ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

৭০০ মিলিয়ন ডলারের বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের অর্ডার

ইউক্রেনকে এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম দেবে ন্যাটো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৫৯, ১০ জুলাই ২০২৪

ইউক্রেনকে এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম দেবে ন্যাটো

স্টিংগার বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র কাঁধে ইউক্রেনীয় সেনা

৭৫ বছরে পা দিয়েছে সামরিক জোট ন্যাটো। আর সে সময়েই ওয়াশিংটনে বসেছে ন্যাটোর সম্মেলন। প্রথম দিন উদ্বোধনী ভাষণ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বক্তৃতায় একটিই উল্লেখযোগ্য বিষয়ে কথা বলেছেন তিনি। বাইডেন জানিয়েছেন, রাশিয়াকে রুখতে ইউক্রেনকে আরও এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম দেওয়া হবে। অতীতে এই সিস্টেম ইউক্রেনকে রাশিয়ার আক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করেছে। খবর এএফপির।
৭০০ মিলিয়ন ডলারের স্টিংগার বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের অর্ডার দিয়েছে ন্যাটো। কয়েকটি সদস্য রাষ্ট্রের নামে এই অর্ডার দিয়েছে জোটটি। বুধবার ন্যাটোর মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ এই তথ্য জানিয়েছেন। ওয়াশিংটনে ন্যাটো শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে প্রতিরক্ষা শিল্পের নেতাদের সঙ্গে এক সমাবেশে স্টলটেনবার্গ বলেন, ন্যাটো প্রকিউরমেন্ট এজেন্সি (এনএসপিএ) প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলারের স্টিংগার ক্ষেপণাস্ত্রের একটি নতুন বহুজাতিক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।

এর আগে ২০২২ সালের মে মাসে সর্বশেষ স্টিঙ্গার ক্ষেপণাস্ত্রের জন্য একটি চুক্তি করেছিল আরটিএক্সের রেথিয়ন ডিভিশন। তখন ইউক্রেনের জন্য ৬২৫ মিলিয়ন ডলারের বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের চুক্তি করে মার্কিন সেনাবাহিনী। কাঁধে বহন করে চালাতে হয় এই স্টিংগার ক্ষেপণাস্ত্র। ইউক্রেনে এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এটি ব্যবহার করে যুদ্ধক্ষেত্রে সেনারা সফলভাবে আকাশপথে রাশিয়ার আক্রমণ প্রতিহত করেছে। প্রতিবেশী ইউরোপীয় দেশগুলোও আশঙ্কা করছে, তাদের রুশ বাহিনীকে পরাজিত করার প্রয়োজন হতে পারে। আরটিএক্সের এক মুখপাত্র রয়টার্সকে জানিয়েছেন, স্টিংগারের জন্য ন্যাটোর এই অর্ডার সরবরাহ করতে ২০২৯ সাল পর্যন্ত এর উৎপাদন অব্যাহত থাকবে।
বাইডেনের ঘোষণার কিছুক্ষণের মধ্যেই ধন্যবাদ জানিয়ে বিবৃতি দেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। তবে একই সঙ্গে তার আবেদন, আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলোকে এই সিস্টেম দ্রুত দিতে হবে। রাশিয়াকে ঠেকাতে আরও সাহায্য প্রয়োজন ইউক্রেনের। একইসঙ্গে জেলেনস্কি বলেছেন, আমেরিকায় নির্বাচনের আগেই যেন এই ডিফেন্স সিস্টেম ইউক্রেনের হাতে তুলে দেওয়া হয়। শুধু আমেরিকা নয়, জার্মানি, রোমানিয়া, ইতালি, নেদারল্যান্ডসকেও ধন্যবাদ দিয়েছেন তিনি এই প্রস্তাবে সহমত হওয়ার জন্য। জেলেনস্কি বলেছেন, এই ডিফেন্স সিস্টেমের সাহায্যে রাশিয়ার ক্রমাগত ড্রোন আক্রমণ প্রতিহত করা যাবে।
ওয়াশিংটনে এদিন জেলেনস্কি একটি বিষয়ে অৎয়ন্ত সোচ্চার ছিলেন। তিনি বলেছেন, নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচন। তার আগেই যেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরও কড়া পদক্ষেপ নেয় পশ্চিমা দেশগুলো।

×