ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯

খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনের তফসিল ৩১ মার্চ

প্রকাশিত: ০৫:৫০, ২০ মার্চ ২০১৮

খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচনের তফসিল ৩১ মার্চ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রমজানের আগেই দুই সিটি নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছে ইসি। এ লক্ষ্যে আগামী ৩১ মার্চ খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে তারা। ইসি সচিব সাংবাদিকদের বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে সোমবার খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। গাজীপুর ও খুলনা সিটিতে প্রথম সভা আগে হয়েছে। আলোচনায় এই দুই সিটি নির্বাচনের জন্য ৩১ মার্চ তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে উল্লেখ করেন। তবে কবে নাগাদ এই দুই সিটির নির্বাচন করা হবে তা বিস্তারিত ইসির পক্ষ থেকে জানানো হয়নি। তবে ইসি কর্মকর্তারা বলছেন আগামী রমজানের আগেই এই দুই সিটি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। সাধারণত নির্বাচনের ৪০- ৪৫ দিন হাতে রেখে তফসিল ঘোষণা করা হয়ে থাকে। সেই হিসেবে মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে এই দুই সিটির নির্বাচন হতে পারে। জানা গেছে, এপ্রিল মাসে শুরু হচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষা। ৪ মে পর্যন্ত এইচএসসি পরীক্ষার সময়সূচী রয়েছে। অপর দিকে ১৭ মে থেকে মাহে রমজান শুরু হচ্ছে। জানা গেছে, এইচএসসি পরীক্ষা শেষে এবং রমজানের আগের মধ্যবর্তী যে কোন দিনকে এই দুই সিটির নির্বাচনের জন্য বেছে নেয়া হতে পারে। এক্ষেত্রে মে মাসের মধ্যবর্তী সময়েই নির্বাচনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়া বাকি তিন সিটি কর্পোরেশন রাজশাহী, সিলেট এবং বরিশালের নির্বাচন রমজানের পরে সুবিধামতো সময়ে অনুষ্ঠানের চিন্তাভাবনা রয়েছে। যদিও প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা সম্প্রতি রাজশাহীর এক অনুষ্ঠানে বলেছেন মেয়াদ পূর্ণ হতে যাওয়া পাঁচ সিটির নির্বাচন জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত হবে। তিনি রমজানের পরের মাসে এসব সিটির নির্বাচনের ইঙ্গিত দেন। যদিও খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল এবং সিলেট সিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০১৩ সালে ১৫ জুনে। অপর দিকে গাজীপুর সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ওই বছরের জুলাইয়ের ৬ তারিখে। তবে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ২০১৩ সালের ৬ জুলাই এবং খুলনা সিটিতে ২০১৩ সালের ১৫ জুন ভোট হলেও এই দুই সিটির প্রথম সভা হয়েছিল ওই বছরের সেপ্টেম্বরে। প্রথম সভা থেকে সিটি কর্পোরেশনের মেয়াদ পরবর্তী ৫ বছর। সে হিসেবে মার্চ থেকেই এই দুই সিটির নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। আইন অনুযায়ী মার্চ ৮ থেকে ৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে গাজীপুরে এবং ৩০ মার্চ থেকে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন পরিচালনা করতে হবে। এই হিসাব বিচেনায় নিয়ে ৩১ মার্চে তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসি। ইসি সচিব হেলালুদ্দিন আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, ২ এপ্রিল থেকে ৪ মে এইচএসসি পরীক্ষার সূচী রয়েছে। ১৭ মে থেকে শুরু হবে রোজা। সেক্ষেত্রে ৪০-৪৫ দিন সময় রেখে মে মাসের দ্বিতীয় ভাগে কোন এক দিন দুই সিটির ভোট করা হবে। কমিশন সভা শেষে ইসি সচিব বলেন, গাজীপুর, খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী ও সিলেট এই পাঁচ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে কমিশন সভায় আলোচনা করা হয়েছে। এগুলোতে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে বৈঠকে বিস্তারিত তফসিল ঘোষণা করা হয়নি। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘গাজীপুর ও খুলনা সিটিতে প্রথম সভা আগে হয়েছে। এজন্য সেদিন (৩১ মার্চ) এই দুই সিটির তফসিল ঘোষণা করা হবে।’ সম্প্রতি পাঁচ সিটি কর্পোরেশনে ভোট করতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মতামত চেয়ে চিঠি দেয় নির্বাচন কমিশন। চিঠিতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনসহ রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সীমানা, ওয়ার্ড বিভক্তিকরণ, নির্বাচন, আদালতের আদেশ প্রতিপালন ও প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয়ে জরুরী ভিত্তিতে সর্বশেষ অবস্থাসহ মতামত জানাতে বলা হয়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন সম্প্রতি বলেন, সিটি নির্বাচনের ভোটে সরকারের আপত্তি নেই। তবে ভোট নিয়ে কোন জটিলতা আছে কি না, আইনী সমস্যা আছে কি না, সে বিষয়ে বিভাগীয় কমিশনারদের কাছ থেকে প্রতিবেদন চেয়েছেন তারা। এই প্রতিবেদন পেলেই নির্বাচন কমিশনকে জবাব দেয়া হবে।