ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

যুদ্ধের এক বছর পূর্তিতে  হামলা হতে পারে

রাশিয়ার বড় হামলার শঙ্কা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৫৯, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

রাশিয়ার বড় হামলার শঙ্কা

ওলেক্সি রেজনিকভ

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেক্সি রেজনিকভ সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, চলতি মাসেই আবার রাশিয়ার বড় হামলার আশঙ্কা করছে ইউক্রেন। মূলত যুদ্ধের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে হামলা চালাবে তারা। তবে তিনি জানিয়েছেন, রাশিয়ার এ হামলা প্রতিহতের সক্ষমতা ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর আছে। খবর দ্য গার্ডিয়ানের।
তিনি বলেছেন, আমরা ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়ার বড় হামলার আশঙ্কা করছি। এটি শুধুই প্রতীকী দিক থেকে। সামরিক দিক থেকে এর কোনো যুক্তিই নেই। কারণ তাদের সেনারা পুরোপুরি প্রস্তুত নয়। কিন্তু তারা তবুও এ হামলা চালাবে। তিনি জানিয়েছেন, হামলাটা মূলত হবে পূর্ব দিকে অবস্থিত দনবাসে। এ অঞ্চল পুরোটি দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছে রুশ সেনারা। অথবা হামলা হতে পারে দক্ষিণ দিকের অঞ্চলগুলোতে।

যেখান দিয়ে রাশিয়া ইউক্রেনের দখলকৃত ক্রিমিয়া উপদ্বীপের সঙ্গে স্থল সংযোগ তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। ইউক্রেনের মন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, বর্তমানে বেলারুশে রাশিয়ার ১২ হাজার সেনা অবস্থান করছে। এ সংখ্যক সেনা দিয়ে ইউক্রেনের রাজধানীর দিকে হামলা চালাতে পারবে না তারা। ফলে রাজধানী কিয়েভ ও এর আশপাশের অঞ্চলগুলোতে হামলার শঙ্কা নেই। প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেক্সি রেজনিকোভ আরও জানিয়েছেন, রাশিয়া হামলা শুরুর আগে ইউক্রেন হয়ত পশ্চিমাদের প্রতিশ্রুত সব অস্ত্র পাবে না।

কিন্তু বর্তমানে তাদের কাছে যেসব অস্ত্র আছে সেগুলো দিয়েই রাশিয়ার হামলা ঠেকানো যাবে। বিশেষ সামরিক অভিযান চালানোর নামে ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি পুরো ইউক্রেনজুড়ে হামলা চালায় রাশিয়ার সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী। এই সময়ের মধ্যে ইউক্রেনের প্রায় ২০ ভাগ অঞ্চল দখল করেছে রুশ বাহিনী। কয়েক মাস তীব্র যুদ্ধ চলার পর ধীরে ধীরে তা সীমিত হয়ে আসে। বিশেষ করে রুশ সেনারা তাদের আক্রমণের তীব্রতা কমিয়ে দেয়। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া দূর-পাল্লার অস্ত্র রাশিয়ার ভূখ-ে আঘাত হানতে ব্যবহার করবে না ইউক্রেন।

কেবল অধিকৃত ইউক্রেন ভূখ-ে রাশিয়ার সেনা ইউনিটগুলোকে নিশানা করা হবে বলে সোমবার জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী। যুক্তরাষ্ট্র গত শনিবার নিশ্চিত করে জানিয়েছে যে, রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়তে কিয়েভের জন্য সহায়তা প্যাকেজে নতুন একটি রকেট যোগ করা হচ্ছে। এই রকেট দিয়ে ইউক্রেন দ্বিগুণ দূরের লক্ষ্যে আঘাত হানতে পারবে। ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সবসময় সরকারিভাবে আমাদের অংশীদারদের বলি যে, আমরা বিদেশী অংশীদারদের সরবরাহ করা অস্ত্র রাশিয়ার ভূখ-ে হামলার জন্য ব্যবহার করব না।

আমরা কেবল সাময়িকভাবে ইউক্রেনের অধিকৃত অঞ্চলগুলোতে রুশ ইউনিটের ওপর আঘাত হানতে এই অস্ত্র ব্যবহার করব। ইউক্রেনকে যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র সরবরাহের বিরুদ্ধে রাশিয়া হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। যুক্তরাষ্ট্র যত অস্ত্র ইউক্রেনকে সরবরাহ করবে প্রতিশোধ নিতে রাশিয়া তত বেশি আক্রমণ করার হুমকি দিয়েছে। এমনকি তা পরমাণু যুদ্ধ পর্যন্ত গড়াতে পারে বলে সতর্ক করেছেন রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে রাশিয়ার অভিযানের এক বছর পূর্ণ হবে। এই এক বছরের যুদ্ধে রাশিয়া উল্লেখ করার মতো কোনো অগ্রগতি অর্জন করতে পারেনি।

×