ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

এ-গ্রুপ থেকে সেরা দুই দল হবে কারা?

আজ ইকুয়েডর-সেনেগাল ও হল্যান্ড-কাতার মুখোমুখি

রুমেল খান

প্রকাশিত: ০০:৩৪, ২৯ নভেম্বর ২০২২

আজ ইকুয়েডর-সেনেগাল ও হল্যান্ড-কাতার মুখোমুখি

স্বাগতিক কাতারের বিরুদ্ধে ম্যাচ সামনে রেখে অনুশীলনে হল্যান্ডের খেলোয়াড়রা

গ্রুপের এক দল এক ম্যাচ বাকি থাকতেই বিদায় নিয়েছে। বাকি তিন দলের মধ্য থেকে দুটি দলের কপাল খুলবে, আর কপাল পুড়বে একটি দলের। এমনই অবস্থা এ-গ্রুপে। হ্যাঁ, চলমান কাতার বিশ্বকাপের কথাই বলা হচ্ছে। আজ বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় দুটি ভিন্ন ভেন্যুতে এ-গ্রুপের চার দল খেলতে নামবে। আল রাইয়ানের খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে লাতিন আমেরিকার দেশ ইকুয়েডর মোকাবিলা করবে আফ্রিকার দেশ সেনেগালকে।

একই সময়ে আল খোরের আল বায়াত স্টেডিয়ামে মধ্যপ্রাচ্য-মরুর দেশ স্বাগতিক কাতার মোকাবিলা করবে ইউরোপের দেশ হল্যান্ডকে।  তিনবারের বিশ্বকাপ রানার্সআপ, ১২ ফিফা র‌্যাঙ্কিংধারী এবং ‘দ্য ফ্লাইং ডাচ্ম্যান’ খ্যাত হল্যান্ড সবার চেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে থেকে খেলতে নামবে। ২ ম্যাচে ১ জয় ও ১ ড্রতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। নিজেদের প্রথম ম্যাচে তারা সেনেগালকে ২-০ গোলে হারিয়ে শুভসূচনা করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে ইকুয়েডরের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে হোঁচট খায়। আজকে তারা যদি অন্তত ড্রও করতে পারে, তাহলেই তারা যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে শেষ ১৬ তে নাম লেখানো।

পক্ষান্তরে ইতিহাসের প্রথম দল হিসেবে স্রফে স্বাগতিক হবার সুবাদে বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলতে আসা কাতার খেলতে নামবে অন্তত একটি ড্রয়ের জন্য। আর অঘটন ঘটাতে পারলে তো কোনো কথাই নেই। নিজেদের প্রথম ম্যাচে ০-২ গোলে ইকুয়েডরের কাছে এবং দ্বিতীয় ম্যাচে সেনেগালের কাছে ১-৩ গোলে হেরে এই আসর থেকে সবার আগে পাততাড়ি গুটায় ‘দ্য মেরুন’ খ্যাত এবং ৫০ ফিফা র‌্যাঙ্কিংধারী কাতার। নিজেদের শেষ ম্যাচটি স্মরণীয় করে রাখতে তারা আজ নির্ভারচিত্তেই খেলতে নামবে। ফলে ‘পঁচা শামুকে পা কাটার’ ক্ষীণ ভয় থেকেই যাচ্ছে হল্যান্ডের ক্ষেত্রে। অথচ আজকের ম্যাচটি কাতারের জন্য নিয়মরক্ষার।

২০১৮ বিশ^কাপের মূলপর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি হল্যান্ড। কিন্তু আগের দুই আসরে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান নিয়ে বিশ্বকাপ শেষ করেছিল। ফলে তাদের প্রত্যাশাটা এবার আরও বেশি। গ্রুপের আরেক ম্যাচে সমান চার পয়েন্ট নিয়ে গোলগড়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইকুয়েডর যদি সেনেগালকে হারাতে পারে তবে কাতারের কাছে হারলেও হল্যান্ডই যাবে পরের রাউন্ডে। গ্রুপ-এ’র শীর্ষস্থান লাভ করতে পারলেও পরের রাউন্ডের ডাচ্দের প্রতিপক্ষ হতে পারে গ্রুপ-বির ইংল্যান্ড, ইরান, যুক্তরাষ্ট্র কিংবা ওয়েলসের মধ্যকার যেকোন একটি দল।

