মঙ্গলবার ১২ কার্তিক ১৪২৭, ২৭ অক্টোবর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

হেফাজতের আমির আহমদ শফীর ইন্তেকাল

হেফাজতের আমির আহমদ শফীর ইন্তেকাল
  • রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস/ নিজস্ব সংবাদদাতা, ফটিকছড়ি ॥ হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ-এর প্রতিষ্ঠাতা ও আমির, হাটহাজারী দারুল উলুম মইনুল ইসলাম মাদ্রাসার সদ্য সাবেক মহাপরিচালক (মুহতামিম), বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা শাহ আহমদ শফী ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০৪ বছর বয়সে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। আজ দুপুর ২টায় হাটহাজারী মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে গুরুতর অসুস্থতাজনিত কারণে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে হেলিকপ্টারযোগে তাকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। ঢাকায় নেয়ার তিন ঘণ্টা পর তাকে লাইফ সাপোর্ট দেয়া হলেও বাঁচানো যায়নি। মৃত্যুর আগে তিনি হার্ট, কিডনি, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন। রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মৃত্যুর আগে তার পরিচালিত মাদ্রাসায় তিনি ও তার পুত্রকে নিয়ে একটি অনাকাক্সিক্ষত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। মাদ্রাসার একটি অংশের ছাত্র-শিক্ষক পিতা-পুত্রের বিরুদ্ধে উত্তাল পরিবেশের জন্ম দেয়। শেষ পর্যন্ত তাদের দু’জনকেই নিজ নিজ পদ থেকে সরে যেতে হয়।

রাষ্ট্রপতির শোক ॥ রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ হেফাজতে ইসলামের আমির বিশিষ্ট আলেম আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, আল্লামা শফী দেশে-বিদেশে ইসলামের প্রচার ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। তার মৃত্যুতে দেশ একজন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদকে হারাল।

রাষ্ট্রপতি মরহুম আল্লামা শফীর রুহের মাগফিরাত কামনা করেন ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর শোক ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুক্রবার হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

আল্লামা শফী চট্টগ্রামের রাঙ্গুনীয়ায় ১৯১৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও আমিরের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাড়াও একইসঙ্গে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যানও ছিলেন।

বৃহস্পতিবার হাটহাজারী মাদ্রাসার মুহতামিম পদ থেকে পদত্যাগ করার পর গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থা ছিল আশঙ্কাজনক। তার শারীরিক অবস্থার ক্রমাবনতি ঘটায় চমেক হাসপাতালের আইসিইউতে নেয়া হলেও চিকিৎসকদের সিদ্ধান্তক্রমে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে জরুরী ভিত্তিতে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকায় পাঠানো হয়। শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে তাকে আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার আরও অবনতি ঘটে। সন্ধ্যায় প্রায় ৬টা ২০ মিনিটের দিকে তার মৃত্যু হয়। বিশিষ্ট ইসলামী এই চিন্তাবিদের মৃত্যুর খবরে তাৎক্ষণিকভাবে বিভিন্ন মহলে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত্যুপরবর্তী জানাজা, দাফনসহ অন্যান্য অনুষ্ঠানাদি কখন কোথায় হবে তা নিয়ে হেফাজত ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের পক্ষে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আলোচনা চলছিল। তবে তার প্রধান জানাজার নামাজ হবে দীর্ঘদিনের কর্মস্থল হাটহাজারী দারুল উলুম মইনুল মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এবং দাফন হবে রাঙ্গুনীয়ায়। এ তথ্য জানিয়েছেন মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষীয় একটি সূত্র।

জন্ম ও শিক্ষা জীবন ॥ আল্লামা শাহ আহমদ শফী ১৯১৬ সালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনীয়া উপজেলার পাখিয়ারটিলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম বরকত আলী ও মাতা মেহেরুন্নেসা। চট্টগ্রামের আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মইনুল ইসলাম এবং ভারতের দারুল উলুম দেওবন্দ মাদ্রাসায় শিক্ষালাভ করেন। কর্মজীবন শুরু হয় আল জামেয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মইনুল ইসলাম মাদ্রাসায় শিক্ষকতার মাধ্যমে। ২০১০ সালে হেফাজত ইসলাম বাংলাদেশ সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত এ সংগঠনটির চেয়ারম্যান পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন। তাৎক্ষণিক তথ্য অনুযায়ী তার রচিত বেশ ক’টি গ্রন্থ রয়েছে। এরমধ্যে উর্দু ভাষায় ফয়জুল জারী, আল বায়ানুল ফাসিল বাইয়ানুল হক ওয়াল বাতিল, ইসলাম ও সিয়াছাত, ইজহারে হাকিকাত এবং বাংলা ভাষায় হক ও বাতিলের চিরন্তন দ্বন্দ্ব, ইসলামী অর্থ ব্যবস্থা, ইসলাম ও রাজনীতি, সত্যের দিকে করুন আহ্বান এবং সুন্নাত ও বিদআতের সঠিক পরিচয় অন্যতম। এদিকে ভক্তদের একনজর দেখবার জন্য আল্লামা আহমদ শফীর লাশ গত রাতে পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ার ফরিদাবাদ মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে রাখা হয়।

মৃত্যুপূর্ববর্তী ঘটনাবলী ॥ মৃত্যুর একদিন আগ পর্যন্ত আল্লামা শাহ আহমদ শফী ও তারপুত্র আনাস মাদানীর বিরুদ্ধে হাটহাজারী মইনুল ইসলাম মাদ্রাসায় বিক্ষোভ দানা বেঁধেছিল। ছাত্র-শিক্ষকদের একটি অংশের সৃষ্ট উত্তাল পরিস্থিতিতে বুধবার রাতে আনাস মাদানীকে হাটহাজারীর এই মাদ্রাসার পরিচালনা পরিষদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার রাতে মাদ্রাসা পরিচালনা বোর্ডের সভায় আল্লামা শফীকে মুহতামিমের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। তবে মাদ্রাসার উপদেষ্টা হিসাবে রাখা হয়। উল্লেখ্য, আল্লামা শফী ২০০৯ সালে কয়েকজন ইসলামী চিন্তাবিদের সঙ্গে একটি যৌথ বিবৃতি প্রদান করেছিলেন। যেখানে ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের নিন্দা করা হয়। তার দেয়া বিভিন্ন বক্তব্য নিয়ে সমালোচনা ও নানা আলোচনার সৃষ্টি হয়। শফীর দেয়া একটি বক্তৃতায় নারীদের প্রতি অবমাননাকর শব্দ ব্যবহার ও তাদের শিক্ষা গ্রহণ নিরুৎসাহিত করার বক্তব্যদানের অভিযোগে বিভিন্ন নারী সংগঠন, বিশিষ্ট নাগরিক সমাজসহ বিভিন্ন মহলে কঠোর সমালোচনার জন্ম দেয়। তিনি বিভিন্নভাবে ইসলামী ভাবধারার সংগঠনের কাছেও আলোচিত ছিলেন। প্রসঙ্গত, হাটহাজারী মাদ্রাসায় গত কয়েকদিন ধরে হেফাজত ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীকে মহাপরিচালক পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করে সম্মানজনক উপদেষ্টা পদে নিয়োগ এবং তার পুত্র পরিচালক আনাস মাদানীকে স্থায়ীভাবে অপসারণসহ ৬ দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে আসছিল শিক্ষার্থীরা। সে আন্দোলন একপর্যায়ে খুবই অশান্তরূপ ধারণ করে। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার মিলে প্রায় ৩৬ ঘণ্টা অনেকটা অবরুদ্ধ ছিলেন হেফাজত আমির আহমদ শফী। বিভিন্ন অফিস কক্ষের পাশাপাশি তার কক্ষেও ব্যাপক ভাংচুর হয়। তিনি বেশ হেনস্থা হন। এ অবস্থায় তিনি অনেকটা বিমর্ষ এবং অসুস্থ হয়ে পড়েন। দাবির মুখে হেফাজত আমীরের পুত্র আনাস মাদানীকে বুধবার রাতেই পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। এরপরও আন্দোলন অব্যাহত থাকে। পুলিশ মোতায়েন এবং মাদ্রাসা বন্ধ ঘোষণার পরও বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা আন্দোলনেই থেকে যায়। অতপর বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মহাপরিচালক পদ থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দেন আহমদ শফী। তখন তিনি বেশ অসুস্থ অনুভব করেন। হেফাজত আমির আহমদ শফী শারীরিক গুরুতর অসুস্থ বিধায় বৃহস্পতিবার রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য ঘোষণা করা হয়। কিন্তু আন্দোলনকারীদের কেউ কেউ তাতে আপত্তি জানায়। তাই বাইরে প্রশাসন এবং ভেতরে মাদ্রাসা ছাত্ররা মুখোমুখি অবস্থানে ছিল। রাত পৌনে ১১টার দিকে মজলিসে শূরার পক্ষ থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়। এ ছাড়াও, মাওলানা আনাস মাদানীকে বহিষ্কার করে এবং আগের সব সিদ্ধান্ত বলবৎ রেখেছে শূরা কমিটি। শূরা কমিটি ছাত্র আন্দোলনের ইন্দন দেয়ার অভিযোগে মাওলানা নুরুল ইসলাম কক্সবাজারীকে সব দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফী, আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, মাওলানা শেখ আহমদ, মাওলানা নোমান ফয়েজি, মাওলানা সালাহউদ্দিন নানুপুরী, মুফতী নুর আহমদ, মাওলানা শোওয়াইব, মাওলানা ওমর, মওলানা কবির আহমদ, মাওলানা আহমদ দিদার, মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরীসহ ১১ জন। এর আগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে করোনাকালীন আরোপিত শর্তভঙ্গের কারণে সন্ধ্যায় হাটহাজারী মাদ্রাসা বন্ধ ঘোষণা করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেই ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করে ছাত্ররা আন্দোলন অব্যাহত রাখে এবং মাদ্রাসা বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের নিয়ন্ত্রণে থাকে। শাপলা চত্বরের মতো রাতের যে কোন সময়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে অভিযান চালাতে পারে এ ভয়ে বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা মাদ্রাসার সবগুলো ফটকে তালা দিয়ে রাখে। এ পরিস্থিতিতে রাতভর বাইরে মোতায়েন ছিল বিপুলসংখ্যক পুলিশ এবং ভিতরে ছিল কয়েক হাজার বিক্ষুব্ধ ছাত্রের অবস্থান। যার কারণে উত্তজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ ছিল মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে। বিক্ষোভের শুরু থেকেই ছাত্ররা মাদ্রাসার মূল ফটকে তালা লাগিয়ে দিলে আইনশৃঙ্খলার অবনতির আশঙ্কায় মাদ্রাসার বাইরে প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয় র‌্যাব ও পুলিশের সদস্যরা। বৃহস্পতিবার রাতভর বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা উৎকণ্ঠায় থাকলেও ভোরের আলো দেখা দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি ক্রমশ স্বাভাবিক হয়ে আসে। শুক্রবার জুমার নামাজের আগে মুসল্লিদের আসা-যাওয়ার সুবিধার্থে প্রধান ফটকের পকেট গেটটি উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। শুক্রবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মাদ্রাসায় পরিস্থিতি শান্ত ছিল। তবে অনাকাক্সিক্ষত কোন পরিস্থিতি যেন না ঘটে সে ব্যাপারে প্রশাসন ও পুলিশ সতর্ক রয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় তার মৃত্যু সংবাদ প্রচারিত হওয়ার পর এ সতর্ক অবস্থা আরও জোরদার করা হয়। বিশেষ করে হাটহাজারী দারুল উলুম মইনুল ইসলাম মাদ্রাসাকে ঘিরে সশস্ত্র পুলিশের অবস্থান বৃদ্ধি করা হয়। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার তদারকিও অব্যাহত রাখা হয়। এছাড়া চট্টগ্রামের আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ প্রাঙ্গণসহ নগরীর কয়েকটি পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

