ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

সীমান্তবর্তী গ্রাম দখলের দাবি রাশিয়ার

ইউক্রেন বাহিনীতে ৬৭ হাজার নারী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:২৮, ১০ জুন ২০২৪

ইউক্রেন বাহিনীতে ৬৭ হাজার নারী

ইউক্রেনীয় নারী সেনারা

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীতে এই মুহূর্তে ৬৭ হাজারের বেশি নারী কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন দেশটির উপ প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাতালিয়া কালমিকোভা। স্থানীয় টেলিভিশনে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ তথ্য জানান। নাতালিয়া কালমিকোভা বলেন, আমাদের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী যোদ্ধা চলমান ইউক্রেন যুদ্ধে সম্মুখ সমরে লড়াই করছেন।

তারা গুলি চালানো থেকে শুরু করে ভারি আর্টিলারি মেশিন নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। এদিকে ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তবর্তী একটি গ্রাম দখলের দাবি করেছে রাশিয়া। রাশিয়ার চেচনিয়া অঞ্চলের নেতা রমজান কাদিরভ দাবি করেছেন, চেচেন-ভিত্তিক বিশেষ বাহিনী ইউনিটের নেতৃত্বে রুশ বাহিনী ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সুমি অঞ্চলের রিজিভকার একটি সীমান্তবর্তী গ্রামের দখলে নিয়েছে। খবর এএফপির।
রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে শান্তি আলোচনার পথ সুগম করার লক্ষ্যে একটি শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করতে যাচ্ছে সুইজারল্যান্ড। এতে অংশ নিতে এখন পর্যন্ত পর্যন্ত ৯০টি রাষ্ট্র এবং সংস্থা নিবন্ধন করেছে। সোমবার এই তথ্য জানিয়েছে সুইস সরকার। ১৫-১৬ জুন এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে সোমবার রাশিয়ার দখলকৃত দোনেৎস্ক ও খেরসনের একাংশে ইউক্রেনীয় হামলায় দুই বেসামরিক নিহত হয়েছেন। ভয়েস অব ইউক্রেন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনে রাশিয়া বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করার পর বিপুল সংখ্যক ইউক্রেনীয় নারী সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে শুরু করেন। বর্তমানে সশস্ত্র বাহিনীতে ৬৭ হাজারের বেশি নারী রয়েছেন। এদের মধ্যে ১৯ হাজার সাধারণ কর্মী ও অন্যান্য বাহিনীর বিভিন্ন পরিষেবায় যুক্ত রয়েছেন। 
নাতালিয়া কালমিকোভা বলেন, ইউক্রেনের সমাজ নারীকে সেনাবাহিনীর কাজের উপযুক্ত মনে করত না। কিন্তু ২০২৮ সালে আইন সংশোধন হওয়ার পর এ অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। এখন প্রচুর সংখ্যক নারী সেনাবাহিনীতে যোগ দিচ্ছেন। তবে নারীদের পদোন্নতির ব্যাপারে এখনো কিছু সমস্যা রয়ে গেছে বলে জানান নাতালিয়া কালমিকোভা।

তিনি বলেন, সমস্যাগুলো সমাধানে কাজ চলছে। ইউক্রেন সেনাবাহিনীর তথ্যমতে, ইউক্রেনে রুশ আক্রমণ শুরুর পর গত বছর ইউক্রেন সেনাবাহিনীতে নারীর যোগদানের সংখ্যা ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে গেছে।

×