১৩ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রুবেলহীন বাংলাদেশের প্রাথমিক দল


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে তিন ওয়ানডে ও দুই টি২০ ম্যাচের সিরিজের জন্য বুধবার ১৮ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেই ঘোষিত দলে নেই পেসার রুবেল হোসেন। ইনজুরির জন্য জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে সিরিজে রুবেলকে রাখা হয়নি। তবে আছেন আরেক ইনজুরিগ্রস্ত পেসার তাসকিন আহমেদ।

আজ থেকেই অনুশীলনে নেমে পড়ছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। দুপুরে অনুশীলন শুরু হবে। নবেম্বরে শুরু হবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুইয়ে সিরিজ। ৭, ৯ ও ১১ নবেম্বর যথাক্রমে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডে এবং ১৩ ও ১৫ নবেম্বর যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় টি২০ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। সব ম্যাচ হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে।

ঘোষিত দলে রুবেল না থাকলেও মাশরাফি বিন মর্তুজা, তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, আরাফাত সানি, জুবায়ের হোসেন লিখন, ইমরুল কায়েস, মুস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি, শফিউল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ আছেন। প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ বলেছেন, ‘টিম গঠনের জন্য সব সময় যে প্রক্রিয়া অনুসরণ করি, এবারও তাই করেছি। হোমে খেলার একটা সুবিধা আছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে ‘এ’ দলের ছয়জন ফিরছে। তারা দলের সঙ্গে কাল (আজ) থেকে অনুশীলন শুরু করবে। আমরা সম্ভাব্য সেরা দল বোর্ডকে দিয়েছি।’

রুবেল, তাসকিন, শফিউলের ইনজুরি নিয়ে ফারুক আহমেদ বলেন, ‘পেসারদের সব সময়ই কঠিন পরিশ্রম করতে হয়। রুবেল, তাসকিন ও শফিউল ইনজুরিতে আছে। এদের মধ্যে তাসকিন ও শফিউলের সেরে উঠার গতি রুবেলের চেয়ে বেশি। দল ঘোষণার আগে আমরা ফিজিও সঙ্গে কথা বলেছি। এটা আমাদের মাথায় ছিল। সবকিছু চিন্তা করেই আমরা দল গঠন করেছি। এই মুহূর্তে রুবেলকে নিয়ে কিছুটা দুশ্চিন্তা আছে।’

সিরিজটি গুরুত্বপূর্ণ বলেও জানালেন প্রধান নির্বাচক, ‘এই সিরিজটি আমাদের জন্য অন্য যে কোন সফরের মতোই হবে। এই সিরিজের পর আমাদের সামনে বিশ্বকাপ আছে। তার আগে বিপিএল আছে। যা বিশ্বকাপে ভাল খেলার জন্য আমাদের দারুণ কাজে দেবে।’

প্রাথমিক দল যেমনই হোক, চূড়ান্ত দলে পরিবর্তন কম হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তাই জানালেন ফারুক, ‘সর্বশেষ সিরিজগুলো দেখলে দলে বেশি পরিবর্তনের সম্ভাবনা কম। আমরাও বেশি পরিবর্তনে যাইনি। কোচের সঙ্গে টিম নিয়ে কথা হয়েছে। নতুন একজন ছেলে যখন ভাল খেলে, তখন তার সুযোগ প্রাপ্য থাকে। কামরুল ইসলাম রাব্বি এবং আল আমিন ভাল খেলছে। তাদের দারুণ সম্ভাবনা আছে দলে থাকার।’

জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াড দিয়েছেন। তবে ‘এ’ দল হতাশ করেই চলেছে। এ নিয়ে বলতে গিয়ে ফারুক আহমেদ জানান, ‘সব সময়ই ‘এ’ দলের খারাপ খেলা হতাশার। দেশের খেলার চেয়ে বাইরে খেলা অত্যন্ত কঠিন। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দেশে, বাংলাদেশের মতো খেলা সহজ না। তবে সুযোগ পেলে তা কাজে লাগাতে না পারা অন্য বিষয়। ‘এ’ দলের পারফর্ম নিয়ে আমরা ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলব। ‘এ’ দলের শক্তির জায়গা হলো ব্যাটিং। ব্যাটিং ভাল না হলে দুশ্চিন্তা বেড়ে যায়।’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, ‘এ’ দলে আমরা যাদের নেই, তাদের নেয়ার পেছনে বিশেষ উদ্দেশ্য থাকে। এখন খেলোয়াড়রা যদি সে সুযোগ কাজে না লাগায় সেটা দুঃখজনক। ভারত সফরে আমরা এমন কয়েকজনকে দলে রেখেছিলাম যাদের টেস্ট খেলার সম্ভাবনা আছে। লঙ্গারভার্সনে তারা যাতে ভাল খেলতে পারে, এ জন্যই তাদের নিয়েছিলাম। আবার ওয়ানডেতে তাদের নিয়েছি, যারা ওয়ানডেতে সামনে জাতীয় দলে থাকবে। এখন তারা যদি সুযোগ কাজে না লাগায়, তবে হতাশা জাগে। এটা খেলোয়াড়দের অমনোযোগিতার কারণে হচ্ছে বলে মনে করি না। তারপরও তাদের আরও সুযোগ হতে পারে। ভারত সফরে ব্যাঙ্গালুরু ও মহিশুরে উইকেট খুব ভাল ছিল। সেখানে শুরুর দিকে টিকে থাকা যদিও একটু কঠিন, সেটা আমরা করতে পারিনি। পারলে ভাল হতো।’

প্রাথমিক দল ॥ মাশরাফি বিন মর্তুজা, তামিম ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন, আরাফাত সানি, জুবায়ের হোসেন লিখন, ইমরুল কায়েস, মুস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন, কামরুল ইসলাম রাব্বি, শফিউল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: