখন শীত মৌসুমেও রাস্তা খোঁড়াখুঁড়িতে স্কুলগামী খুদে শিক্ষার্থী, প্রতিবন্ধী, অসুস্থ মানুষ, নারী-পুরুষ সবাইকে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

প্রকৃতপক্ষে, বিভিন্ন সময় সড়ক খোঁড়াখুঁড়ির বিষয়ে নীতিমালা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। অনেক সময় নগরবাসীর দুর্ভোগ কমাতে রমজান মাসে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি বন্ধ রাখার নির্দেশ দিলেও তা মানা হয় না। আবার ভরা বর্ষা মৌসুমে খোঁড়াখুঁড়িতে জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছালেও তাতে যেন কর্তৃপক্ষের কিছু আসে যায় না! ঢাকা শহরের অলি-গলি রাস্তাঘাট এমনিতেই ছোট, তার ওপর আবার মেট্রোরেলের কাজের কারণে যানজটে প্রায়ই ভুগতে হচ্ছে নগরবাসীকে! শুধু এ বছর নয়, ঢাকা শহরে প্রায় প্রতিবছর সমন্বয়হীন রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করতে দেখা যায়। জনদুর্ভোগের বিষয়টি বরাবরই উপেক্ষিত থাকে! রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে শুকনো সময়ে ধুলোবালি আর বর্ষা হলে একপাশে রাখা কর্দমাক্ত মাটির সঙ্গে পানি-কাদা একাকার হয়ে যায়। অনেক রাস্তায় পাইপলাইন বসানো হলেও রাস্তাগুলো এখনও মেরামত করা হচ্ছে না। খোঁড়াখুঁড়িতে একপাশের রাস্তা বন্ধ থাকায় পথচারী ও যানবাহন চলাচলে বড় ধরনের সমস্যা হচ্ছে। ফলে সৃষ্টি হচ্ছে অসহনীয় যানজটের। রাজধানীর বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থার মধ্যে সমন্বয়হীনতার অভিযোগ বহু পুরনো। যা হোক, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উন্নয়ন কাজ শেষ করার প্রতি কর্তৃপক্ষকে গুরুত্বারোপ করতে হবে। পরিকল্পনা আর সমন্বয় করে কাজ করলে জনদুর্ভোগ কমে আসবে বলে মনে করি।

সূত্রাপুর, ঢাকা থেকে

প্রকাশিত : ২৩ জানুয়ারী ২০২০

২৩/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: