ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১

প্রধানমন্ত্রীর নামে বিজ্ঞাপন দিয়ে ফেসবুকে বিরাট প্রতারণার ফাঁদ

প্রকাশিত: ১৬:৪৩, ১৪ জুন ২০২৪

প্রধানমন্ত্রীর নামে বিজ্ঞাপন দিয়ে ফেসবুকে বিরাট প্রতারণার ফাঁদ

ঈদকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ডিজিটাল প্রতারণায় মেতে উঠেছে বিভিন্ন চক্র

আসন্ন কোরবানি ঈদকে ঘিরে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ডিজিটাল প্রতারণায় মেতে উঠেছে বিভিন্ন চক্র। ব্যবহারকারীদের ফাঁদে ফেলতে তারা অবলম্বন করছেন নতুন নতুন সব কৌশল। এমনই এক প্রতারণার ফাঁদ চোখে পড়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ঘিরে। দেশের প্রতিটি মানুষকে ২৫-৩০ হাজার টাকা ঈদ বোনাস দেওয়ার ভুয়া প্রতিশ্রুতি সম্বলিত একটি পোস্ট ফেসবুকে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে প্রচার করে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে অর্থ।

শুধু তাই নয়, প্রতারণার এ ফাঁদকে বিশ্বাসযোগ্য করে তুলতে কখনো প্রধানমন্ত্রীর ছবি, কখনো বা গণমাধ্যমের লোগো ব্যবহার করছে প্রতারক চক্র। বিজ্ঞাপন দেখে অনেকেই ভেবে নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নিজেই এই বোনাস দেওয়ার ঘোষণা করেছেন এবং তা মূলধারার গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত হয়েছে। আর প্রলোভনে পড়ে বিকাশের ওয়েবসাইটের অনুকরণে তৈরি প্রতারকদের নকল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করছেন এবং অর্থ খোয়াচ্ছেন তারা।

গত ৫ ও ৬ জুন মেটার অ্যাড লাইব্রেরি পর্যবেক্ষণ করে ফ্যাক্টচেক গ্রুপ রিউমার স্ক্যানার দেখতে পায়, এ সময়ে ১২ হাজারেরও বেশি এমন বিজ্ঞাপন প্রতারণার উদ্দেশ্যে প্রচার করা হয়েছে। ‘বোনাস পেতে এখানে ক্লিক করুন’ কি-ওয়ার্ড ব্যবহার করে এই বিপুল সংখ্যক বিজ্ঞাপন খুঁজে বের করেছে রিউমার স্ক্যানার ইনভেস্টিগেশন ইউনিট।

রিউমার স্ক্যানার বলছে, নারীদের নামে তৈরি বিভিন্ন ফেসবুক পেজ থেকে এই বিজ্ঞাপনগুলো প্রচার করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত এমন ২০টি পেজের তালিকা তৈরি করেছে তারা। পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, অধিকাংশ পেজের অ্যাডমিনের অবস্থান ইন্দোনেশিয়া ও কম্বোডিয়ায় দেখানো হচ্ছে। এ ছাড়া অল্প সংখ্যক পেজের অ্যাডমিনের অবস্থান বাংলাদেশে এবং কেবল একটি পেজের অ্যাডমিনের অবস্থান ভারতে দেখানো হচ্ছে।

রিউমার স্ক্যানার ইনভেস্টিগেশন ইউনিটের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, প্রতারকরা তিন ধরনের ডিজিটাল ব্যানার ব্যবহার করে এই বিজ্ঞাপনগুলো প্রচার করছে। প্রতিটি ব্যানারে প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। দুটি ব্যানারে প্রধানমন্ত্রীর ছবির পাশাপাশি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের লোগো যুক্ত করা হয়েছে। অন্য একটি ব্যানারে বিকাশে ৩০ হাজার টাকা ক্যাশ ইন হওয়া মেসেজের স্ক্রিনশট ব্যবহার করা হয়েছে।

গত বছরের ১ নভেম্বর গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ন্যাশনাল কার্ড স্কিম ‘টাকা পে’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উক্ত অনুষ্ঠানের একটি ভিডিও বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভির ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং ‘আজ থেকে চালু হচ্ছে ‘টাকা পে’ কার্ড’ শিরোনাম ব্যবহার করে এই ইউটিউব ভিডিওটির থাম্বনেইল তৈরি করা হয়। ডিজিটাল প্রতারকরা এই থাম্বনেইলটিই বিকৃত করে ‘দেশের সবাইকে দিচ্ছি ২৫ হাজার টাকা ঈদ উপহার’ শীর্ষক নতুন শিরোনাম যুক্ত করে ফেসবুকে প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন চালাচ্ছে।

এই বিষয়টি সম্পর্কে জানতে পেরে টিভি চ্যানেলটি দর্শকদের উদ্দেশ্যে একটি সতর্কতামূলক পোস্ট দিয়ে নিশ্চিত করে যে, এই ছবিটি তাদের তৈরি নয়। একইভাবে, প্রতারকরা বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ইনডিপেনডেন্ট টিভির ইউটিউব চ্যানেলের থাম্বনেইলের ডিজাইন নকল করেও এমন বিজ্ঞাপন চালাচ্ছে।

বিশ্বাস অর্জনের জন্য প্রতারকরা বিজ্ঞাপনগুলোর সঙ্গে বিভিন্ন বিশ্বস্ত ওয়েবসাইটের লিংক যুক্ত করে দিচ্ছে। এক বিজ্ঞাপনে দেশের অন্যতম মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান নগদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের লিংক প্রিভিউ হিসেবে দেখা যায়। তবে লিংকে প্রবেশ করলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বিকাশের ওয়েবসাইটের অনুকরণে তৈরি নকল ওয়েবসাইটে।

এবি 

×