বুধবার ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

১৮ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট কোর্ট ফি জব্দ

  • চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট, কোর্ট ফি তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। কারখানা থেকে তৈরিকৃত ১৮ কোটি টাকা সমমূল্যের জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট ও কোর্ট ফি জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে জাল স্ট্যাম্প তৈরি চক্রের চার সদস্যকে। তারা সারাদেশেই জাল স্ট্যাম্প বিক্রি করে আসছিল। সারাদেশেই তাদের নেটওয়ার্ক রয়েছে। এই চক্রের সঙ্গে এসব নিয়ে কাজ করা লোকজনের অনেকেই জড়িত।

গত ১৯ নবেম্বর পল্টন ও আশুলিয়া থানা এলাকায় অভিযান চালায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রমনা জোনাল টিম। অভিযানে জাল স্ট্যাম্প তৈরির কারখানার সন্ধান মেলে। কারখানা থেকে জব্দ হয় জাল স্ট্যাম্প তৈরির কাজে ব্যবহৃত একটি কম্পিউটার, একটি প্রিন্টার, দুটি বড় ইলেকট্রিক সেলাই মেশিন ও একটি লোহার সেলাই মেশিন। সেখানে পাওয়া যায় ১৮ কোটি টাকা সমমূল্যের জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট ও কোর্ট ফি।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে আশরাফুজ্জামান ওরফে আকাশ (৪৫), মোরসালিন সরদার সোহেল (৩০), রনি শেখ (২৫) ও আবদুল আজিজ (২৩)।

শনিবার বেলা ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আকতার।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতরা বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্প তৈরি করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করছিল। মনির মোল্যা ও সাকিবসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের সহায়তা নিয়ে তারা এ কাজ করে আসছিল। মনির ও সাকিব পলাতক। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রতি পাতা জাল স্ট্যাম্প তৈরিতে ১৫ থেকে ১৬ টাকা খরচ হয়। তা বিক্রি হয় ২৫ থেকে ৩০ টাকায়। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় এগুলো সরবরাহ করতো। বৈধ স্ট্যাম্পের ভেতরে ঢুকিয়ে জাল স্ট্যাম্পগুলো বিক্রি হতো। জাল স্ট্যাম্পগুলো উদ্ধার না হলে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ত। এতে করে সরকার বড় অঙ্কের রাজস্ব হারাতো। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে পল্টন মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে।

অভিযানের নেতৃত্বদানকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার মিশু বিশ্বাস জানান, গ্রেফতারকৃতরা বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্প কিছু অসৎ ভেন্ডারদের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করে আসছিল। এসব সরকারী প্রতিষ্ঠানে কারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের শনাক্ত করার কাজ চলছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ২৭ আগস্ট ঢাকার রমনা থেকে জাল স্ট্যাম্প, জাল ডলার ও জাল টাকাসহ দুজনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। যার আনুমানিক দাম প্রায় পাঁচ কোটি টাকা। গ্রেফতারকৃত আলফাজ উদ্দিন (৬১) ও মাসুদ (৪০) বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্পের ব্যবসা করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আলফাজ উদ্দিন ঢাকা টেক্সেস বার এ্যাসোসিয়েশনের সহকারী হিসাবরক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিল। মাসুদ জাল স্ট্যাম্প, জাল ডলার ও জাল টাকা তৈরির হোতা। এর আগেও জাল-জালিয়াতির অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিল মাসুদ। দীর্ঘ আট বছর এই জাল জালিয়াতি ব্যবসার সঙ্গে জড়িত সে।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৬৩৬৪৯২৯২
আক্রান্ত
৪৬৭২২৫
সুস্থ
৪৪০৩৭৩৬৮
সুস্থ
৩৮৩২২৪
শীর্ষ সংবাদ:
উন্নয়ন প্রকল্পে খেয়াল খুশিমতো রেট সিডিউল বদলানো যাবে না         বিজয় দিবসে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান নয় ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         করোনা ঠেকাতে ভারতে নতুন নির্দেশিকা         ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে ঐতিহ্য নষ্টের চেষ্টা সহ্য করা হবে না ॥ শিক্ষামন্ত্রী         হেফাজতের বাবুনগরী মামুনুলদের গ্রেফতার দাবি         যাবজ্জীবন দণ্ড ৩০ বছরের কারাবাস         দেশে করোনায় আরও ৩১ জনের মৃত্যু         খারাপ ভোটযন্ত্র দিয়ে ভোট হয়েছে এ বছর ॥ ট্রাম্প         আইসিডিডিআরবির সঙ্গে গ্লোবের ভ্যাকসিন ট্রায়াল চুক্তি বাতিল         ‘পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশে শান্তি বজায় রাখতে সরকার বদ্ধপরিকর’         পার্বত্য শান্তিচুক্তি বিশ্বে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে : রাষ্ট্রপতি         আগামী ১ জানুয়ারি ২০২০ চালু হচ্ছে ‘নগর অ্যাপ’: মেয়র আতিকুল         বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কিনবে সৌদি-ভারত-নেপাল-ভুটান         এ বছর বিজয় দিবসের ঘরোয়া অনুষ্ঠান করা যাবে ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী         সড়ক আইন আংশিক কার্যকর করা হয়েছে ॥ ওবায়দুল কাদের         প্যানেল থেকে নিয়োগের সুযোগ কোন নেই স্পষ্ট জানিয়ে দিলো প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর         মানবপাচারে জড়িত দুই বিদেশি এয়ারলাইন্স         এই মুহূর্তে ওমরায় যাওয়ার সুযোগ নেই : ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী         সরকার পানি ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করছে ॥ ডেপুটি স্পীকার         মাস্ক ব্যবহারে অভিযান