ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আমি দেশ ছাড়ার মানুষ নই

নিষেধাজ্ঞার পর ইমরান খান

প্রকাশিত: ২১:০২, ২৬ মে ২০২৩

আমি দেশ ছাড়ার মানুষ নই

ইমরান খান

সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান, তার স্ত্রী বুশরা বিবিসহ ইমরানের দলের বহু নেতার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে শাহবাজ শরীফ সরকার। শুক্রবার পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রীর স্বরাষ্ট্র ও আইন বিষয়ক বিশেষ সহকারী আতাউল্লাহ তারার এ খবর নিশ্চিত করেন। সরকারের এই নিষেধাজ্ঞার খবরের পর সাবেক ক্রিকেট তারকা ইমরান বলেন যে, তিনি দেশ ছাড়বেন না। খবর ডন ও এক্সপ্রেস ট্রিবিউন অনলাইনের।
আতাউল্লাহ তারার আরও বলেন,  দেশ ছেড়ে পালাতে পারেন এই শঙ্কায় ইমরান খান, তার স্ত্রী বুশরা বিবি এবং তেহরিক-ই ইনসাফের সাবেক-বর্তমান কয়েক ডজন নেতার নাম ‘নো ফ্লাই লিস্টে’ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সাধারণত কারও নাম দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞাজনিত কোনো তালিকায় থাকলে ওই নাম বিভিন্ন বন্দরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এমন ক্ষেত্রে তালিকায় থাকা ব্যক্তি উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া দেশ ছাড়তে পারেন না। এ তালিকায় আরও কাসিম সুরি, মুরাদ সাঈদ, হাম্মাদ আজহার, ইয়াসমিন রশিদ ও আসলাম ইকবালের মতো পিটিআইয়ের প্রভাবশালী নেতাদের নাম আছে।

আছেন সদ্যই দলটি ছাড়া আসাদ উমর ও মালিকা বোখারির মতো রাজনীতিকরাও। সাধারণত ‘বিপজ্জনক’ লোকজনের চলাফেরায় বিধিনিষেধ আরোপ এবং দেশের বাইরে যাওয়া ঠেকাতে তাদের নাম ‘নো ফ্লাই লিস্টে’ দেওয়া হয়। তবে পাকিস্তানের প্রায় সব সরকারই তাদের বিরোধীদের নাম নিয়মিতই এ তালিকায় ঢুকিয়েছে। একের পর এক মামলা, গ্রেপ্তারের পাশাপাশি বিদেশ যাত্রায় এই নিষেধাজ্ঞা বিরোধী নেতাদের ওপর চাপ বাড়াতে কাজে লাগে। ইমরান দেশ ছাড়ছেন না। তিনি কোথাও যাবেন না। তাই তার নাম এই তালিকায় রাখা অর্থহীন, বলেছেন পিটিআইয়ের নেতা ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফররুখ হাবিব।

ইমরান ‘রাজনৈতিক নিপীড়নের’ শিকার হচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি। এ জবাবে শুক্রবার এক টুইটে ইমরান বলেন, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার তালিকায় আমার নাম রাখার জন্য ধন্যবাদ। দেশ ছাড়ার কোনো পরিকল্পনাই আমার নেই। আমি এই ধরনের লোক নই। কারণ বিদেশে আমার ব্যবসাও নেই, সম্পত্তিও নেই। এমনকি দেশের বাইরে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টও নেই আমার।
তিনি আরও বলেছেন, যদি অবকাশ যাপনের সুযোগ পাই, তাহলে সেই স্থানটি হবে আমাদের দেশের দক্ষিণের পাহাড়গুলো। বিশ্বে এটিই আমার সবচেয়ে প্রিয় জায়গা।
কথিত আল-কাদির ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৯ মে ইসলামাবাদ আদালতের ভেতর থেকে ইমরান খানকে আটক করেছিল পাকিস্তানের আধা-সামরিক বাহিনী। এই গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ইমরানের সমর্থকরা দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। ওইদিন সেনাবাহিনীর সদর দপ্তর এবং লাহোরে এক কর্পস কমান্ডারের বাড়িতেও হামলা হয়। এসব আন্দোলন ও হামলার দোহাই দিয়ে এখন ইমরানের দল পিটিআইকে নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা করছে দেশটির সরকার।

×