এ নিয়ে দুটি ম্যাচে বার্সিলোনা এ্যাটাকার মেমফিস ডিপাই হল্যান্ডের রিজার্ভ বেঞ্চে ছিলেন। ইনজুরি কাটিয়ে পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠতে না পারলেও আজ তাকে মূল একাদশে দেখা যেতে পারে। এমন আরও কিছু পরিবর্তন নিয়েই মূল একাদশ সাজাতে যাচ্ছেন কোচ লুইস ভ্যান গাল। রক্ষণভাগে মাথিস ডি লিটের সঙ্গে জুরিয়ন টিম্বারকে দেখা যেতে পারে। তবে মধ্যমাঠে টেয়ান কুপমেইনাসের্র স্থানে স্টিভেন বার্গুইস ফিরতে পারেন।

ইতোমধ্যেই দুই গোল করা গাকপোকে মেমফিস ও স্টিভেন বার্গুইনের সঙ্গে আক্রমণভাগে দেখা যাবে, এ কারণে ড্যাভি ক্লাসেন চলে যেতে পারেন বদলি বেঞ্চে। সেনেগালের বিরুদ্ধে একমাত্র গোল করা মোহাম্মদ মুনতারি ফিরতে পারেন কাতরের মূল দলে। তার সঙ্গে যোগ দিতে পারেন জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪২ গোল করা আলমোয়েজ আলি। এই গ্রুপের অপর ম্যাচে সেনেগালের মুখোমুখি হবে ইকুয়েডর। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচটিতে জিততে পারলে উভয় দলেরই নকআউট পর্বে খেলা নিশ্চিত হয়ে যাবে। বিশ্বকাপে এই প্রথম মুখোমুখি হচ্ছে তারা।

এর আগে ২০০২ সালে এক প্রীতি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল তারা। সে ম্যাচে ইকুয়েডরকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল সেনেগাল। ইতোমধ্যেই দারুণ ছন্দে থাকা ৪৪ র‌্যাঙ্কিংধারী এবং ‘লা ট্রাইকালার’ খ্যাত ইকুয়েডর এবারের বিশ্বকাপে সবার দৃষ্টি কেড়েছে। কাতারের বিরুদ্ধে ২-০ গোলে জয় দিয়ে শুরুর পর দ্বিতীয় ম্যাচে হল্যান্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র ক ৪ পয়েণ্ট নিয়ে দুইয়ে আছে তারা। পক্ষান্তরে  হল্যান্ডের কাছে ২-০ গোলে হারলেও স্বাগতিক কাতারকে বিদায় করে (৩-১) দিয়ে ‘লায়ন্স অব টেরাঙ্গা’ এবং ১৮ র‌্যাঙ্কিংধারী সেনেগালও নকআউট পর্বে যাবার রেসে টিকে আছে।
ইকুয়েডরের আর্জেন্টাইন কোচ গুস্তাভো আলফারো ইতোমধ্যেই তার ট্যাকটিকাল দক্ষতা দিয়ে প্রশংসা কুড়িয়েছেন। আক্রমণভাগের সঙ্গে রক্ষণের চমৎকার সমন্বয়ে তিনি ইকুয়েডরকে গোছানো ফুটবল খেলা রপ্ত করিয়েছেন। তার ট্রাম্পকার্ড হচ্ছেন অধিনায়ক-ফরোয়ার্ড এনার ভ্যালেন্সিয়া, যিনি তিন গোল করে ইতোমধ্যেই ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পের সঙ্গে সর্বাধিক গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন।

এখন দেখার বিষয়- আজকের ম্যাচে সেনেগালের কৌশলী রক্ষণভাগকে ভেঙে তিনি গোল করতে পারে কি না। যদিও ইনজুরিতে পড়ায় ভ্যালেন্সিয়ার খেলা নিয়ে সংশয় রয়েছে। শেষ পর্যন্ত ভ্যালেন্সিয়া খেলতে না পারলে ইকুয়েডরকে বিকল্প চিন্তা করতে হবে। এই মুহূর্তে ব্রাইটনের ফরোয়ার্ড জেরেমি সারমিয়েতো কিংবা কেভিন রডরিগুয়েজই তার জায়গায় খেলার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন।
তিন পয়েন্ট অর্জন করতে পারলে নকআউট পর্ব নিশ্চিত হবে ইকুয়েডরের, একইসঙ্গে হল্যান্ডকে টপকে গ্রুপের শীর্ষ দল হবারও সুযোগ রয়েছে তাদের। গ্রুপ-এ থেকে পরের রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ আছে সেনেগালেরও। কিন্তু সেজন্য তাদের সামনে জেতা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই।

সম্পর্কিত বিষয়:

monarchmart
monarchmart