ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

খেলা

দলে নিজের জায়গা করে নিতে চান নাঈম

প্রকাশিত: ০১:২৫, ২১ মে ২০২২

দলে নিজের জায়গা করে নিতে চান নাঈম

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইন্দোনেশিয়ার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচ ও এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইকে সামনে রেখে গত মঙ্গলবার থেকে বসুন্ধরা কিংস এ্যারেনায় জোরদার অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। শুক্রবার অনুশীলন শুরুর আগে জাতীয় দলের অন্যতম গোলরক্ষক মোহাম্মদ নাঈম মুখোমুখি হন গণমাধ্যমের। নাইম বলেন, ‘ছয় বছর পর আবারও জাতীয় দলে ডাক পেয়েছি। এটা আমার ব্যক্তিগত চ্যালেঞ্জ বলতে পারেন। এ পর্যন্ত আসতে আমাকে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে। ছয় বছর আগে জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছিলাম। কিন্তু চূড়ান্ত দল ঘোষণার আগের মুহূূর্তে আমাকে বাদ দেয়া হয়। এরপর থেকে নিজেকে প্রমাণের জন্য বেছে নিই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগকে। সেখানে যথামাধ্য চেষ্টা করে গেছি ভাল পারফরম্যান্স দেখানোর জন্য। সেই সুবাদে অবশেষে আবারও জাতীয় দলে ফিরেছি। তবে আশা করেছিলাম গত বছরই ফিরব। কেননা চট্টগ্রাম আবাহনীর হয়ে সেবার অনেক ভাল খেলেছিলাম। তবে শেখ জামাল ধানম-ির হয়ে এবারও ভাল খেলেছি। এখন আমার চেষ্টা থাকবে আরও কতদূর এগুনো যায়।’ ২৬ বছর বয়সী সুঠাম দেহের অধিকারী নাঈম আরও বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, জাতীয় দলে ডাক পেয়ে খুবই খুশি। তবে এটা বলতে চাই না যে আমি দলে জায়গা করে নিতে এসেছি। কেননা সবাই জানেন, আনিসুর রহমান জিকো এবং আশরাফুল ইসলাম রানার মতো অভিজ্ঞ দুজন গোলরক্ষক দলে আছেন। তাদের জায়গা নেয়া মুশকিল। তবে আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করব।’ ছয় বছর আগে যখন নাঈম জাতীয় দলে ডাক পেয়েছিলেন, সেই দলের চার-পাঁচ ফুটবলার এখনও বর্তমান দলে আছেন। বেশিরভাগই নতুন খেলোয়াড়। তাদের ভিড়ে টিকে থাকাটাকে ‘চ্যালেঞ্জ’ হিসেবেই নিতে চান নাঈম। সেই সঙ্গে এটাও যোগ করেন, ‘জাতীয় দলের গোলরক্ষক কোচ বিপ্লবদা (বিপ্লব ভট্টাচার্য্য) আমাদের সবার পরিচিত। তিনি আমাদের খুবই ভালভাবেই অনুশীলন করাচ্ছেন। সেই সঙ্গে তিনি ভিডিও সেশন করেও আমাদের ভুলত্রুটি ধরিয়ে দিচ্ছেন, অন্যদের ভিডিও দেখাচ্ছেন। এতে আমার অনেক উপকার হচ্ছে।’ কিংস এ্যারেনায় টানা অনুশীলনের পর ২৭ মার্চ ইন্দোনেশিয়ার উদ্দেশে রওনা হবে বাংলাদেশ দল। আগামী ১ জুন জাকার্তায় স্বাগতিক ইন্দোনেশিয়ার বিপক্ষে একটি ম্যাচ খেলে মালয়েশিয়ায় যাবে বাংলাদেশ দল। সেখানে এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইয়ে ৮, ১১ ও ১৪ জুন তিনটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ স্বাগতিক মালয়েশিয়া, তুর্কমেনিস্তান ও বাহরাইন। বসুন্ধরা কিংস এএফসি কাপ খেলতে কলকাতা যাওয়ায় ওই দলের কমপক্ষে ৮/৯ খেলোয়াড় বাদ দিয়েই অনুশীলন শুরু করেছেন কোচ জাভিয়ের। প্রথম ধাপের ঘোষিত স্কোয়াডে কোচ অনুশীলনের জন্য বাফুফে এলিট একাডেমির এক গোলরক্ষককে ডেকেছেন। তবে তাকে ডাকা হয়েছে দলের সঙ্গে শুধু অনুশীলনের জন্য বা অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য। এই ২১ জনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৫ ফুটবলার ঢাকা আবাহনীর। প্রথম ধাপের প্রাথমিক স্কোয়াড ॥ আশরাফুল ইসলাম রানা, মিতুল মারমা, রায়হান হাসান, টুটুল হোসেন বাদশা, রাকিব হোসেন, আবু সাইদ, রিয়াদুল হাসান রাফি, জামাল ভুঁইয়া, মারাজ হোসেন, ফয়সাল আহমেদ ফাহিম, রহমত মিয়া, সাদ উদ্দিন, হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস, জাফর ইকবাল, মোহাম্মদ নাঈম, ইসা ফয়সাল, সোহেল রানা, পাপন সিং এবং আসিফ হোসেন (শুধু অনুশীলনের জন্য)।