ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ২৪ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে কয়টি দেশকে চিঠি দিলেন ইসরায়েল? 

প্রকাশিত: ১৫:৪৭, ১৬ এপ্রিল ২০২৪

ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে কয়টি দেশকে চিঠি দিলেন ইসরায়েল? 

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়ে ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাটজ বেশ কিছু দেশকে চিঠি দিয়েছেন।

ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন,তার সরকার ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র এবং ড্রোন হামলার জবাবে সামরিক প্রতিক্রিয়ার কথা বিবেচনা করছে। ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়ে ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাটজ বেশ কিছু দেশকে চিঠি দিয়েছেন।

সামাজিক মাধ্যম এক্সের এক পোস্টে ইসরায়েল কাটজ বলেন, আজ সকালে আমি ৩২টি দেশকে চিঠি পাঠিয়েছি এবং ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবিতে বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলেছি।

ইরানকে প্রতিহত করতে এবং দেশটিকে দুর্বল বানাতে ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনীকে (আইআরজিসি) সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে আখ্যা দেওয়ার জন্যও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ইসরায়েল কাটজ বলেন, দেরি হয়ে যাওয়ার আগে ইরানকে অবশ্যই এখনই থামতে হবে।

ইসরায়েলি ভূখণ্ডে প্রথমবারের মতো ইরানের ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনায় ‘সীমিত’ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে ইসরায়েল। ইরানের বাইরে ইরান-সমর্থিত শক্তিগুলোর ওপর হামলা চালাতে পারে ইসরায়েলি বাহিনী। 

যুক্তরাষ্ট্রের চার কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) এ তথ্য জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম এনবিসি নিউজ। গত শনিবার (১৩ এপ্রিল) ইসরায়েলকে লক্ষ্য করে তিন শতাধিক ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নজিরবিহীন হামলা চালায় ইরান।

সম্প্রতি সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে ইরানি কনস্যুলেটে হামলা চালিয়ে ১৩ জনকে হত্যার প্রতিক্রিয়ায় এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে তেহরান। দামেস্কে গত ১ এপ্রিলের ওই হামলার পরপরই কঠোর প্রতিশোধ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল তারা।

এর আগে ইরানের নজিরবিহীন ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করতে ইসরায়েলের যুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রিসভা এরই মধ্যে বৈঠক করেছে। তবে তারা কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে কিনা তা প্রকাশ করা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রসহ ইসরায়েলের মিত্ররা ইরানের এমন হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। তবে বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু সরকারকে সংযম দেখানোর আহ্বানও জানানো হয়েছে।

সম্প্রতি হোয়াইট হাউজও ইসরায়েলকে সতর্ক করে জানিয়েছে যে, যুক্তরাষ্ট্র ইরানের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিশোধমূলক হামলায় অংশ নেবে না। মার্কিন প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তবে শনিবার রাতে হামলায় অংশ নেওয়া ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন তাদের লক্ষ্যে পৌঁছানোর আগেই প্রায় সবগুলো অস্ত্র গুলি করে ভূপাতিত করেছে ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র এবং এর মিত্রবাহিনী। মার্কিন কর্মকর্তারা বলেছেন, ইসরায়েলকে এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া ‘সাবধানে’ বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ইরানের ছোড়া ড্রোন-ক্ষেপণাস্ত্রের ৯৯ শতাংশই ভূপাতিত করার দাবি করেছে ইসরায়েল। তবে এই হামলায় মধ্যপ্রাচ্যে সংঘাত আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

তাসমিম

×