২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ছয় মাসে কর্মক্ষেত্রে দু’শ’ শ্রমিক নিহত


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশে গত ৬ মাসে কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় দু’শ’রও বেশি শ্রমিক মারা গেছে বলে একটি বেসরকারী সংস্থার জরিপে উঠে এসেছে। সেফটি এ্যান্ড রাইটস সোসাইটি নামের এই সংস্থাটি বলছে, নিহত শ্রমিকদের মধ্যে ৭৬ জনই নির্মাণশিল্পের।

সংস্থাটির ২০১৪ সালের জরিপে দেখা গেছে, বছরের প্রথম ছয় মাসে ১২৯টি কর্মক্ষেত্রে দুর্ঘটনায় মোট ১৫৮ শ্রমিক নিহত হন। গতবছরও তাদের জরিপে সর্বোচ্চসংখ্যক নিহত শ্রমিক ছিল নির্মাণ খাতেই।

সেফটি এ্যান্ড রাইটস সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক সেকান্দার আলী মিনা বলছেন, নির্মাণ সেক্টর সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু নির্মাণ কাজে নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রতি অবহেলার কারণেই এই শিল্পে হতাহতের সংখ্যা এতটা বেশি। তাছাড়া আইন মেনে করা হয় না বলে ঝুঁকিটা রয়ে যায়।

নির্মাণখাতের কাজের সময় ভূমি থেকে অনেক উপরে উঠে কাজ করতে হয় শ্রমিকদের। ভূমি থেকে উপরে উঠে যে কাজগুলো করতে হয় সেগুলোর সঠিক মাপ না নেয়ার কারণেও ঝুঁকিটা থাকে বলে জানাচ্ছিলেন সেকান্দার আলী মিনা।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড আছে যেখানে বলা হয়েছে কোন্ কাজটা কিভাবে করা হবে, কিন্তু আইনের প্রতি একধরনের অবহেলা থাকার কারণে হতাহতের ঘটনাগুলো ঘটে।

দর্শনা রেলবন্দরে রাজস্ব আয় হ্রাস

সংবাদদাতা, দামুড়হুদা, চুয়াডাঙ্গা ॥ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলবন্দর ও শুল্ক স্টেশন ২০১৪-১৫ অর্থ বৎসরের নির্ধারিত রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে পারেনি। ফলে গতবারের রাজস্বের চাইতে এ অর্থ বৎসরে কয়েকগুণ রাজস্ব কম অর্জিত হয়েছে। দর্শনা রেলস্টেশন মাস্টার মোঃ লিয়াকত আলী জানায়, শুধুমাত্র ভারত থেকে দর্শনা বন্দরের মাধ্যমে রেলপথে পোল্ট্রি ফিড ও গম আমদান করে এ অর্থ বৎসরে ১৭ কোটি ৫ লাখ ৫৭ হাজার ৮৯৯ টাকা ভাড়া বাবদ আদায় হয়েছে। এ বছর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা ছিল ১১ কোটি ১১ লাখ ৭৭ হাজার ৫৭৮ টাকা। গত বছর এ লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২০ কোটি ৫৬ হাজার টাকা। অর্জিত হয়েছিল ১৮ কোটি ৫৭ লাখ ৫১ হাজার ৫৩৭ টাকা। রেলভাড়া বাবদ লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলেও শুল্ক স্টেশনের মাধ্যমে রাজস্ব আদায়ে আকাশ-পাতাল ফারাক দেখা দিয়েছে। এ অর্থ বৎসরে দর্শনা শুল্ক বিভাগ গম ও পোল্ট্রি ফিড আমদানি করে রাজস্ব আয় করেছে মাত্র ৩ কোটি ৫ লাখ ৩২ হাজার ৬৫০ টাকা।