ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

আজ রাতে ফ্রান্স-হল্যান্ড মহারণ

জিএম মোস্তফা

প্রকাশিত: ০০:৫৯, ২১ জুন ২০২৪

আজ রাতে ফ্রান্স-হল্যান্ড মহারণ

নাক ভেঙে গেছে ফ্রান্স অধিনায়ক এমবাপের

ইউরোপের অন্যতম শক্তিশালী দুই দল ফ্রান্স এবং হল্যান্ড। উয়েফা ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের সাবেক চ্যাম্পিয়নও তারা। ‘ডি’ গ্রুপের এই দুই দল মাঠে নামছে আজ। বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় একে অপরের মুখোমুখি হবে ফ্রান্স-নেদারল্যান্ডস। ইউরোতে দিনের আরেক ম্যাচে একই গ্রুপের পোল্যান্ডের প্রতিপক্ষ অস্ট্রিয়া। এই দুই দলই আজ প্রথম জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামবে। এ ছাড়া অন্য ম্যাচে ‘ই’ গ্রুপের দল স্লোভাকিয়ার মুখোমুখি হবে ইউক্রেন।
ইউরোতে দুইবার শিরোপা জয়ের নজির রয়েছে ফ্রান্সের। ১৯৮৪ সালে প্রথমবার ইউরোপিয়ান ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরা দলটিই সর্বশেষ এই আসরের ট্রফি উঁচিয়ে ধরে ২০০০ সালে। এর মাঝে ২০১৬ সালেও ফাইনালের টিকিট কেটেছিল তারা। কিন্তু সেবার পর্তুগালের কাছে হেরে স্বপ্নভঙ্গের বেদনা নিয়ে মাঠ ছেড়েছিল দিদিয়ের দেশমের দল। এবার তাই দীর্ঘ দুই যুগের শিরোপা-খরা ঘুচাতে মরিয়া ফ্রান্স। অন্যদিকে এখন পর্যন্ত একবারই প্রথম ইউরোপিয়ান এই শ্রেষ্ঠত্বের টুর্নামেন্টের ফাইনালের টিকিট কেটে শিরোপা জয়ের উৎসব করেছিল নেদারল্যান্ডস। ১৯৮৮ সালে রাশিয়াকে হারিয়ে স্বপ্নের এই শিরোপায় চুমো এঁকেছিল ডাচরা। দীর্ঘ সময় পর আবারও ইউরোর ট্রফি পুনরুদ্ধারে মরিয়া হল্যান্ড।   
২০২৪ ইউরোর বাছাইপর্বে দুইবার নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হয় ফ্রান্স। দুটি ম্যাচেই পরাজয়ের স্বাদ পায় ডাচরা। প্যারিসে ৪-০ গোলে জয়ের পর আমাস্টারডামে ফিরতি ম্যাচেও ২-১ ব্যবধানে জয়ের দেখা পায় ফ্রান্স। এবার মূল মঞ্চেও জয়ের বিকল্প ভাবছে না দিদিয়ের দেশমের শিষ্যরা। অন্যদিকে হল্যান্ডও ছেড়ে কথা বলতে নারাজ। এবারের আসরে ফ্রান্স-নেদারল্যান্ডস দুই দলই জয় দিয়ে নিজেদের ইউরোর অভিযান শুরু করেছে। ডাচরা নিজেদের প্রথম ম্যাচে ২-১ গোলে পরাজিত করে পোল্যান্ডকে। অন্যদিকে ২০১৮ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স প্রথম ম্যাচে ১-০ গোলে কষ্টে হারায় তুলনামূলক খর্ব শক্তির দল অস্ট্রিয়াকে। যে কারণে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট কাটার জন্য দুই দলেরই এই ম্যাচে জয়টা গুরুত্বপূর্ণ।
তবে হাইভোল্টেজ এই ম্যাচের আগে ফরাসি সমর্থকদের জন্য দুঃসংবাদ। নাক ভেঙে যাওয়ার কারণে আজ দলের সেরা তারকা কিলিয়ান এমবাপেকে পাচ্ছে না ফ্রান্স। তারকা সমৃদ্ধ অভিজ্ঞ দল হলেও কোনো না কোনোভাবে কিলিয়ান এমবাপের উপস্থিতি ফ্রান্সকে বাড়তি অনুপ্রেরণা জোগায়। কিন্তু নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে গ্রুপের দ্বিতীয় ম্যাচে সাবেক পিএসজি তারকাকে না পাওয়ায় বাধ্য হয়েই ‘প্ল্যান বি’র দিকে হাত বাড়াতে হচ্ছে দিদিয়ের দেশমকে।

গত সোমবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রিয়ার বিপক্ষে ডাসেলডর্ফে একেবারে শেষ মিনিটে হেড করতে গিয়ে প্রতিপক্ষ ডিফেন্ডার কেভিন ডানসোর ঘাড়ে আঘাত লেগে নাক ভেঙে যায় এমবাপের। এরপর ফ্রান্স ফুটবল ফেডারেশন জানায় এমবাপের কোনো ধরনের অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন নেই। কিন্তু তারা বিবৃতিতে এটাও নিশ্চিত করে যে মাঠে নামতে হলে তাকে মাস্ক পরে খেলতে হবে। তবে ডাচদের বিপক্ষে লাইপজিগের ম্যাচের আগে ২৫ বছর বয়সী এমবাপে পুরোপুরি ফিট হতে পারেননি।
হল্যান্ডকে আজ হারাতে পারলেই শেষ ষোলোর টিকিট কাটবে ফ্রান্স। সেইসঙ্গে পরের ম্যাচে পোল্যান্ডের বিপক্ষেও বিশ্রামে থাকতে পারবেন রাশিয়া বিশ্বকাপের নায়ক এমবাপে। কিন্তু এই মুহূর্তে বিশে^র অন্যতম সেরা এই স্ট্রাইকারকে ছাড়া ডাচদের বিপক্ষে লেস ব্লুজরা যথেষ্ট শক্তিমত্তার পরিচয় দিতে পারবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। তবে মিডফিল্ডার আদ্রিয়ের রাবোয়িত অবশ্য আত্মবিশ্বাসী।

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই সে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ একজন খেলোয়াড়, আমাদের অধিনায়ক, আমাদের নেতা। সে কারণেই তার অনুপস্থিতি দলে প্রভাব পড়বে। কিন্তু আমাদের দলটি একটি ভিন্নধর্মী দল। এটাও মানতে হবে যে, বেঞ্চে যারা রয়েছে তারাও সমান প্রতিভাবান। এমবাপের বদলি হিসেবে দলে যথেষ্ট খেলোয়াড় রয়েছে। বেঞ্চের খেলোয়াড়দের ওপর আমার পূর্ণ আস্থা আছে। তাদের প্রতিভা নিয়েও কোনো সন্দেহ নেই।’

×