ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ২১ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১

পরিবারের সদস্যকে হারিয়েছে গাজার ৬০ শতাংশ মানুষ

প্রকাশিত: ১৪:৫৮, ১৩ জুন ২০২৪

পরিবারের সদস্যকে হারিয়েছে গাজার ৬০ শতাংশ মানুষ

৮০ শতাংশ মানুষের পরিবারের অন্তত এক সদস্য ইসরায়েলি বোমা হামলায় নিহত অথবা আহত হয়েছেন।

ইসরায়েলের বোমা হামলায় গাজার ৬০ শতাংশ মানুষ পরিবারের কোনো না কোনো সদস্যকে হারিয়েছেন।

এছাড়া ৮০ শতাংশ মানুষের পরিবারের অন্তত এক সদস্য ইসরায়েলি বোমা হামলায় নিহত অথবা আহত হয়েছেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা বুধবার (১২ জুন) এক জরিপের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে।

জরিপে আরও উঠে এসেছে, গাজার প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষ মনে করেন গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামাস যে হামলা চালিয়েছিল সেটি সঠিক ছিল। কারণ এরমাধ্যমে গাজার মানুষের অধিকারের বিষয়টি বিশ্ববাসীর নজরে এসেছে।

এই হামলার আগে ফিলিস্তিনিদের কথা প্রায় ভুলতে বসেছিল বিশ্ব। এমনকি তাদের প্রাপ্য অধিকার নিশ্চিত না করে ইহুদিবাদী ইসরায়েলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ কয়েকটি দেশ।

জরিপটিতে যারা অংশ নিয়েছেন তারা গাজা উপত্যকা এবং পশ্চিমতীরের বাসিন্দা। তবে গাজার উত্তরাঞ্চলের বাসিন্দাদের এই জরিপে রাখা সম্ভব হয়নি। কারণ যারা জরিপ চালিয়েছেন তারা সেখানে পৌঁছাতে পারেননি।

জরিপে আরও দেখা গেছে, দুই-তৃতীয়াংশ ফিলিস্তিনি মনে করেন হামাস এই যুদ্ধে জয় পাবে। যদিও গাজার বাসিন্দারা হামাসের জয়ের ব্যাপারে খুব বেশি একটা সম্ভাবনা দেখেন না। এছাড়া গাজার অর্ধেক মানুষ মনে করেন ইসরায়েলি হামলা বন্ধ হয়ে গেলে হামাস আবারও উপত্যকাটির নিয়ন্ত্রণে আসবে।

এই জরিপে যারা অংশ নিয়েছেন তাদের বেশিরভাগই ফিলিস্তিনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের পদত্যাগ চেয়েছেন। বর্তমানে ফিলিস্তিনিদের মধ্যে হামাস এবং মারওয়ান বারগোতির জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জরিপটিতে আরও উঠে এসেছে, গাজা উপত্যকার সাধারণ মানুষ দ্বিরাষ্ট্র নীতি আর চায় না। এর বদলে দখলদার ইসরায়েলের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামের প্রতি সমর্থন রয়েছে তাদের। এছাড়া ৬০ শতাংশের বেশি ফিলিস্তিনি মাহমুদ আব্বাসের ফিলিস্তিনি অথরিটির (পিএ) বিলীন চায়।

সূত্র: আলজাজিরা

তাসমিম

×