ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

মন্থনের ইতিবৃত্ত এবং কান যাত্রা

​​​​​​​সংস্কৃতি ডেস্ক

প্রকাশিত: ২০:৫৬, ১৯ মে ২০২৪

মন্থনের ইতিবৃত্ত এবং কান যাত্রা

.

সিনেমার গল্পটি আবর্তিত দুগ্ধ সমবায় আন্দোলনের সূচনাকে কেন্দ্র করে। সত্তর দশকের মাঝামাঝি সময়। পরিচালক শ্যাম বেনেগাল একটি সিনেমা বানাবেন, কিন্তু পর্যাপ্ত টাকার যোগান নেই। নির্মাতা সিদ্ধান্ত নিলেন গণঅর্থায়নে পর্দায় গল্প বুনবেন তিনি। এই খবরে এগিয়ে আসলেন গুজরাট রাজ্যের পাঁচ লাখ দুগ্ধ খামারি, তারা প্রত্যেকে দুই রুপি করে চাঁদা দিলেন। তৈরি হলমন্থননামের একটি সিনেমা। নির্মাণের প্রায় ৫০ বছর পর কান চলচ্চিত্র উৎসবে ধ্রুপদি চলচ্চিত্রের বিভাগ কান ক্লাসিকে সিনেমাটির প্রদর্শনী হয়। পরিচালকের পাশাপাশি প্রদর্শনীতে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্রটির অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ, অভিনেত্রী স্মিতা পাতিলের পরিবার, ভার্গিস কুরিয়েনের কন্যা, প্রযোজক এবং ভারতের ফিল্ম হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের পরিচালক শিবেন্দ্র সিং দুঙ্গারপুর।

বিবিসি লিখেছে, ‘মন্থনভারতের গণঅর্থায়নে নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র। এই সিনেমায় দুগ্ধ সমবায় আন্দোলন তুলে ধরেছিলেন শ্যাম বেনেগাল। আর সিনেমার গল্প থেকে পাওয়া বার্তা নিয়ে দুধের ঘাটতিতে থাকা ভারত শীর্ষ স্থানীয় দুধ উৎপাদনকারী দেশে পরিণত হয়।

সিনেমার পরিচালক শ্যাম বেনেগাল বলেছেন, ‘মন্থনতার মনের মতো কাজগুলোর একটি। ৮৯ বছর বয়সী এই সিনেমা নির্মাতা বলেন, প্রিন্ট রিস্টোর করার পর চোখের সামনে চলচ্চিত্রটিকে জীবন্ত হয়ে উঠতে দেখলাম, যেন গতকালই বানানো হয়েছে। এক অসাধারণ অভিজ্ঞতা বলতে পারেন।

×