ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

ইরানকে কাঁদিয়ে শেষ ষোলোতে যুক্তরাষ্ট্র

রাশফোর্ডের জোড়া গোলে নকআউট পর্বে ইংল্যান্ড

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০৩:৩৬, ৩০ নভেম্বর ২০২২

রাশফোর্ডের জোড়া গোলে নকআউট পর্বে ইংল্যান্ড

ওয়েলসের বিরুদ্ধে গোল করে উল্লসিত রাশফোর্ড

দুই ফরোয়ার্ড মার্কাস রাশফোর্ড ও ফিল ফোডেনের টানা দুই মিনিটে দুই গোলে ভর করে চলমান কাতার বিশ্বকাপের প্রি-কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড। মঙ্গলবার মধ্যরাতে কাতারের দোহার আল রাইয়ানের আহমেদ বিন খলিফা স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে প্রতিবেশী ওয়েলসকে ৩-০ গোলে হারিয়েছে ইংলিশরা। ম্যাচে জোড়া গোল করে নায়ক বনে গেছেন রাশফোর্ড। এই জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউটে উঠেছে ১৯৬৬ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা।

একই শহরের আল থুমামা স্টেডিয়ামে গ্রুপের আরেক ম্যাচ ইরানকে ১-০ গোলে হারিয়ে দ্বিতীয় দল হিসেবে শেষ ষোলোর টিকিট কেটেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই গ্রুপ থেকে ইরানের পাশাপাশি বিদায় নিয়েছে গ্যারেথ বেলের ওয়েলস।
‘বি’ গ্রুপে তিনটি করে ম্যাচ শেষে দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে অপরাজিত গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ইংল্যান্ড। যুক্তরাষ্ট্রও এক জয় ও দুই ড্রয়ে ৫ পয়েন্ট নিয়ে অপরাজিত থেকে দ্বিতীয় দল হিসেবে নকআউটের টিকিট কেটেছে। ৩ পয়েন্ট পেয়ে ইরান তৃতীয় ও ১ পয়েন্ট পেয়ে ওয়েলস হয়েছে চতুর্থ। এই দুই দলকেই তাই বিদায় নিতে হয়েছে বিশ্বকাপ থেকে। ওয়েলসের বিরুদ্ধে শুরু থেকে একের পর এক আক্রমণ শাণাতে থাকে ইংল্যান্ড।

কিন্তু প্রথমার্ধে একাধিক সহজ গোলের সুযোগ নষ্ট করে তারা। বিরতির পরও আক্রমণের ধারা ধরে রেখে খেলতে থাকে ইংলিশরা। ফল আসে ৫০ মিনিটে। এসময় মার্কাশ রাশফোর্ড চোখ ধাঁধানো ফ্রিকিকে গোল করে ইংল্যান্ডকে এগিয়ে নেন। এই গোলের রেশ কাটতে না কাটতেই পরের মিনিটেই থ্রি লায়ন্সদের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন ফিল ফোডেন। এরপর ৬৮ মিনিটে ম্যাচে নিজের জোড়া ও ইংল্যান্ডের তিন নম্বর গোল করেন রাশফোর্ড।

এই গোলটি করে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন ম্যানইউ তারকা। কেননা এটি বিশ্বকাপে ইংলিশদের ‘১০০’ নম্বর গোল। এরপর বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলেও গ্রুপ সেরা হয়ে নকআউটে খেলার আনন্দে মাঠ ছাড়ে ইংল্যান্ড। আর একরাশ ব্যর্থতা সঙ্গী করে তল্পিতল্পা গোছাতে হয়েছে ওয়েলসকে।
আরেক ম্যাচে নকআউট রাউন্ডে যেতে হলে জিততেই হবে এমন সমীকরণ সামনে রেখে ইরানের বিরুদ্ধে মাঠে নামে যুক্তরাষ্ট্র। শুরু থেকেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে মার্কিনীরা। কিন্তু বেশ কয়েকটি সহজ গোলের সুযোগ সৃষ্টি করেও লক্ষ্যভেদ করতে ব্যর্থ হয় তারা। অবশেষে ৩৮ মিনিটে কাক্সিক্ষত গোলের দেখা পায় যুক্তরাষ্ট্র। ওয়েস্টন ম্যাককেনির ক্রসে হেডে বল ডি বক্সে পাঠান ডিফেন্ডার সার্জিনো ডেস্ট।

এরপর দারুণ ভলিতে বল জালে পাঠান ইংলিশ ক্লাব চেলসিতে খেলা ফরোয়ার্ড ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচ। এগিয়ে যাওয়ার পর প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে আরেক গোল করেন তরুণ ফরোয়ার্ড টিমোথি ওয়েহ। কিন্তু অফসাইডের কারণে গোলটি বাতিল করেন লাইন্সম্যান। বিরতিরও প্রাধান্য বিস্তা করে খেলে যুক্তরাষ্ট্র। পক্ষান্তরে পাল্টা আক্রমণে গোল পরিশোধের চেষ্টা করে ইরান। কিন্তু সেটা সম্ভব না হওয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ঘণ্টা বেজেছে ইরানিদের। আর স্বস্তির জয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart