২০ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬, বৃহস্পতিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

খেলায় চার বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ যে কোন আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা থেকে রাশিয়াকে চার বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বিশ্বের ডোপিং বিরোধী সংস্থা (ওয়াডা)। সোমবার সুইজারল্যান্ডের লজানে ওয়াডার কার্যনির্বাহী কমিটি সর্বসম্মতক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে ২০২০ সালে টোকিও অলিম্পিক, ২০২২ সালে শীতকালীন অলিম্পিক এবং একই বছরে অনুষ্ঠিত কাতার বিশ্বকাপেও খেলতে পারবে না রাশিয়া।

তবে যে সব এ্যাথলেট ব্যক্তিগতভাবে ডোপ টেস্টে উত্তীর্ণ হতে পারবেন তারা রাশিয়ার নাম ব্যবহার না করে নিরপেক্ষ পতাকাতলে থেকে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন। অবশ্য নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই ২০২০ সালের ইউরো কাপে অংশ নিতে পারবে রাশিয়া। কেননা, ওয়াডার আন্তর্জাতিক বড় আসর হিসেবে ইউরো কাপকে বিবেচনা করা হয় না।

কিন্তু ওয়াডার এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপীল করার সযোগ রয়েছে রাশিয়ার। সেজন্য ২১ দিন সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে রাশিয়াকে। এই সময়ের মধ্যে ওয়াডার হাতে রাশিয়ার এ্যান্টি ডোপিং এ্যাজেন্সি (রসাডা) তাদের পরীক্ষা কার্যক্রমের তথ্য নির্দেশনা অনুসারে প্রদান করলে নিষেধাজ্ঞা বাতিল বা শিথিল করা হতে পারে।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে তদন্তে ডোপিংয়ের নমুনা নিয়ে কারসাজি করার অভিযোগ উঠেছিল রাশিয়ার বিপক্ষে। অভিযোগ ছিল মস্কোর ল্যাব থেকে মাদক পরীক্ষার তথ্য উপাত্ত সরিয়ে ফেলারও। সেই অসঙ্গতির ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে দেশটিকে সময় বেঁধে দেয়া হয়েছিল সেই সময়ে। তখনই ওয়াডার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল যে, রাশিয়া যদি ব্যাখ্যা দিতে ব্যর্থ হয় তাহলে অলিম্পিক ও বিশ্বচ্যাম্পিনশিপের আসর থেকে বাদ পড়বে। শুধু তাই নয়, এই সময়ে মেজর কোন ইভেন্ট আয়োজনও করতে পারবে না দেশটি। এবার সেই শাস্তিই পেল ক্রীড়াজগতের অন্যতম শক্তিশালী দেশ রাশিয়া।

তবে রাশিয়ার ডোপিং কেলেঙ্কারি নতুন কোন ঘটনা নয়। এর আগেও সাংগঠনিকভাবে পারফর্মেন্সবর্ধক ওষুধ ব্যবহারে অনুপ্রেরণা দেয়া ও নমুনা নিয়ে কারসাজির কারণে নিষেধাজ্ঞার শিকার হয়েছিল তারা। ২০১৪ সালে সোচিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল শীতকালীন অলিম্পিক। সেবার খেলায় ডোপ টেস্টে ধরা পড়ার পর তিন বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয় রাশিয়াকে। এরপর ২০১৬ সালে ব্রাজিলের রিও অলিম্পিকে দেশটির এ্যাথলেটিকস দলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জুটেছিল। সেবার রাশিয়ার পতাকায় খেলতে পারেননি কেউ। তবে যেসব ক্রীড়াবিদ নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করে নিরপেক্ষ ক্রীড়াবিদ হিসেবে অংশ নেয়ার আগ্রহ দেখিয়েছিলেন তারাই শুধু অলিম্পিকে যোগ দিতে পেরেছিলেন। ২০১৮ সালে শীতকালীন অলিম্পিকেও পতাকা ছাড়া অংশগ্রহণ করে রাশিয়ার ১৬৮ এ্যাথলেট। এবারও রাশিয়ান নিরপরাধ প্রতিযোগীদের জন্য থাকছে সেই সুযোগ।

প্রকাশিত : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯

১০/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: