শনিবার ৯ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মোহিনী চৌধুরী স্মরণে ‘মুক্তির মন্দির সোপান তলে’

  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মুক্তির মন্দির সোপান তলে/কত প্রাণ হলো বলিদান, লেখা আছে অশ্রুজলে/কত বিপ্লবী বন্ধুর রক্তে রাঙা, বন্দীশালার ওই শিকল ভাঙা...। যে কোন আন্দোলন-সংগ্রামে আলোড়িত করে এই গানের বাণী। মুক্তি সংগ্রামে উদ্দীপনা জাগানো গানটির রচয়িতা মোহিনী চৌধুরী। দেশাত্মবোধক সঙ্গীতের পাশাপাশি তিনি লিখেছেন ভাব-ভালবাসাসহ বিচিত্র বিষয়ের কালজয়ী অসংখ্য গান। আধুনিক বাংলা গানের কিংবদন্তি এই গীতিকবি জন্মেছিলেন গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়ায়। পরবর্তীতে পরিবারের সঙ্গে পাড়ি জমান কলকাতায়। তবে সকল সীমারেখা পেরিয়ে এই গীত¯্রষ্টা সৃষ্টির আলোয় রাঙিয়েছেন বাংলাভাষী শ্রোতাদের হৃদয়। শনিবার ছিল তার শততম জন্মবার্ষিকী। জন্মদিনে তারই রচিত গানের সুরে নিবেদিত হলো শ্রদ্ধাঞ্জলি। ‘মুক্তির মন্দির সোপান তলে’ শীর্ষক সঙ্গীতাসরের মাধ্যমে জানানো হলো ভালবাসা। করোনাকালে মিলনায়তনের পরিবর্তে ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সঙ্গীত সংগঠন সমন্বয় পরিষদ। শরতের সন্ধ্যায় পরিষদের ফেসবুক লাইভে সরাসরি সম্প্রচারিত হয় অনুষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী সুমন চৌধুরী, ছন্দা চক্রবর্তী ও সন্দীপন। সুমন চৌধুরীর কণ্ঠের আশ্রয়ে শুরু হয় পরিবশেনা পর্ব। প্রথমেই তিনি গেয়ে শোনান ‘মুক্তির মন্দির সোপান তলে’ শীর্ষক সঙ্গীত। প্রিয়তমার প্রতি অশেষ প্রেমের বারতায় পরের পরিবেশনায় গেয়ে শোনানÑ এনেছি আমার শত জমের প্রেম/আঁখিজলে গাঁথা মালা/ওগো সুদূরিকা, আজো কি হবে না শেষ/তোমারে চাওয়ার পালা...। তৃতীয় পরিবেশায় উপস্থাপিত হয় কমল দাশগুপ্তর আরেক কালজয়ী গান ‘পৃথিবী আমারে চায়, রেখো না বেঁধে আমায়’। এছাড়াও এই শিল্পী গেয়ে শোনান ‘আমি দূরন্ত বৈশাখী ঝড়’ শীর্ষক সঙ্গীত।

ছন্দা চক্রবর্তী গেয়ে শোনান ‘ভুলি নাই ভুলি নাই’ ‘আহা কি যে মিষ্টি’ ও ‘কেন এ হৃদয় চঞ্চলতা’ শিরোনামের গান।

সন্দীপনের পরিবেশনার মাধ্যমে শেষ হয় এই সুরের ¯্রােতধারা। প্রথমেই গেয়ে শোনান শচীনদেব বর্মণের সুরারোপিত সঙ্গীত। শিল্পীর কণ্ঠে গীত হয়Ñ শুনি তাকদুম তাকদুম বাজে, বাজে ভাঙা ঢোল/ও মন যা ভুলে যা ভুলে/কি হারালি ভোলরে ব্যথা ভোল...। এছাড়াও এই শিল্পী গেয়ে শোনান ‘ঝিলমিল ঝিলমিল ঝিলের জলে’ ও ‘কি যে করি মন নিয়া’ শিরোনামের গান।

হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শৈলেশ দাশগুপ্ত, কৃষ্ণচন্দ্র দে, শচীনদেব বর্মণ ও কমল দাশগুপ্তর সুরাশ্রিত দশটি গানে সজ্জিত সঙ্গীতানুষ্ঠানটির সঞ্চালনা করে মাহমুদ সেলিম।

শীর্ষ সংবাদ:
সাকিবের হাসিতে শুরু বিপিএল         ফের বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ॥ করোনার লাগাম টানতে পাঁচ জরুরী নির্দেশনা         বাবার সম্পত্তিতে পূর্ণ অধিকার পাবেন হিন্দু নারীরা ॥ ভারতীয় সুপ্রীমকোর্ট         উচ্চারণ বিভ্রাটে...         বাণিজ্যমেলার ভাগ্য নির্ধারণে জরুরী সিদ্ধান্ত কাল         আলোচনায় এলেও আন্দোলনে অনড় শিক্ষার্থীরা         ‘আমার প্রিয় বিশ্ববিদ্যালয়টি ভালো নেই’         করোনা ভাইরাসে আরও ১২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১১৪৩৪         ‘১৫ ফেব্রুয়ারি বইমেলা শুরু’         ঢাবির হল খোলা, ক্লাস চলবে অনলাইনে         করোনারোধে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৫ জরুরি নির্দেশনা         আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ স্কুল-কলেজ         ভরা মৌসুমে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের সবজি         মাদারীপুরে সেতুর পিলারে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, ২ শিক্ষার্থী নিহত         বিপিএম-পিপিএম পাচ্ছেন পুলিশের ২৩০ সদস্য         অভিনেত্রী শিমু হত্যা : ফরহাদ আসার পরেই খুন করা হয়         দিনাজপুরে মাদক মামলায় নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য গ্রেফতার         শাবিপ্রবিতে গভীর রাতে শিক্ষার্থীদের মশাল মিছিল         ঘানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণে ৫শ’ ভবন ধস, নিহত ১৭         করোনায় রেকর্ড সাড়ে ৩৫ লাখ শনাক্ত, মৃত্যু ৯ হাজার