ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১

ইউক্রেনের আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে রাশিয়া 

প্রকাশিত: ১৪:৫৮, ২২ জুন ২০২৪

ইউক্রেনের আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের নিয়ন্ত্রণ নিচ্ছে রাশিয়া 

ইউক্রেনের আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর চাসিভ

ইউক্রেনের গুরুত্বপূর্ণ শহর চাসিভ ইয়ার চারপাশে রাশিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করা অত্যন্ত কঠিন হয়ে উঠেছে বলে জানিয়েছে কিয়েভ। শহরটিকে রক্ষা করতে নিয়োজিত ইউক্রেনীয় সামরিক ইউনিট এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বৃহস্পতিবার (২০ জুন) সন্ধ্যায় ইউক্রেনের ২৪তম যান্ত্রিক ব্রিগেডের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তাদেরকে চাসিভ ইয়ার শহরে পাঠানো হয়েছে। কারণ রাশিয়া সেখানে তুমুল আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে।

পৃথকভাবে, দোনেৎস্কের দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর সেলিডোদের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রাশিয়ার বিমান হামলায় দুজন নিহত ও তিনজন আহত হয়েছে। আঞ্চলিক গভর্নর ওই অঞ্চল থেকে লোকজনদের নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

তারা আরও জানায়, চাসিভ ইয়ার শহর ও এর আশেপাশের পরিস্থিতি অত্যন্ত কঠিন। রাশিয়া ক্রমাগত সামনের দিকে এগোচ্ছে ও ব্যাপক সম্মুখ আক্রমণ করছে।

চাসিভ ইয়ার শহরটি বাখমুতের পশ্চিমে অবস্থিত ও এর কাছাকাছি আভদিভকা শহর। আভদিভকা শহরটিতে গত এক দশক ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। শহরটি রাশিয়ার জন্য বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ২০১৪ সালে শহরটির কিছু অংশ মস্কো-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা দখলে নিয়েছিল। কিন্তু পরে ইউক্রেনীয় সেনারা সেটার নিয়ন্ত্রণ নিতে সক্ষম হয়। ২০২২ সালে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর ২০২৩ সালে ফেব্রুয়ারিতে মস্কো আবারও শহরটির নিয়ন্ত্রণ নেয়।

এর আগে রুশ ভূখণ্ড ও ক্রিমিয়ার আকাশ থেকে রাতভর ইউক্রেনের শতাধিক ড্রোন ভূপাতিত করার কথা জানায় মস্কো। এতে রাশিয়ায় একজন নিহত হওয়ারও খবর পাওয়া যায়। এর পরপরই মূলত চাসিভ ইয়ার শহর রক্ষায় ইউক্রেন সেনাবাহিনীর ২৪তম যান্ত্রিক ব্রিগেডকে নতুন করে মোতায়েন করা হয়।

সম্প্রতি রুশ বাহিনী চাসিভ ইয়ারকে তাদের হামলার অন্যতম লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে। যুদ্ধ শুরুর আগে পাহাড়ি এই শহরটিতে প্রায় ১২ হাজার মানুষ বসবাস করতো। ধারণা করা হচ্ছে, এই শহরের নিয়ন্ত্রণ হারালে দনবাসের ইউক্রেন নিয়ন্ত্রিত অন্যান্য শহর আরও বেশি ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। শহরগুলো তখন রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে চলে যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের দ্য ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব ওয়্যার (আইএসডব্লিউ) জানিয়েছে, রাশিয়া চাসিভ ইয়ার শহরটি দখল করে ফেললে, এই অঞ্চলের অন্যান্য শহর বিশেষ করে, কোস্তন্তিনিভকা ও দ্রুজকিভকা শহরে অভিযান চালানো আরও সহজ হয়ে যাবে। ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর জেনারেল স্টাফ জানিয়েছে, এরই মধ্যে শুক্রবার (২১ জুন) সকাল থেকে চাসিভ ইয়ার ও ক্লিশ্চিভিকা শহরে তিন দফায় ঢোকার চেষ্টা করেছে রুশ বাহিনী।

তাসমিম

×