বিভিন্ন মন্ত্রীর শোক ॥ হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শফীর মৃত্যুতে শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন মন্ত্রিপরিষদের সদস্যসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ হাসান এমপি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, ধর্ম সচিব মোঃ নুরুল ইসলাম।

বিএনপি ॥ হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে শোক জানিয়ে বিএনপি বলেছে, তার মৃত্যুতে দেশ একজন ‘শ্রদ্ধেয় অভিভাবককে’ হারিয়েছে, এই শূন্যস্থান সহজে পূরণ হওয়ার নয়। শুক্রবার সন্ধ্যায় হেফাজত আমিরের মৃত্যুর পর বিএনপির এক শোক বার্তায় বলা হয়, ‘বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও দ্বীনি আলেম মরহুম শাহ্ আহমদ শফী বাংলাদেশে ইসলামী জ্ঞানচর্চার মাধ্যমে আদর্শ সমাজ প্রতিষ্ঠায় অসামান্য অবদান রেখেছেন। একজন প্রসিদ্ধ ও খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ হিসেবে তিনি দেশ-বিদেশের অসংখ্য মানুষকে ইসলামী চিন্তায় উদ্বুদ্ধ করে মহান আল্লাহ তা’আলার প্রতি অগাধ বিশ্বাস ও দ্বীনি ইমান মজবুত করতে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। তিনি ছিলেন সব সময় ন্যায় ও ইনসাফের পক্ষে সোচ্চার। ইসলামী চিন্তাবিদ হিসেবে তিনি ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়। তার ইন্তেকালে একজন দৃঢ়চেতা ও সাহসী মানুষের নেতৃত্ব থেকে জাতি বঞ্চিত হলো। মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানানো হয়।

শীর্ষ সংবাদ:
ঘুরে দাঁড়াচ্ছে কৃষক ॥ আমন থেকে আসবে দেড় কোটি টন চাল         বদলির কারণে উন্নয়ন প্রকল্প যেন বাধাগ্রস্ত না হয় ॥ প্রধানমন্ত্রী         হাজী সেলিমের ছেলের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা গ্রেফতার         ১১ অপ্রাপ্ত বয়স্ক আসামির সাজা, ৩ জন খালাস         নির্বাচন পর্যন্ত ফ্লোরিডায় থাকবেন ট্রাম্প, ঝটিকা সফরে বাইডেন         অন্য দেশের তুলনায় করোনায় এদেশে মৃত্যুহার কম         করোনায় দেশে রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু প্রতিদিন ওঠানামা করছে         ভারত-বাংলাদেশ তেল পাইপলাইন নির্মাণ শুরু করা যাচ্ছে না         ৫ নবেম্বরের মধ্যে আকবর গ্রেফতার না হলে কঠোর কর্মসূচী         মাশরুমের সম্ভাবনা কাজে লাগাতে সব ধরনের উদ্যোগ নেয়া হবে         শাশুড়ির শত কোটি টাকা আত্মসাত কাহিনী         ১০ হাজার রোহিঙ্গার হাতে জাতীয় সনদ         বিশ্বকে কতটা বদলে দিয়েছেন ট্রাম্প?         শীঘ্রই দুই অতিরিক্ত এ্যাটর্নি জেনারেল নিয়োগ দেয়া হচ্ছে         শেখ হাসিনা প্রতিটি গ্রামকে শহরে রুপান্তর করছেন : প্রতিমন্ত্রী পলক         ডিএনসিসির সড়ক নিরাপত্তায় ৩২০ কোটি টাকার প্রকল্প         কাউন্সিলর ইরফান সেলিম সাময়িক বরখাস্ত         আগামী মাসে আসছে অক্সফোর্ডের করোনার টিকা         হাজী সেলিমের ব্যক্তিগত সহকারী দিপু তিন দিনের রিমান্ডে         বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্ঠায় মহানবীর( সা) আদর্শ প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই