সোমবার ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ১৭ মে ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সৎভাইকে নিয়ে জনসমক্ষে জর্ডানের বাদশাহ

সৎভাইকে নিয়ে জনসমক্ষে জর্ডানের বাদশাহ

অনলাইন ডেস্ক ॥ পারিবারিক দ্বন্দ্ব মিটিয়ে সিংহাসনের সাবেক উত্তরসূরি ও সৎভাই প্রিন্স হামজা বিন হুসেইনকে সঙ্গে নিয়ে প্রথমবারের মতো জনসমক্ষে আসলেন জর্ডানের বাদশাহ আবদুল্লাহ। স্বাধীনতার শতবর্ষপূর্তিতে রবিবার এক অনুষ্ঠানে তাদের একসঙ্গে দেখা গেছে। খবর রয়টার্সের।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে দেখা গেছে, বাদশাহ ও পরিবারের অন্যান্য সদস্য অজ্ঞাত সেনাদের স্মৃতিসৌধ ও রাজপরিবারের সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সোমবার বাদশাহ আবদুল্লাহর প্রতি আনুগত্য স্বীকার করে নেন রাজপুত্র হামজা। তার বিরুদ্ধে জর্ডানের নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা হুমকিতে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছিল। যদিও হামজা সেই অভিযোগ অস্বীকার করেন।

বুধবার এক বিবৃতিতে বাদশাহ বলেন, রাষ্ট্রদ্রোহের ইতি ঘটেছে। হামজা আমার তত্ত্বাবধানে তার বাড়িতেই আছেন। এই ষড়যন্ত্র সবচেয়ে বেশি যন্ত্রণাদায়ক ছিল। কারণ এটা রাজপরিবারের ভেতর ও বাইরে থেকে হয়েছে।

গত সপ্তাহে হামজাকে হুঁশিয়ারি করে দিয়েছিল সেনাবাহিনী। সরকারের অভিযোগ, জর্ডানকে অস্থিতিশীল করতে বিদেশিদের চেষ্টায় হামজার যোগসাজশ ছিল।

সিংহাসনের উত্তরসূরি হামজার হওয়ার কথা থাকলেও ২০০৪ সালে তাকে বাদ দিয়ে নিজের ছেলেকে নিয়োগ দেন বাদশাহ আবদুল্লাহ।

ইসরায়েলের সাথে ১৯৯৪ সালে স্বাক্ষরিত একটি শান্তিচুক্তির প্রচণ্ড সমালোচনা হয়েছিল জর্দানে, কিন্তু এর ফলে কিছুটা আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা তৈরি হয়।

জর্দানে প্রাকৃতিক সম্পদ খুব বেশি নেই। এছাড়াও ইরাক ও সিরিয়া থেকে যাওয়া প্রচুর সংখ্যক শরণার্থী সামাল দিতে গিয়েও দেশটিকে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে জর্দানের পর্যটন শিল্পও আপাতত প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে যার প্রভাব পড়েছে দেশটির দুর্বল অর্থনীতির ওপর। সরকারের নানা অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে মানুষের ক্ষোভও বেড়েছে।

ওই অঞ্চলের সরকারগুলো বেশ ভালো করেই জানে যে জর্দানে রাজতন্ত্রের পতন ঘটলে তার বিপজ্জনক প্রভাব পড়বে আশপাশের দেশগুলোতেও।

এর ফলে প্রতিবেশী দেশগুলো খুব দ্রুতই বাদশাহ আব্দুল্লাহর প্রতি সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছে।

শীর্ষ সংবাদ:
করোনা : গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৩২, নতুন শনাক্ত ৬৯৮         শিমুলিয়া দিয়ে ঢাকায় ডুকতে ভিড় ॥ ১৮ফেরি চলছে         খোলা থাকছে শপিংমল-বাণিজ্য বিতান         নতুন এমপিওভুক্তির আওতায় ১৪১৭ শিক্ষক-কর্মচারী         “বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ আজ শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বিশ্বের বিস্ময়”         শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ         বঙ্গবন্ধুর নামে পিরোজপুরে প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় করতে আইন অনুমোদন         আমদানি করা যাবে অপরিশোধিত স্বর্ণ         ফিলিস্তিনে হামলার প্রতিবাদে প্রেস ক্লাবে মানববন্ধন         ‘২৫ মে থেকে চীনের টিকার প্রথম ডোজ প্রয়োগ শুরু’         আরও তিনদিনের রিমান্ডে মামুনুল হক         শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে যা বললেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব         যে কোন দূর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত সরকার ॥ ত্রান প্রতিমন্ত্রী         স্পিডবোট দুর্ঘটনায় ২৬ জন নিহত ॥ প্রধান আসামী চালককে জেল হাজতে প্রেরণ         ঘূর্ণিঝড় তাউতের তাণ্ডব ভারতে, মৃত ৪         খুলনায় কেয়ারেন্টাইনে ভারত ফেরত তরুনী ধর্ষণ, এএসআই গ্রেফতার         দেশে করোনার ভারতীয় ভেরিয়েন্টে প্রথম মৃত্যু         ‘শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ইতিহাসে মাইলফলক’         বিশ্বে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩৩ লাখ ৯২ হাজার         বাংলাবাজার ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ঢল ॥ স্বাস্থবিধি উপেক্ষিত