ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

ক্যান্সার চিকিৎসা

নতুন আশার আলো প্রোটন বিম থেরাপি

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ০১:৪৭, ২ জুলাই ২০২২; আপডেট: ০১:৪৭, ২ জুলাই ২০২২

নতুন আশার আলো প্রোটন বিম থেরাপি

.

বাংলাদেশে ক্যান্সার রোগীদের জন্য নতুন আশার আলো হতে যাচ্ছে এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টারের প্রোটন বিম থেরাপি। এটি এক ধরনের রেডিয়েশন থেরাপি, যেখানে প্রোটন নামের ক্ষুদ্রকণার মাধ্যমে ক্যান্সার কোষের বিনাশ ঘটানো হয়। প্রোটন যদিও এ যুদ্ধে প্রয়োজনীয় রসদের জোগান দেয়, তবে এটি, ফোটন থেরাপির মতো, আক্রান্ত টিস্যুর আশপাশে অন্যান্য সুস্থ টিস্যুর কোন ধরনের ক্ষতি করে না। ফলে পারিপার্শ্বিক ঝুঁকিমুক্ত অবস্থায় এতে ক্ষতিকর টিউমারের বিনাশ ঘটাতে উচ্চমাত্রার রেডিয়েশন প্রয়োগ করা সম্ভব হয়।
শুক্রবার দক্ষিণ এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের একমাত্র প্রোটন থেরাপি সেন্টার ভারতের চেন্নাইয়ের এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টার (এপিসিসি) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টারের সিনিয়র কনসালটেন্ট রেডিয়েশন অনকোলজিস্ট ডাঃ স্বপ্ন নানজিয়া। এ সময় দেশে ক্যান্সারের দ্রুত ক্রমবৃদ্ধি বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশের পাশাপাশি প্রোটন বিম থেরাপি প্রয়োগের মাধ্যমে কীভাবে জটিল প্রকৃতির ক্যান্সার কোষকেও নিখুঁতভাবে নিরাময় করা সম্ভব হচ্ছে, সে বিস্তারিত উপস্থাপন করেন তিনি।
ডাঃ স্বপ্ন নানজিয়া বলেন, অনেকেই জানেন না, ক্যান্সার চিকিৎসায় প্রোটন প্রযুক্তির প্রয়োগের ইতিহাস শুরু হয় ১৯৪০ এর দিকে। তারই ধারাবাহিকতায় আজ প্রোটন বিম থেরাপির আবির্ভাব। বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সারের চিকিৎসায় ইতোমধ্যেই অনন্য সাফল্য দেখিয়েছে প্রোটন থেরাপি। এ মুহূর্তে এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টারে সবচেয়ে বেশি চিকিৎসা করা হচ্ছে মাথা ও গলার ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীদের। আগেকার চিকিৎসা-পদ্ধতির তুলনায় এতে চিকিৎসা চলাকালীন ও চিকিৎসা-উত্তর ভোগান্তি একেবারেই কম। রোগীকে ফের হাসপাতালে ভর্তি করা কিংবা নলের মাধ্যমে খাওয়ানোর মতো জটিল পরিস্থিতিরও প্রয়োজন পড়ে না। ডাঃ নানজিয়া জানান, এ্যাপোলোতে আমাদের রয়েছে সর্বাধুনিক পিবিএস প্রযুক্তি যার সুবাদে প্রতিটি টিউমারকে আমরা ধাপে ধাপে এবং স্তরের পর স্তর ভিত্তিতে পৃথকভাবে পর্যবেক্ষণ ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিশ্চিত করতে পারি।
এ সময় ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার আলোকে বাংলাদেশ থেকে ভারতে গিয়ে এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টারে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠার ঘটনা তুলে ধরেন জামাল উদ্দিন, নূর ই তামান্না এবং মোজাম্মল হক চৌধুরী।
এ্যাপোলো প্রোটন ক্যান্সার সেন্টার (এপিসিসি) ভারতের প্রথম জেপিআই অনুমোদিত ক্যান্সার হাসপাতাল। তার সাফল্যের মুকুটে সর্বশেষ সংযোজিত নতুন পালকটির নাম ভারতের প্রথম এবং একমাত্র সাইট-স্পেসিফিক রোবোটিক অনকোলজি প্রোগ্রাম।

ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২