শুক্রবার ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

১৮ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট কোর্ট ফি জব্দ

  • চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট, কোর্ট ফি তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। কারখানা থেকে তৈরিকৃত ১৮ কোটি টাকা সমমূল্যের জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট ও কোর্ট ফি জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে জাল স্ট্যাম্প তৈরি চক্রের চার সদস্যকে। তারা সারাদেশেই জাল স্ট্যাম্প বিক্রি করে আসছিল। সারাদেশেই তাদের নেটওয়ার্ক রয়েছে। এই চক্রের সঙ্গে এসব নিয়ে কাজ করা লোকজনের অনেকেই জড়িত।

গত ১৯ নবেম্বর পল্টন ও আশুলিয়া থানা এলাকায় অভিযান চালায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রমনা জোনাল টিম। অভিযানে জাল স্ট্যাম্প তৈরির কারখানার সন্ধান মেলে। কারখানা থেকে জব্দ হয় জাল স্ট্যাম্প তৈরির কাজে ব্যবহৃত একটি কম্পিউটার, একটি প্রিন্টার, দুটি বড় ইলেকট্রিক সেলাই মেশিন ও একটি লোহার সেলাই মেশিন। সেখানে পাওয়া যায় ১৮ কোটি টাকা সমমূল্যের জাল স্ট্যাম্প, ডাকটিকেট ও কোর্ট ফি।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে আশরাফুজ্জামান ওরফে আকাশ (৪৫), মোরসালিন সরদার সোহেল (৩০), রনি শেখ (২৫) ও আবদুল আজিজ (২৩)।

শনিবার বেলা ১১টায় ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আকতার।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতরা বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্প তৈরি করে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করছিল। মনির মোল্যা ও সাকিবসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের সহায়তা নিয়ে তারা এ কাজ করে আসছিল। মনির ও সাকিব পলাতক। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

প্রতি পাতা জাল স্ট্যাম্প তৈরিতে ১৫ থেকে ১৬ টাকা খরচ হয়। তা বিক্রি হয় ২৫ থেকে ৩০ টাকায়। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় এগুলো সরবরাহ করতো। বৈধ স্ট্যাম্পের ভেতরে ঢুকিয়ে জাল স্ট্যাম্পগুলো বিক্রি হতো। জাল স্ট্যাম্পগুলো উদ্ধার না হলে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ত। এতে করে সরকার বড় অঙ্কের রাজস্ব হারাতো। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে পল্টন মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়েছে।

অভিযানের নেতৃত্বদানকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের রমনা জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার মিশু বিশ্বাস জানান, গ্রেফতারকৃতরা বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্প কিছু অসৎ ভেন্ডারদের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারী প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করে আসছিল। এসব সরকারী প্রতিষ্ঠানে কারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের শনাক্ত করার কাজ চলছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ২৭ আগস্ট ঢাকার রমনা থেকে জাল স্ট্যাম্প, জাল ডলার ও জাল টাকাসহ দুজনকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। যার আনুমানিক দাম প্রায় পাঁচ কোটি টাকা। গ্রেফতারকৃত আলফাজ উদ্দিন (৬১) ও মাসুদ (৪০) বহু বছর ধরে জাল স্ট্যাম্পের ব্যবসা করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আলফাজ উদ্দিন ঢাকা টেক্সেস বার এ্যাসোসিয়েশনের সহকারী হিসাবরক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিল। মাসুদ জাল স্ট্যাম্প, জাল ডলার ও জাল টাকা তৈরির হোতা। এর আগেও জাল-জালিয়াতির অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিল মাসুদ। দীর্ঘ আট বছর এই জাল জালিয়াতি ব্যবসার সঙ্গে জড়িত সে।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৬৪২৭০৯১১
আক্রান্ত
৪৬৯৪২৩
সুস্থ
৪৪৫২৭৫৭৬
সুস্থ
৩৮৫৭৮৬
শীর্ষ সংবাদ:
রোহিঙ্গা স্থানান্তর শুরু ॥ উখিয়া থেকে ভাসানচর         একাত্তরের নৃশংসতা ভোলার নয়, এ ব্যথা চিরদিন থাকবে         আগামী বছরজুড়েই থাকবে নির্বাচনী ডামাডোল         মৌলবাদী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে একাট্টা দেশ         শ্রেষ্ঠ অভিনেতা তারিক আনাম, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী সুনেরাহ         করোনায় দেশে আরও ৩৫ জনের মৃত্যু         ’২৪ সালের নির্বাচনে ফের প্রার্থী হতে পারেন ট্রাম্প         প্রতিবন্ধীদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক নিরাপত্তা নিশ্চিতের আহ্বান         বগুড়ায় রেকর্ড পরিমাণ আলু উৎপাদনের সম্ভাবনা         বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় দণ্ডিতদের রাষ্ট্রীয় খেতাব বাতিল চেয়ে রিট         বিএনপি-জামায়াত জোট হেফাজত নেতাদের মন্ত্রী বানাতে চেয়েছিল!         দাম্পত্য কলহের জের, রায়েরবাজারে গৃহবধূ হত্যার অভিযোগ         ঐতিহাসিক ৭ মার্চ দিবস’ উদযাপন উপলক্ষে বাস্তবায়ন কমিটি গঠন         রোহিঙ্গাদের ইউরোপ-আমেরিকা নিচ্ছেন না কেন, প্রশ্ন মোমেনের         ব্রিটেনের সঙ্গে বাণিজ্য বৈঠক জানুয়ারিতে         আগামী ১৩-১৫ ডিসেম্বর জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকায় প্রবেশ নিষেধ         হোয়াইট বোর্ড’–এর দ্বিতীয় সংখ্যা প্রকাশিত         একাত্তরের নৃশংসতা ভোলার নয় : প্রধানমন্ত্রী